মনোনয়ন কিনতে দ্বিতীয় দিনেও উপচেপড়া ভিড়

প্রকাশ : ১১ নভেম্বর ২০১৮, ০০:০০

নিজস্ব প্রতিবেদক

উৎসবমুখর ও আনন্দঘন পরিবেশে দ্বিতীয় দিনেও আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন কিনেছেন আগ্রহী প্রার্থীরা। মনোনয়ন কিনতে দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে আসা আওয়ামী লীগের হাজারো নেতাকর্মীর পদচারণায় মুখর হয়ে উঠেছে ঢাকার ধানমন্ডির ঝিগাতলায় আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয় এলাকা। আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশ নিতে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন কিনবেন দুই ক্রিকেট তারকা মাশরাফি বিন মর্তুজা ও সাকিব আল হাসান। আজ রোববার সকালে ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে গিয়ে তারা ফরম কিনবেন। আওয়ামী লীগের দফতর সম্পাদক বিপ্লব বড়ুয়া গতকাল শনিবার সাংবাদিকদের এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। এদিকে কেউ বিদ্রোহী প্রার্থী হলে তাকে দল থেকে স্থায়ীভাবে বহিষ্কার করা হবে বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। গতকাল শনিবার সকালে ধানমন্ডিতে দলের মনোনয়ন ফরম বিক্রি ও জমা কার্যক্রম পরিদর্শন করে তিনি একথা বলেন।

তিনি বলেন, ‘দুদিনে ৩ হাজার ২০০ মনোনয়ন ফরম বিক্রি হয়েছে। কোনো কোনো আসনে তো ১৪-১৫ জন প্রার্থীও আছে কিন্তু মনোনয়ন তো দেব একজনকে। এরপরও যদি কেউ প্রার্থিতা প্রত্যাহার না করে তাহলে এবার অপেক্ষা নয় সরাসরি বহিষ্কার করা হবে।’

সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ের তথ্য কর্মকর্তা আবু নাসের জানান, গতকাল সকালে মাশরাফি এবং সাকিব সড়ক, পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরকে ফোন করে জানিয়েছেন আজ তারা মনোনয়ন ফরম কিনবেন। মাশরাফি বিন মর্তুজা ও সাকিব আল হাসান তাদের নিজ জেলা নড়াইল ও মাগুরার নির্বাচনী আসনের জন্য মনোনয়ন কিনবেন।

মাশরাফির ভোটে দাঁড়ানোর বিষয়টি প্রথম সামনে আসে চলতি বছরের মে মাসে। ২৯ মে জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির বৈঠক শেষে পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল বলেছিলেন, ‘নড়াইল থেকে নির্বাচন করবে মাশরাফি। সে ভালো মানুষ। তাকে ভোট দিয়েন। তবে কোনো দল থেকে নির্বাচন করবেন সেটি বলব না।’

সাকিবের বিষয়টিও তখন থেকেই আলোচনায় ছিল। তবে বিশ্বখ্যাত এ দুই ক্রিকেটারের রাজনীতিতে সরাসরি সক্রিয় হওয়ার বিষয়টি নিয়ে কখনোই নিশ্চিতভাবে কোনো তথ্য পাওয়া যায়নি।

আ হ ম মুস্তফা কামাল বক্তব্যের দুই দিন পরই সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছিলেন, আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে প্রার্থী মনোনয়ন নিয়ে কিছু চমক আছে। তবে বিশ্বকাপের আগে নির্বাচন-রাজনীতি নিয়ে সাকিব ও মাশরাফির কোনো কথা নেই। ওই সময় মাশরাফি নিজেই বলেছিলেন, ‘আসলে কামাল ভাই (আ হ ম মুস্তফা কামাল) যা বলেছেন, সেটা তার কথা। আমি সে সম্পর্কে কিছুই জানি না।’

এদিকে, দ্বিতীয় দিনের মতো দলীয় মনোনয়ন বিক্রি করেছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ। প্রথম দিন শুক্রবার সকাল ১০টা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত টানা মনোনয়ন ফরম বিক্রি হয়। ঢাকার ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয় থেকে মনোনয়ন কিনছেন প্রার্থীরা। ফরম কিনতে নিজ নিজ আসনের প্রার্থীরা কর্মী-সমর্থকদের নিয়ে হাজির হন দলীয় কার্যালয়ের সামনে।

