বিএনপি জনগণের আস্থা হারিয়ে জাতিসংঘে কান্নাকাটি করছে

কাদের

প্রকাশ : ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০০:০০

নিজস্ব প্রতিবেদক

ক্ষমতায় আসার জন্য জনগণের আস্থা হারিয়ে বিএনপি এখন জাতিসংঘে গিয়ে কান্নাকাটি করছে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। গতকাল শনিবার রাজধানীর রমনায় ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটউশনে আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি উপকমিটির ওয়েবসাইটের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এমন মন্তব্য করেন। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন বিদ্যুৎ, জ¦ালানি মন্ত্রণালয়ের সংসদীয় কমিটির সভাপতি এবং কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহসভাপতি মোঃ তাজুল ইসলাম এমপি।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘দেউলিয়াপনার পরাকাষ্ঠা যখন কোনো রাজনৈতিক দল প্রদর্শন করে, দেশকে ছোট করে জনগণের আস্থা হারিয়ে তখন জাতিসংঘে গিয়ে কান্নাকাটি করে। আজকে বিএনপি কত দেউলিয়া দল, কথায় কথায় নালিশ করে বিদেশে। দেশের জনগণের কাছে তো নালিশ করছেই। নালিশ সত্য হলে জনগণ আপনাদের ভোট দেবে, আমাদের নয়।’

দেশের মানুষ ভোট না দিলে কোনো বিদেশি প্রভু বিএনপিকে ক্ষমতায় বসিয়ে দেবে না মন্তব্য করে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘আমাদের নেত্রী তো বলেই দিয়েছেন, জনগণ ভোট দিলে ক্ষমতায় থাকব, না দিলে নয়। জোর করে ক্ষমতায় থাকার ইচ্ছা আওয়ামী লীগের নেই।’

বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে প্রকাশিত বইয়ে বঙ্গবন্ধুর ছবি নেইÑ এমন এক প্রশ্নের জবাবে কাদের বলেন, ‘এটি আমি জানি না। জেনে মন্তব্য করব। আমাদের নির্বাচন পরিচালনা কমিটির বৈঠক আছে। সেখানে নেত্রী কথা বলবেন। সেখানে হয়তো এটি আলোচনা হবে।’

সরকারের উন্নয়নের কথা তুলে ধরে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী বলেন, ‘বিএনপি দেশের অর্জনে কোনো গর্ববোধ করে না। শেখ হাসিনার স্বপ্ন নেক্সট জেনারেশন আর বিএনপির স্বপ্ন নেক্সট ইলেকশন। এরা ক্ষমতা ছাড়া আর কিছুই বোঝে না। বিএনপি নামক দলটি ও তার দোসররা ক্ষমতাকেন্দ্রিক রাজনীতি করে। সম্প্রতি দুটো আন্দোলনে (কোটা সংস্কার ও নিরাপদ সড়ক) যে অপপ্রচার হয়েছে, সে অপপ্রচারের মুখে আমরা যারা মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষের শক্তি যথাযথভাবে মোকাবিলা করতে ব্যর্থ হয়েছি; সাইবার এটাকের কাউন্টার করতে পারিনি। এই অভিজ্ঞতা থেকে বিজ্ঞান প্রযুক্তি উপকমিটি যে উদ্যোগ নিয়েছে, সামনে যেন এই গ্যাপগুলো পূরণ হয়, খেয়াল রাখতে হবে।’

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তৃতায় মোঃ তাজুল ইসলাম এমপি বলেন, ‘উন্নত বাংলাদেশ গড়তে হলে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির উন্নয়নের বিকল্প নেই। আধুনিক সভ্যতার সঙ্গে তাল মিলিয়ে এগিয়ে যেতে হলে এবং দেশকে উন্নত দেশের কাতারে নিয়ে যেতে হলে অবশ্যই বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিকে গুরুত্ব দিতে হবে। প্রধানমন্ত্রী বিষয়টি আরো গভীরভাবে অনুধাবন করেন, এ জন্য তিনি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিকে অধিক গুরুত্ব দিয়ে কাজ করে চলেছেন।’

মোঃ তাজুল ইসলাম আরো বলেন, আন্তর্জাতিক যোগাযোগের ক্ষেত্র প্রসারিত করতে প্রত্যেকটি অঙ্গনেই ওয়েবসাইটের প্রয়োজনীয়তা রয়েছে। যোগাযোগের ক্ষেত্রে প্রযুক্তির এ ধরনের সুযোগ গ্রহণ করতে পারলেই ডিজিটাল বাংলাদেশের অগ্রযাত্রা নিশ্চিত হবে।

আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি উপকমিটির চেয়ারম্যান মো. হোসেন মনসুরের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি সম্পাদক প্রকৌশলী মো. আবদুস সবুর, সাংস্কৃতিক সম্পাদক অসীম কুমার উকিল এবং তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক আফজাল হোসেন বক্তব্য দেন।

"