২৭ ডিসেম্বর জাতীয় নির্বাচন : অর্থমন্ত্রী

নির্বাচনকালীন সরকার ২০ দিনের মধ্যে

প্রকাশ : ০৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০০:০০

নিজস্ব প্রতিবেদক
ama ami

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন আগামী ২৭ ডিসেম্বর আর নির্বাচনকালীন সরকার ২০ দিনের মধ্যে হতে পারে বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। তিনি বলেন, এর তিন মাস আগে বর্তমান মন্ত্রিপরিষদ ভেঙে দিয়ে ছোট পরিসরের একটি মন্ত্রিপরিষদ গঠন করা হবে। তবে বর্তমান সংসদ বহাল থাকবে। গতকাল বুধবার বিকেলে সচিবালয়ে সিলেট সিটি করপোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী কাউন্সিলরদের নিয়ে অর্থমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক করেন। ওই বৈঠকেই সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলছেন, নির্বাচন হতে পারে আগামী ২৭ ডিসেম্বর। সেই হিসেবে ২৫ সেপ্টেম্বরের আগে নির্বাচনকালীন সরকার গঠন করা হতে পারে। নির্বাচন কমিশনের সঙ্গে কথা বলে জেনেছি তারা প্রস্তাব দিচ্ছে ২৭ ডিসেম্বরে নির্বাচন করার জন্য। ডিসেম্বরের খুব বেশি বাকি নেই, শহীদ দিবস, বিজয় দিবস অনেক কিছু থাকে। আমার মনে হয়, দু-তিনটা ডেট ছাড়া পাওয়া যায় না। ২৭ তারা করেছে, ২৭-এ নির্বাচন হওয়ার চান্স খুব বেশি।

এখনো নির্বাচন কমিশন শিডিউল ঘোষণা করেনি, ঘোষণা করলে সুনির্দিষ্ট দিন পাওয়া যাবে। এই সম্ভাবনা সামনে রেখে আগামী ২০ দিনের মধ্যেই প্রধানমন্ত্রী নির্বাচনকালীন সরকারের ঘোষণা দিতে পারেন বলে জানান মুহিত।

তিনি বলেন, একটি ছোট নির্বাচনকালীন সরকার হবে, এখানে সব পার্টির লোক থাকবে। নতুন কোনো ক্যারেক্টার আসবে না। তবে বিএনপি পার্লামেন্টে না থাকায় তাদের চান্স নেই। আগামী ২০ দিনের মধ্যে নির্বাচনকালীন সরকার হবে। কারণ ২৭ ডিসেম্বরে নির্বাচন হলে ২৫ বা ২৬ সেপ্টেম্বরের মধ্যে নির্বাচনকালীন সরকার হতে হবে, এটা আমার ধারণা।

কাদের নিয়ে মন্ত্রিপরিষদ গঠিত হবে? এমন প্রশ্নের পরিপ্রেক্ষিতে আবুল মাল আবদুল মুহিত বলেন, সেখানে বিএনপি বা সুশীল সমাজের কোনো প্রতিনিধি থাকবে না। বর্তমান সংসদে যেসব দলের প্রতিনিধিত্ব রয়েছে, তাদের মধ্য থেকেই এ পরিষদ গঠন করা হবে। এর প্রধান হবেন শেখ হাসিনা। এ সময় তিনি ওই মন্ত্রিসভার নাম ‘নির্বাচনকালীন সরকারের মন্ত্রিসভা’ হবে বলে মন্তব্য করেন।

বর্তমান সংসদের মেয়াদ প্রসঙ্গে মন্ত্রী বলেন, বর্তমান সংসদের মেয়াদ ২০১৯ সালের ২৫ জানুয়ারি পর্যন্ত। ফলে এর আগে এই সংসদ ভেঙে দেওয়া হবে না।

অর্থমন্ত্রী বলেন, নির্বাচনকালীন সরকার হবে ছোট পরিসরে। এ সরকার সংবিধান অনুযায়ী, নির্বাচনকালীন দায়িত্ব পালন করবে। শুধু রুটিন ওয়ার্ক করবে এ সরকার।

এর আগে অর্থমন্ত্রীর সঙ্গে সিলেট সিটির পুনর্নির্বাচিত মেয়র আরিফুল হক চৌধুরীর নেতৃত্বে কাউন্সিলররা অর্থমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন। সাক্ষাতের বিষয়ে অর্থমন্ত্রী বলেন, তারা নির্বাচিত হয়েছেন। মেয়র হিসেবে আরিফুল হক চৌধুরী শপথ নিয়েছেন। তারা এসেছিলেন সৌজন্য সাক্ষাৎ করতে।

"