মনোনয়নপত্র বিতরণের সঙ্গে সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, ৩০০ আসনে শত শত আগ্রহী প্রার্থী মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করছেন। প্রায় প্রতিটি আসনেই একাধিক প্রার্থী মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করছেন। অনেক আসনে ৫-৭ জন করে মনোনয়নপ্রত্যাশী ফরম নিয়েছেন।

এদিনে মনোনয়নপত্র সংগ্রহকারীদের মধ্যে উল্লেখ্যযোগ্য হলেন দলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ, উপদেষ্টা পরিষদ সদস্য মোজাফফর হোসেন পল্টু, অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম, মহানগর নেতা ডা. দিলীপ রায়, ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের প্যানেল মেয়র জামাল মোস্তফা, অভিনেত্রী সারাহ বেগম কবরী (ঢাকা-১৭, আগে নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য ছিলেন), ঢাকাই ছবির এক সময়ের জনপ্রিয় চিত্রনায়ক শাকিল খান (বাগেরহাট-৩), ঢাকা-১৪ আসন থেকে চলচ্চিত্র অভিনেতা মনোয়ার হোসেন ডিপজল।

মনোনয়ন ফরম কেনার পরে মনোয়ার হোসেন ডিপজল সাংবাদিকদের জানান, আগামী নির্বাচনে আমি আওয়ামী লীগের মনোনয়নপ্রত্যাশী। এছাড়া চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (চউক) চেয়ারম্যান আবদুচ ছালাম (চট্টগ্রাম-৮ ও ৯), বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক ডা. কামরুল হাসান খান (টাঙ্গাইল-৩), ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী যুবলীগের সভাপতি মইনুল হোসেন খান নিখিল (ঢাকা-১৫), সাবেক ছাত্রনেতা সফি আহমেদ (নেত্রকোনা-৪) মনোনয়ন কিনেছেন।

মনোনয়নপত্র কিনতে প্রার্থীর জাতীয় পরিচয়পত্রের ফটোকপি, ছবি ও ফটোকপির পেছনে নিজ নির্বাচনী আসনের নম্বর, রাজনৈতিক পরিচয় প্রয়োজন হচ্ছে। এসবের সঙ্গে ৩০ হাজার টাকা দিয়ে কেনা যাচ্ছে ফরম। সংসদীয় প্রতিটি আসনে একাধিক প্রার্থীর মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করতে দেখা গেছে নেতাকর্মীদের। পার্টি অফিসের ভেতর বিভাগভিত্তিক কাউন্টার থেকে ফরম সংগ্রহ করা হচ্ছে।

ঘোষণা অনুযায়ী আজ রোববার পর্যন্ত দলীয় মনোনয়নপত্র বিক্রি হবে। এরপর আওয়ামী লীগের মনোনয়ন বোর্ডের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী দলীয় প্রার্থী চূড়ান্ত হবে। ফরম বিক্রির পাশাপাশি দলের দফতর সম্পাদকের কাছে ফরম জমা নেওয়া হচ্ছে।

আওয়ামী লীগের একাধিক সূত্র জানায়, কোন আসনে বর্তমান এমপিসহ মনোনয়নপ্রত্যাশীদের কার অবস্থা কী, সে তথ্য হাইকমান্ডের কাছে রয়েছে। দলের সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিভিন্ন সময় বিভিন্ন জরিপের মাধ্যমে এসব তথ্য সংগ্রহ করেছেন। জরিপ প্রতিবেদনের তথ্য-উপাত্তের ভিত্তিতে বাস্তব অবস্থা বিবেচনা করে প্রার্থী মনোনয়ন দেওয়া হবে।

আগামী ২৩ ডিসেম্বর ভোটগ্রহণের দিন রেখে গত বৃহস্পতিবার একাদশ সংসদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নূরুল হুদা। এরপর গত শুক্রবার থেকে মনোনয়ন ফরম বিক্রি শুরু করেছে আওয়ামী লীগ।

 

"