ভিকারুননিসার তদন্ত প্রতিবেদন

স্কুল কর্তৃপক্ষের নির্দয়-নির্মম আচরণে অরিত্রীর আত্মহত্যা

প্রকাশ : ০৬ ডিসেম্বর ২০১৮, ০০:০০

নিজস্ব প্রতিবেদক

অরিত্রী ও তার বাবা-মায়ের সঙ্গে ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজ কর্তৃপক্ষের নির্মম, নির্দয় আচরণ তাকে মানসিকভাবে বিপর্যস্ত করে তোলে এবং তাকে আত্মহত্যায় প্ররোচিত করে বলে উঠে এসে তদন্ত প্রতিবেদনে। আত্মহননের পর গঠিত কমিটি স্কুলটির নানা অনিয়মের সত্যতাও পেয়েছে। স্কুলটির বিরুদ্ধে নানা অনিয়মের অধিকতর তদন্তেও যাচ্ছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। এ বিষয়ে বিভাগীয় ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ। গতকাল বুধবার দুপুরে সচিবালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এই তথ্য জানিয়েছেন তিনি। এছাড়া শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভের প্রেক্ষাপটে ভিকারুননিসার সব শাখার ক্লাস ও পরীক্ষা অনির্দিষ্টকালের জন্য স্থগিত করা করেছে বলে জানিয়েছেন বেইলি রোড শাখার শিক্ষক মুশতারি সুলতানা।

এদিকে, অরিত্রির আত্মহত্যার ঘটনায় কারো কোনো প্ররোচনা ছিল কি না তা তদন্ত করবে মহানগর গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশ। গতকাল মামলাটি ডিবিতে হস্তান্তর করা হয়েছে। মামলার আসামিরা হলেন অধ্যক্ষ নাজনীন ফেরদৌস, প্রভাতী শাখার প্রধান জিনাত আক্তার ও শ্রেণি শিক্ষিকা হাসনা হেনা। ডিবির যুগ্ম কমিশনার মো. মাহবুব আলম বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তবে এ ঘটনায় এখনো কেউ আটক কিংবা গ্রেফতার হয়নি। শিক্ষামন্ত্রী বলেন, এরই মধ্যে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ নাজনীন ফেরদৌস, প্রভাতি শাখার প্রধান জিন্নাত আরা এবং নবম শ্রেণির শিক্ষিকা হাসনা হেনাকে বরখাস্ত করতে স্কুল পরিচালনা কমিটিকে নির্দেশ দিয়েছে মন্ত্রণালয়ের কমিটি। ওই তিন শিক্ষকের এমপিও বাতিলের পাশাপাশি তাদের বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলা করাসহ আইনি ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। আর অরিত্রীর বাবা দিলীপ অধিকারী আত্মহত্যায় প্ররোচনার অভিযোগে যে মামলা করেছেন, তাতেও ওই তিনজনকে আসামি করা হয়েছে।

অন্যদিকে, শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন বন্ধসহ ৬ দফা দাবিতে ফের সড়কে অবস্থান নিয়েছে ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের শিক্ষার্থীরা। অধ্যক্ষের বরখাস্তসহ ছয়টি দাবি আনুষ্ঠানিকভাবে মেনে না নেওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছে তারা। অধ্যক্ষসহ তিন শিক্ষককে বরখাস্তে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনার পর বেলা পৌনে ২টার দিকে শিক্ষার্থীদের পক্ষ থেকে এ ঘোষণা আসে।

শিক্ষার্থীদের পক্ষে আনুশকা রায় সাংবাদিকদের বলেন, আমরা শুনেছি, আমাদের কয়েকটি দাবি মেনে নেওয়া হয়েছে। আমরা আমাদের অধ্যক্ষ বা মুখপাত্রের পক্ষ থেকে এ সংক্রান্ত আনুষ্ঠানিক ঘোষণা চাই। এই ঘোষণা না আসা পর্যন্ত আমাদের অবস্থান চলবে।

