পাকিস্তানকে হারিয়ে সেমিতে বাংলাদেশ

প্রকাশ : ০৭ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০০:০০

ক্রীড়া ডেস্ক

জটলার ভেতর হেডে গোল করে দর্শকদের দিকে দৌড়ে গেলেন তপু বর্মণ। ততক্ষণে জার্সিটা খুলে ফেলেছেন ২৩ বছর বয়সী ডিফেন্ডার। উষ্ণ অভিনন্দনে তাকে ঘিরে ধরেছে সতীর্থরা। এই একটি গোলেই থমথমে বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামটা প্রাণ ফিরে পেয়ে চিৎকার করতে লাগল ‘বাংলাদেশ, বাংলাদেশ, বাংলাদেশ’ ধ্বনিতে। উল্লাসটাকে আরেকবার বাড়িয়ে দিলেন তপু নিজেই। খালি গায়ে মুক্তিযোদ্ধার মতো হাতকে রাইফেল বানিয়ে ‘ফায়ার’ করলেন সতীর্থদের উদ্দেশে। আর সঙ্গে সঙ্গে ‘গুলি’ খেয়ে মাঠে লুটিয়ে পড়ল পাকিস্তানি বাহিনীরা (সতীর্থরা)। এ যেন মনে করিয়ে দেওয়া যে, মুক্তিযোদ্ধারা পাকিস্তানের বিপক্ষে হারেনি। যদিও খেলার মাঠে রাজনীতি আনা ঠিক নয়, কিন্তু দলটা যখন হয় পাকিস্তান তখন সর্বক্ষেত্রে আমাদের সামনে চলে আসে মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস।

১৯৭১ সালে পাকিস্তানকে হারিয়ে স্বাধীনতার স্বাদ পেয়েছে বাংলাদেশ।

কালকে লাল-সবুজরা আরেকবার আনন্দ এনে দিলেন বাঙালিদের। কাল বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামে পাকিস্তানকে ১-০ গোলে হারিয়ে সাফ চ্যাম্পিয়নশিপের প্রথম দল হিসেবে সেমিফাইনালে উঠেছে কোচ জেমি ডে-এর শিষ্যরা। পাকিস্তানের বিপক্ষে একমাত্র জয়সূচক গোলটি করেছেন তপু বর্মণ। গত ম্যাচে ভুটানের বিপক্ষেও গোল করেছিলেন তিনি।

ফিফা র‌্যাঙ্কিং বাদ দিলে ১৬ বারের দেখায় ২ দলের পরিসংখ্যান ছিল সমাবস্থানে। এর আগে ৬টি করে জয় পেয়েছে বাংলাদেশ ও পাকিস্তান। বাকি ৪টি ম্যাচ হয়েছে ড্র। সাফের পরিসংখ্যানেও ২ দলের অবস্থান ছিল সমান। দক্ষিণ এশিয়ার বিশ্বকাপ খ্যাত সাফের লড়াইয়ে কালকের আগে ৬ বার মুখোমুখি হয়েছে ২ দল। ২টি করে জয়ের পাশাপাশি ২টি ড্র করেছে ২ দল। তবে কাল সুযোগ ছিল কোনো এক দলের এগিয়ে যাওয়ার। আর সেই সুযোগে পাকিস্তানিদের হারিয়ে আরেকবার এগিয়ে গেল বাংলাদেশ। শেষবারের দেখায় এই সাফ চ্যাম্পিয়নশিপেই বাংলাদেশ হেরেছিল পাকিস্তানের বিপক্ষে। এবার তারই একটা প্রতিশোধ নিয়ে নিলো মামুনুল-জামাল ভূঁইয়ারা।

উদ্বোধনী ম্যাচে নেপালের বিপক্ষে নাটকীয়ভাবে ২-১ গোলের জয় পেয়েছিল পাকিস্তান। অন্যদিকে স্বাগতিক বাংলাদেশ ২-০ গোলের সহজ জয় পেয়েছে ভুটানের বিপক্ষে। শেষ ৪ নিশ্চিত করতে হলে জয় ছাড়া কোনো বিকল্প ছিল না ২ দলের সামনে। প্রথমার্ধে অবশ্য বাংলাদেশকে বেশ চাপেই রেখেছিল হোসে অ্যান্তনিও নোগুইয়েরোর শিষ্যরা। তবে দ্বিতীয়ার্ধে পুনরুজ্জীবিত হয়ে মাঠে নামে জেমি ডের দল। গোলের জন্য মরিয়া বাংলাদেশ একের পর এক আক্রমণের পসরা সাজাতে থাকে প্রতিপক্ষের শিবিরে। কিন্তু ফিনিশিংয়ের অভাবে বারবার ব্যর্থ হতে হচ্ছিল লাল-সবুজদের। অবশেষে ৮৫ মিনিটে পুনরায় ত্রাতা হয়ে আসেন তপু। জটলার ভেতর উড়ে আসা বলে মাথা ঠেকিয়ে জড়িয়ে দেন পাকিস্তানের জালে। এই জয়ে ‘এ’ গ্রুপে ৬ পয়েন্ট নিয়ে শেষ ৪ নিশ্চিত করেছে বাংলাদেশ। ১ জয় ও ১ হার নিয়ে ৩ পয়েন্ট নিয়ে তাদের নিচে আছে পাকিস্তান ও নেপাল। জয়হীন ভুটান কোনো পয়েন্ট আদায় করতে পারেনি।

"