আওয়ামী লীগ কার্যালয়

মনোনয়ন : উৎসবের আমেজ

শেখ হাসিনার নামে দুটি ফরম কিনে কার্যক্রম উদ্বোধন

প্রকাশ : ১০ নভেম্বর ২০১৮, ০০:০০

কাইয়ুম আহমেদ

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন সামনে রেখে প্রচন্ড আগ্রহ ও বিপুল উৎসাহের মধ্য নিয়ে মনোনয়ন ফরম বিক্রি শুরু করেছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ। নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পরদিন গতকাল শুক্রবার সকালে আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্য দুটি ফরম কেনার মধ্য দিয়ে এ কার্যক্রম শুরু হয়। এদিকে ফরম বিক্রি উপলক্ষে ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ কার্যালয় এলাকায় বাজানো হয় ব্যান্ড। অনেক মনোনয়নপ্রত্যাশীর মিছিলেই ছিল ব্যান্ডদল, সঙ্গে ছিল মিছিল-স্লোগানও। কার্যালয় এলাকাজুড়ে ছিল উৎসবের আমেজ। এ ছাড়া বিভিন্ন এলাকা থেকে আসা নেতাকর্মীরাও আশপাশের এলাকা সরগরম করে রাখেন ঢাকঢোল ও গান-বাজনায়। আওয়ামী লীগের নির্বাচন পরিচালনা অফিসে মনোনয়ন ফরম বিক্রির জন্য খোলা হয়েছে আট বিভাগের আটটি বুথ। ধানমন্ডিতে দলটির বর্ধিত অফিসের দোতলা ও তৃতীয় তলা থেকে ফরম কিনেছেন মনোনয়নপ্রত্যাশীরা। সারা দেশে থেকে মনোনয়নপ্রত্যাশীরা তাদের কর্মী-সমর্থক নিয়ে ধানমন্ডিতে ভিড় করায় গত বৃহস্পতিবার বিকেল থেকেই সেখানে ছিল উৎসবের আমেজ। পছন্দের নেতাদের প্রার্থী করতে স্লোগানও দেন সমর্থকরা। তাদের ছবিসহ প্ল্যাকার্ড, কাটআউট নিয়ে সাতমসজিদ সড়কে মিছিল করেন। অনেকের হাতে ফুল, কাগজের ও কাঠের ছোট ছোট নৌকাও ছিল। এদের মধ্যে নারী সমর্থকদের উপস্থিতিও ছিল লক্ষণীয়।

এদিকে, মনোনয়ন ফরম বিক্রি ঘিরে ভিড়ের কারণে সিটি কলেজ থেকে জিগাতলা মোড় পর্যন্ত রাস্তার একপাশে দেখা গেছে ব্যাপক যানজট। ফলে ছুটির দিনের সকালেও অনেককে হেঁটে গন্তব্যে পৌঁছাতে হয়েছে। সর্বশেষ দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে মোট ২ হাজার ৬০৮ জন আওয়ামী লীগের মনোনয়ন ফরম কিনেছিলেন। তাতে তহবিলে জমা পড়েছিল প্রায় সাড়ে সাত কোটি টাকা। এবার মনোনয়ন ফরমের দাম ২৫ হাজার টাকা থেকে বাড়িয়ে ৩০ হাজার টাকা করায় তা ১০ কোটি ছাড়িয়ে যাবে বলে দলটির নেতাদের প্রত্যাশা।

মনোনয়ন ফরম বিক্রির শুরুর দিনে দুটি কেনা হয়েছে শেখ হাসিনার নামে। একটি গোপালগঞ্জ-৩ (টুঙ্গীপাড়া- কোটালীপাড়া) আসনের জন্য। ওবায়দুল কাদের ফরমটি কিনে দলের ধর্মবিষয়ক সম্পাদক শেখ আবদুল্লার কাছে হস্তান্তর করেন। শেখ হাসিনার জন্য কেনা অন্য ফরমটি কোন আসনের তা জানানো হয়নি।