শিক্ষার্থীদের ছয় দফা দাবির মধ্যে রয়েছে অধ্যক্ষ নাজনীন ফেরদৌসকে বরখাস্ত এবং আত্মহত্যার প্ররোচনার কারণে ৩০৫ ধারায় শাস্তি; কোনো শিক্ষার্থীকে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন করা হবে নাÑ এমন নিশ্চয়তা দেওয়া; কথায় কথায় শিক্ষার্থীদের ট্রান্সফার সার্টিফিকেট দেওয়া ও দেওয়ার হুমকি না দেওয়া; শিক্ষার্থীদের মানসিক সুস্থতার জন্য প্রত্যেক ক্লাসে মনোবিদের ব্যবস্থা রাখা; গভর্নিং বডির প্রত্যেক সদস্যের পদত্যাগ এবং আন্দোলনকারী কারো বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা না নেওয়া।

নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী অরিত্রীর আত্মহত্যার ঘটনায় টানা দুই দিন ধরে বেইলি রোডের স্কুল ক্যাম্পাসে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভের মধ্যে সচিবালয়ে সংবাদ সম্মেলন করে তিন শিক্ষকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার ঘোষণা দেন শিক্ষামন্ত্রী। তিনি বলেন, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের তদন্ত কমিটি অরিত্রীর আত্মহত্যার ঘটনায় ‘প্ররোচনার প্রমাণ’ পেয়েছে। তিনি বলেন, শিক্ষার্থীদের দাবির সঙ্গে একাত্মতা ঘোষণা করে আমরা এই সিদ্ধান্ত নিয়েছি। প্রথম থেকে দ্বাদশ শ্রেণি পর্যন্ত সব শ্রেণির ক্লাস-পরীক্ষা পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত স্থগিত থাকবে।

প্রসঙ্গত, গত ৩ ডিসেম্বর ‘স্কুল থেকে ছাড়পত্র (টিসি) দেওয়ায় এবং নিজের সামনে বাবা-মাকে অপমান করায়’ ভিকারুননিসা নূন স্কুলের প্রধান শাখার নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী অরিত্রী অধিকারী আত্মহত্যা করে বলে অভিযোগ উঠেছে। শান্তিনগরের বাড়ি থেকে অরিত্রীর লাশ উদ্ধার করা হয়। ওই ঘটনায় এরই মধ্যে ভিকারুননিসা নূন স্কুলের তিন শিক্ষকের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন অরিত্রীর বাবা দিলীপ অধিকারী।

পরে মঙ্গলবার বিক্ষোভের মধ্যে হাইকোর্টের এক পর্যবেক্ষণে বলা হয়, ভিকারুননিসা নূন স্কুলের ছাত্রীর আত্মহত্যার ঘটনা খুবই হৃদয় বিদারক। শিক্ষার্থীর সামনে বাবা-মাকে অপমানের ঘটনাকে বাজে রকমের দৃষ্টান্ত বলেও মন্তব্য করেন আদালত। আত্মহত্যার ঘটনাটি তদন্ত করতে দুইটি পৃথক কমিটি গঠন করা হয়।

সরকার ঢাকা আঞ্চলিক শিক্ষা অফিসের পরিচালক অধ্যাপক মোহাম্মদ ইউসুফকে প্রধান করে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছে। কমিটির বাকি দুই সদস্য হলেন ঢাকা আঞ্চলিক শিক্ষা অফিসের উপপরিচালক শাখাওয়াত হোসেন ও জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা বেনজীর আহমেদ। কমিটিকে তিন দিনের মধ্যে প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে।

এছাড়া স্কুল কর্তৃপক্ষও তিন সদস্যবিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছে, যাতে তিন দিনের মধ্যে প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে। কমিটির সদস্যরা হলেন আতাউর রহমান, খুরশিদ জাহান ও ফেরদৌসী জাহান। তারা সবাই ভিকারুননিসার পরিচালনা কমিটির সদস্য।

এর আগে মঙ্গলবার সকালে শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ ভিকারুননিসার বেইলি রোড ক্যাম্পাস পরিদর্শনে গিয়ে বলেন, আত্মহত্যার ঘটনাটি সরকার গুরুত্ব দিয়ে দেখছে।

 

"