হামলায় ছাত্রলীগ জড়িত থাকলে প্রমাণ দিন

কাদের

প্রকাশ : ০৭ আগস্ট ২০১৮, ০০:০০

নিজস্ব প্রতিবেদক

‘নিরাপদ সড়কের দাবিতে শিক্ষার্থীদের চলমান আন্দোলন এবং ওই আন্দোলন থেকে উদ্ভূত বিশৃঙ্খল পরিস্থিত এ মুহূর্তে নিয়ন্ত্রণে’ বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। আন্দোলনে সাংবাদিকদের ওপর হামলা-সংক্রান্ত বিষয়ে তিনি বলেন, ‘সাংবাদিকদের ওপর হামলা যদি কোনো ছাত্রলীগকর্মী করে থাকেন, এর প্রমাণ দিন। তালিকাসহ আমি বিচার করব। গতকাল সোমবার আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার ধানমন্ডির রাজনৈতিক কার্যালয়ে দলের পক্ষে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন। ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আহ্বানে সাড়া দিয়ে, শিক্ষকদের কথা শুনে শিক্ষার্থীরা ঘরে ফিরতে শুরু করেছে। এ মুহূর্তে কোনো আন্দোলনকারী রাস্তায় নেই। আন্দোলনে অনুপ্রবেশকারীরা ঢুকেছে। তারা রাস্তায় আছে। তারাও বিতাড়িত হবে। যখনই মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ও আমীর খসরু মাহমুদ উসকানিমূলক বক্তব্য এবং প্রকাশ্যে সমর্থন জানিয়েছেন তখনই এটা দিবালোকের মতো সত্য হয়েছে যে, আন্দোলনকে নিজেদের স্বার্থে এবং ছাত্রছাত্রীদের অরাজনৈতিক আন্দোলনের মধ্যে অনুপ্রবেশ ঘটিয়ে নোংরা রাজনীতি করছে বিএনপি, সরকার হটানোর আন্দোলন করছেÑ এটা এখন ক্রিস্টাল ক্লিয়ার।’

এ সময় একটি ছবি দেখিয়ে তিনি বলেন, ‘গতকালকের যে আন্দোলন, এটা ছাত্রছাত্রীদের ছিল না। আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরীর আহ্বানটি সারা দেশে তারা সিক্রেটলি প্রচার করেছে। এ কারণে সারাদেশ থেকে বিএনপি-জামায়াতের ক্যাডাররা ঢাকায় আসে। ছাত্রছাত্রীদের আন্দোলনে গতি পাচ্ছে না, তারা ঘরে ফিরে যাচ্ছে, ঠিক সেই মুহূর্তে তাদের ক্যাডাররা অস্ত্র নিয়ে শাহবাগ থেকে সায়েন্স ল্যাব পর্যন্ত, সায়েন্স ল্যাব থেকে বিজিবি গেট পর্যন্ত অতপর আওয়ামী লীগ অফিস টার্গেট করে তারা।’

কাদের বলেন, ‘আমি বিশ্বাস করি না সাধারণ শিক্ষার্থীরা অস্ত্র নিয়ে রাস্তায় নেমেছে। কোমলমতি শিক্ষার্থীদের কোনো রাজনৈতিক উদ্দেশ্য নেই, আওয়ামী লীগের অফিসে হামলা করার কোনো এজেন্ডা নেই। এই এজেন্ডা তাদের, যারা এই আন্দোলনের ওপর ভর করে রাজনৈতিক দাবা খেলায় মেতে উঠেছে।’

সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের সভাপতিম-লীর সদস্য আবদুর রাজ্জাক, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক দীপু মনি, জাহাঙ্গীর কবির নানক, সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন, এ কে এম এনামুল হক শামীম, খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল, দফতর সম্পাদক আবদুস সোবহান গোলাপ প্রমুখ।

"