২০১৪ সালের দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে শেখ হাসিনা গোপালগঞ্জ-৩ আসনের পাশাপাশি তার শ্বশুরবাড়ির এলাকা রংপুরের পীরগঞ্জ (রংপুর-৬) আসনে নির্বাচন করে জয়ী হন। পরে তিনি এই আসনটি ছেড়ে দিলে উপনির্বাচনে এমপি হন স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী। এবারও শিরীন শারমিন চৌধুরীর জন্য এই আসনের জন্য মনোনয়ন ফরম কিনে ডেপুটি স্পিকার ফজলে রাব্বী মিয়ার কাছে হস্তান্তর করেন কাদের।

আর সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের জন্য নোয়াখালী-৫ আসনের একটি মনোনয়ন ফরম কিনেছেন দলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ। এ ছাড়া কিশোরগঞ্জ-১ আসন থেকে মনোনয়ন কিনেছেন দেশের প্রথম অস্থায়ী রাষ্ট্রপতি শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলামের দুই ছেলে সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম ও ভাই সৈয়দ সাফায়েতুল ইসলাম। এদের মধ্যে সৈয়দ আশরাফ আওয়ামী লীগ সভাপতিমন্ডলীর সদস্য ও জনপ্রশাসনমন্ত্রী।

সৈয়দ আশরাফুলের পক্ষে মনোনয়ন ফরম কিনেছেন তার ব্যক্তিগত সহকারী তোফাজ্জল হোসেন ও সাফায়েতুল ইসলামের পক্ষে কিনেছেন সাবেক ছাত্রনেতা জহির। সৈয়দ আশরাফ দীর্ঘদিন ধরে গুরুতর অসুস্থ। গত ১৮ সেপ্টেম্বর সংসদের কার্যক্রম থেকে ৯০ কার্যদিবসের জন্য ছুটি নিয়েছেন জনপ্রশাসনমন্ত্রী সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম। মূলত শারীরিক অসুস্থতার কারণেই সৈয়দ আশরাফ যদি শেষ পর্যন্ত নৌকার প্রার্থী হতে না পারেন, সেক্ষেত্রে স্থলাভিষিক্ত হতে পারেন তার ছোট ভাই সৈয়দ সাফায়েতুল ইসলাম।

তিনি বলেছেন, ‘সৈয়দ আশরাফের শারীরিক অবস্থা সম্পর্কে নেত্রী ভালো জানেন। তিনিই সিদ্ধান্ত নেবেন এ বিষয়ে। নেত্রী যদি ইচ্ছা প্রকাশ করেন তাহলে আমি নির্বাচন করব।’

সিলেট থেকে মনোনয়ন কিনেছেন সিলেট-১ আসনে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত ও তার ভাই ড. এ কে আব্দুল মোমেন, আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট মিসবাহ উদ্দিন সিরাজ, দলের কেন্দ্রীয় সদস্য ও মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি, সাবেক মেয়র বদরউদ্দিন আহমদ কামরান, সাবেক নির্বাচন কমিশনার মো. ছহুল হোসেন। সিলেট-২ থেকে সাবেক এমপি ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শফিকুর রহমান চৌধুরী, যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আনোয়ারুজ্জামান চৌধুরী, সিলেট-৩ থেকে যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগের ত্রাণবিষয়ক সম্পাদক হাবিুবর রহমান হাবিব ও সিলেট-৬ থেকে জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি মুক্তিযোদ্ধা মাসুক উদ্দিন আহমদ।

চাঁদপুর-২ আসন থেকে মনোনয়ন কিনেছেন বাবা ও ছেলে। এরা হলেনÑ অবিভক্ত ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও ত্রাণমন্ত্রী মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া এবং তার ছেলে সাজেদুল হোসেন চৌধুরী দিপু। মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়ার পক্ষে মনোনয়ন কিনেছেন তার রাজনৈতিক সচিব মাসুদ আহমেদ জামান ও তার ভাই মোহনপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শামসুল হক চৌধুরী বাবুল। আর সাজেদুল হোসেন চৌধুরী দিপুর পক্ষে মনোনয়ন কিনেছেন মতলব উত্তর উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আরিফুল হোসেন।

