বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইটের পরীক্ষামূলক সম্প্রচার আজ শুরু

প্রকাশ : ০৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০০:০০

নিজস্ব প্রতিবেদক
ama ami

বাংলাদেশের প্রথম মহাকাশ যোগাযোগ উপগ্রহ বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ (বিএস-১) আজ মঙ্গলবার দক্ষিণ এশীয় ফুটবল ফেডারেশন (সাফ) চ্যাম্পিয়নশিপ সম্প্রচারের মধ্যদিয়ে পরীক্ষামূলক কার্যক্রম শুরু করবে। সূত্র জানায়, এ উপলক্ষে বিএস-১ এর তদারকী সংস্থা বাংলাদেশ কমিউনিকেশন স্যাটেলাইট কোম্পানি লিমিটেড (বিসিএসসিএল) যাবতীয় প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে।

বিসিএসসিএলের চেয়ারম্যান ড. শাহজাহান মাহমুদ বলেন, বাংলাদেশ টেলিভিশনের (বিটিভি) মাধ্যমে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ ব্যবহার করে সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ খেলা সম্প্রচারের জন্য প্রস্তুত।

এদিকে, বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইটের মাধ্যমে এখন থেকে তিন দিনের পরিবর্তে ১০ দিনের আবহাওয়ার পূর্বাভাস পাওয়া যাবে। মিলবে দুর্যোগের সুনির্দিষ্ট দিন-ক্ষণ ও স্থায়িত্বকাল। স্যাটেলাইট থেকে পাওয়া সংকেত সারা দেশে নির্ভুলভাবে পৌঁছে দিতে নতুন নতুন উদ্যোগ নিচ্ছে সরকার।

সারা দেশে স্থাপন করা হচ্ছে আরো ২০০টি আবহাওয়া সতর্কীকরণ কেন্দ্র। নিজস্ব স্যাটেলাইটের সর্বোচ্চ ব্যবহারে অঞ্চলভিত্তিক স্যাটেলাইট কেন্দ্র করার পরামর্শ দিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। দেশের আবহাওয়া পরিমাপ কিংবা জলবায়ু পরিবর্তনের সমীক্ষা তৈরিতে বর্তমানে ভিন্ন ভিন্ন স্যাটেলাইট নেটওয়ার্ক ব্যবহার করা হয়ে থাকে। এতে আবহাওয়ার সঠিক তথ্য বা সংকেত যথাসময়ে পাঠানো যেমন সম্ভব হয় না, তেমনি বিদেশি স্যাটেলাইটের পেছনে বিপুল অর্থ ব্যয় করতে হয়। এবার নিজস্ব স্যাটেলাইট বঙ্গবন্ধু-১ ব্যবহার করে দেশের বিভিন্ন স্থানে ছড়িয়ে থাকা যন্ত্রপাতির মাধ্যমে, সারা দেশে আবহাওয়ার সঠিক পূর্বাভাস সময়মতো পৌঁছে দেওয়াসহ তথ্য-উপাত্ত পর্যবেক্ষণের সক্ষমতা বাড়ানোর উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

বাংলাদেশ আবহাওয়া অধিদফতরের পরিচালক সামছুদ্দিন আহমেদ বলেন, যখন ইন্টারনেট কিংবা মুঠোফোন থাকে না তখন আবহাওয়ার পূর্বাভাস পাওয়া যায় না, কিন্তু বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১-এর মাধ্যমে এসব তথ্য ঢাকায় ঝড় সতর্কীকরণ কেন্দ্রে নিয়ে আসা যাবে। বর্তমানে দেশে ৪৭টি আবহাওয়া কেন্দ্র রয়েছে, আগামীতে আরো ২০০টি অটোমেটিক ওয়েদার স্টেশন স্থাপন করা হবে।

এখন থেকে তিন দিনের স্থলে ১০ দিনের পূর্বাভাস দেওয়ার পাশাপাশি, দুর্যোগের দিনক্ষণ ও স্থায়িত্বকাল উল্লেখসহ আবহাওয়ার প্রতিঘন্টার অগ্রগতি তুলে ধরার কথা জানান আবহাওয়া অধিদফতরের পরিচালক।

তিনি বলেন, কোথায় কখন বৃষ্টি হবে, সেই বৃষ্টি ভারী নাকি মাঝারি হবে, আদ্রতা কেমন থাকবেÑ তার সবই উল্লেখ থাকবে আবহাওয়া পূর্বাভাসে। প্রাকৃতিক দুর্যোগে সব ধরনের যোগাযোগ ব্যবস্থা ভেঙে পড়ার ক্ষেত্রে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইটের মাধ্যমে সারা দেশে তথ্য-উপাত্ত আদান-প্রদানে দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে স্যাটেলাইট কেন্দ্র স্থাপনের পরামর্শ দেন বিশেষজ্ঞরা। এ বিষয়ে তথ্য ও প্রযুক্তি বিশেষজ্ঞ সালাউদ্দীন সেলিম বলেন, যখন দুর্যোগ হয় তখন পুরো যোগাযোগ ব্যবস্থা বিকল হয়ে যায়। স্যাটেলাইটে যেহেতু ক্যাবলের কোনো ঝামেলা নেই তাই এটি আবহাওয়ার তথ্য পৌঁছে দেওয়ার ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে পারে।

তিনি বলেন, এই মুহূর্তে দেশের বিভিন্ন স্থানে স্যাটেলাইট কেন্দ্র স্থাপন করলে আবহাওয়াসহ বিভিন্ন জরুরি তথ্য দ্রুত পৌঁছে দেওয়া যাবে।

নিজস্ব স্যাটেলাইট ব্যবহার করে অঞ্চলভিত্তিক পরিবর্তনশীল আবহাওয়া পরিস্থিতি সরাসরি পেতে প্রয়োজনীয় উদ্যোগ নেওয়ার কথা জানান দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণসচিব মোহাম্মদ শাহ্ আলম।

তিনি বলেন, সারা দেশের হ্যাজার্ড ম্যাপ তৈরি করা হয়েছে এবং এর অ্যাকুরেসি ১০০ শতাংশ। এতে স্যাটেলাইট আমাদের সহায়তা করবে।

এসব তথ্য মুঠোফোনের অ্যাপসের মাধ্যমে সারা দেশের মানুষের কাছে দ্রুত পৌঁছে দেওয়া হবে বলেও জানান শাহ্ আলম।

"