খুনিদের ‘ঐক্য’ মানুষ মানবে না : কাদের

প্রকাশ : ১২ অক্টোবর ২০১৮, ০০:০০

নিজস্ব প্রতিবেদক

২১ আগস্টের খুনিদের সঙ্গে কোনো ধরনের ‘জাতীয় ঐক্য’ দেশের মানুষ মেনে নেবে না বলে মনে করেন ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। ঢাকার রমনায় ইনস্টিটিউশন অব ইঞ্জিনিয়ার্স বাংলাদেশের (আইইবি) মিলনায়তনে গতকাল বৃহস্পতিবার সড়ক ও জনপথ প্রকৌশলী সমিতির ২৮তম বার্ষিক সম্মেলন উদ্বোধনকালে তিনি এই মন্তব্য করেন। ওবায়দুল কাদের বলেন, যারা কথায় কথায়, গণতন্ত্র, আইনের শাসন ও নৈতিকতার কথা বলেন, তারা খুনিদের সঙ্গে জাতীয় ঐক্য করবে। জনগণ কোনো দিনও বিশ্বাস ও সমর্থন করবে না। মেনেও নেবে না।

অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য দেন সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ের সচিব নজরুল ইসলাম, সড়ক ও জনপথ অধিদফতরের প্রধান প্রকৌশলী ইবনে আলম আহসান, আইইবির প্রেসিডেন্ট প্রকৌশলী মো. আবদুস সবুর, প্রকৌশলী সমিতির সভাপতি সবুজ উদ্দিন খান এবং সাধারণ সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ প্রমুখ।

আওয়ামী লীগের এ শীর্ষ নেতা বলেন, ২১ আগস্টের খুনিদের সাজা দেওয়া হয়েছে। বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানকেও যাবজ্জীবন কারাদ- দেওয়া হয়েছে। ড. কামাল হোসেন, সাবেক রাষ্ট্রপতি ডা. বদরুদ্দোজা চৌধুরী- আপনারা কোন নৈতিকতায় এই খুনি দলের সঙ্গে ঐক্য প্রক্রিয়ায় যাচ্ছেন? তথাকথিত জাতীয় ঐক্য করছেন? আমার বিশ্বাস, বাংলাদেশের জনগণ এই ‘ঐক্য’ কোনো দিনও গ্রহণ করবে না।

গ্রেনেড হামলার রায়কে ‘ফরমায়েশি’ বলে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের মন্তব্যের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, ২১ আগস্টে সন্ত্রাসবিরোধী সমাবেশে সন্ত্রাসের শিকার হলাম আমরা, ক্ষমতায় আপনারা, আলমত নষ্ট হলো কেমন করে? হামলাকারীরা প্রকাশ্য দিবালোকে পালিয়ে যাওয়ার সুযোগ পেল কেমন করে? বিচারপতি জয়নুল আবেদিন দায়সাড়া তদন্ত করে রায় দিলেন প্রতিবেশী দেশের গোয়েন্দারা এই ঘটনা ঘটিয়েছে, এটা কি সত্য?

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক প্রশ্ন ছোড়েন, জজ মিয়াকে রাস্তা থেকে ধরে এনে নাটক সাজানো হলো, ইতিহাস কি বলে এটি ফরমায়েশি রায়? আইভি রহমানসহ ২৪ জনকে হত্যা করা হয়েছে, প্রধান টার্গেট শেখ হাসিনা কানের শক্তি হারিয়েছেন, এটিও কি ফরমায়েশি রায়? (আসামি) মুফতি হান্নান নিজেই বলেছেন তারেক রহমানের নির্দেশে অপারেশন চালানো হয়েছে, এটা কি ফরমায়েশি রায়? খুনি তাজউদ্দিনকে নিরাপদে বিদেশে পাঠানো হয়েছে, এটা কি ফরমায়েশি রায়? লুৎফুজ্জামান বাবর তো প্রতিমন্ত্রী, কিন্তু মন্ত্রী তো তখনকার প্রধানমন্ত্রী নিজেই ছিলেন। এটাও কি ফরমায়েশি রায়?

 

"