ফেনী-১ আসনে আলাউদ্দিন আহমেদ চৌধুরী নাসিমের জন্য সব প্রার্থী এক হয়ে মনোনয়ন কিনেছেন। ২০১৪ সালের নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী খায়রুল বাশার তপন বলেন, এ আসনে নাসিম ভাইকে এমপি হিসেবে দেখতে চান জেলার সব নেতাকর্মী। সকালে ধানমন্ডির নতুন ভবন থেকে মনোনয়ন নেন আলাউদ্দিন আহমেদ চৌধুরী নাসিম।

এ সময় তার সঙ্গে ছিলেন ফেনী জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি আব্দুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিন হাজারী, ২০১৪ নির্বাচনের আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী খায়রুল বাশার তপন, পরশুরাম উপজেলা চেয়ারম্যান কামাল মজুমদার, ছাগলনাইয়া উপজেলা চেয়ারম্যান মেজবাউল হায়দার চৌধুরী সোহেল, ফুলগাজী উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল আলীম মজুমদার, ফেনী সমিতির সভাপতি শেখ আব্দুল্লাহ, ছাগলনাইয়া পৌরসভার মেয়র মোহাম্মদ মোস্তফা, পরশুরাম পৌরসভা মেয়র সাজেল চৌধুরী এবং অভিনেত্রী শমী কায়সার।

এ ছাড়া ঢাকা-১৭ আসনের জন্য আওয়ামী লীগের মনোনয়ন ফরম কিনেছেন বিএনপির সাবেক মন্ত্রী, স্থায়ী কমিটির সদস্য ও বতর্মান বাংলাদেশ ন্যাশনালিস্ট অ্যালায়েন্সের (বিএনএ) সভাপতি ব্যারিস্টার নাজমুল হুদা। গাজীপুর-৩ আসনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন ফরম কিনলেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মুহাম্মদ ইকবাল হোসেন সবুজ। ফরিদপুর-২ আসনে মনোনয়ন কিনেছেন এয়ার কমোডর (অব.) কাজী দেলোয়ার হোসেন।

আবার অনেক মনোনয়নপ্রত্যাশী নিজে না এসে অন্য কাউকে দিয়ে মনোনয়ন কিনেছেন। কুষ্টিয়া-৪ আসনের বতর্মান সংসদ সদস্য আবদুর রউফের ব্যক্তিগত সহকারী নির্মল বিশ্বাস নেন রউফের ফরম। তিনি বলেন, ‘সকাল ৮টায় এসে লাইনে দাঁড়িয়েছি। ১০টার পরে ভেতরে ঢুকতে পেরেছি।’

কুড়িগ্রাম-২ আসন থেকে মনোনয়নপ্রত্যাশী হামিদুর রহমান এবারই প্রথম সংসদ নির্বাচন করতে চাইছেন। তিনি বলেন, এ আসনে আওয়ামী লীগের আরো চার-পাঁচজন মনোনয়ন প্রত্যাশা করছেন। তার আশা, দল থেকে হয়তো তাকে সুযোগ দেওয়া হবে।

ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয় এবং পাশের নির্বাচন পরিচালনা অফিসে ফরম বিতরণ কার্যক্রমের সূচনা করে ওবায়দুল কাদের বলেন, প্রচন্ড আগ্রহ ও বিপুল উৎসাহ নিয়ে আমাদের মনোনয়ন ফরম বিক্রি শুরু হয়েছে। মনোনয়ন ফরম কত দিন পর্যন্ত কেনা যাবে, জানতে চাইলে তিনি বলেন, কাল রোববার বিকেল সাড়ে ৩টায় বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে মনোনয়ন বোর্ডের সভা হবে। সেখানেই এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত হবে।

 

"