প্রচারে সরগরম তিন সিটি

বিরামহীন প্রচারে সাদিক আব্দুল্লাহ

প্রকাশ : ২১ জুলাই ২০১৮, ০০:০০

বরিশাল প্রতিনিধি

বরিশাল, সিলেট ও রাজশাহী সিটিতে চলছে প্রার্থীদের বিরামহীন প্রচারণা। সিলেটে জামায়াত প্রার্থীর সরে দাঁড়ানোর গুঞ্জন উঠেছে। অন্যদিকে, রাজশাহী সিটি নির্বাচন সুষ্ঠু হবে কি না- সে বিষয়ে বিএনপি প্রার্থীর সংশয়ের জবাবে আওয়ামী লীগ প্রার্থী বলেছেন, যাদের জনভিত্তি নেই, তারাই এ ধরনের অপপ্রচার করে।

 

বরিশাল সিটি করপোরেশন নির্বাচন সামনে রেখে নগরবাসীকে উন্নয়নের নানা প্রতিশ্রুতি দিয়ে ভোট চাইছেন প্রার্থীরা। সকাল থেকে রাত অবধি চলছে বিরামহীন প্রচারণা। সাত মেয়র প্রার্থীর বাইরে ভোটারদের দ্বারে দ্বারে যাচ্ছেন কাউন্সিলর ও সংরক্ষিত আসনের কাউন্সিলর প্রার্থীরা।

প্রচারণায় এগিয়ে আছেন আওয়ামী লীগের প্রার্থী সেরনিয়াবাত সাদিক আব্দুল্লাহ। জোর কদমে চলছে তার প্রচারণা। প্রতিদিন তিন থেকে চারটি উঠান বৈঠকের পাশাপাশি গণসংযোগ করছেন। ভোটারদের বেশ সাড়া পাচ্ছেন বলেও জানান তিনি। গণসংযোগকালে তিনি বলেন ধানের শীষের প্রার্থী মজিবর রহমান সরোয়ার নির্বাচনে সুষ্ঠু ভোট নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন। কিন্তু তিনি নিজেই তার দলের মধ্যে গ্রহণযোগ্যতা হারিয়ে ফেলেছেন। এখন দিশেহারা হয়ে প্রতিপক্ষের ওপর দোষ চাপিয়ে নিজের সমস্যা আড়াল করার চেষ্ট করছেন। সাদিক আব্দুল্লাহ বলেন, বরিশালে সুষ্ঠু ও সুন্দরভাবে নির্বাচন হবে এখানে কোনো ভোটারের ভয়ের কোনো কারণ নেই। আমি ভোটের রাজনীতিতে বিশ্বাস করি, ভোট চুরির রাজনীতিতে নয়। অতীতে তারাই মানুষের ভোটের অধিকার হরণ করেছে।

সকাল থেকে দুপুর আর দুপুর থেকে রাত পর্যন্ত গণসংযোগের বিরাম নেই। বিকেল থেকে রাত পর্যন্ত ৮, ১৪, ২২ নং ওয়ার্ডসহ বিভিন্ন ওয়ার্ডে গণসংযোগ ও উঠান বৈঠক করেন। এদিকে, বরিশাল সিটি কপোরেশন নির্বাচনে গতকাল শুক্রবার গণসংযোগ করেছেন বিএনপি মনোনীত প্রার্থী অ্যাডভোকেট মজিবর রহমান সরোয়ার। বিএনপির মেয়র প্রার্থী নগরীর পলাশপুর থেকে গণসংযোগ শুরু করেন। তিনি বলেন, জোর প্রচারণা চলছে এবং তিনি বিজয়ী হবেন বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

অপরদিকে, জাতীয় পার্টির লাঙল প্রতীকের মেয়র প্রার্থী ইকবাল হোসেন তাপস গণসংযোগকালে নগরীর কাশিপুরে গংসংযোগ কালে বলেন, ‘বরিশালে ভোট চুরির কোনো সুযোগ আমরা দিতে দেব না। আর ডিজিটাল চুরির চিন্তা করবেন না।’ তাপস আরো বলেন, বিগত সিটি নির্বাচনে দুটি দলের মধ্যে প্রতিদ্বন্দ্বিতা হয়েছে। এবার জাতীয় পার্টি মাঠে। তাই ফাঁকা মাঠ ভেবে ভোট জালিয়াতির সুযোগ কেউ নেওয়ার চেষ্টা করলে তা ভুল হবে। তিনি নগরীর হাসপাতাল সড়ক, নতুন বাজার, অমৃত লাল দে মহাবিদ্যালয়, চৌহুতপুর, কাশীপুর, দিয়াপড়াসহ নগরীর বিভিন্ন এলাকায় লিফলেট বিতরণ করাসহ গণসংযোগ করেন।

স্বতন্ত্র প্রার্থীর ইশতেহার ঘোষণা

দুর্নীতি ও মাদকমুক্ত মহানগরী গড়ে তোলাসহ ৩১ দফা ইশতেহার ঘোষণা করেছেন বরিশাল সিটি করপোরেশন (বিসিসি) নির্বাচনে অংশগ্রহণকারী একমাত্র স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী মো. বশির আহমেদ ঝুনু। গতকাল শুক্রবার দুপুর ১২ টায় ইশতেহার ঘোষণার বিষয়টি নিশ্চিত করেন তিনি। এর আগে নগরের দক্ষিণ আলেকান্দার শহীদ আলতাফ মেমোরিয়াল স্কুলসংলগ্ন তার নিজ বাসভবনে বসে এ ইশতেহার ঘোষণা করেন। ইশতেহারে তিনি, নগরের ড্রেনেজ ব্যবস্থার উন্নয়ন করা, ভরাট খালগুলো পুনঃখনন ও দখল হওয়া খাল পুনরুদ্ধার করা, হকারদের জন্য পৃথক ৪টি হকার্স মার্কেট তৈরি করা, নগরের রাস্তাঘাটের উন্নয়ন করা, আধুনিক ডাস্টবিন স্থাপন এবং বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় আধুনিক পরিশোধনাগার স্থাপন, নারীদের জন্য প্রতিটি ওয়ার্ডে আলাদা টয়লেট স্থাপন, কর্মজীবী নারীদের জন্য হোস্টেল, ইমাম, মুয়াজ্জেম, ধর্মযাজক ও পুরোহিতদের জন্য সিটি ভাতা প্রদানের ব্যবস্থা চালু করা, স্কুল-কলেজের ছাত্রছাত্রীদের যাতায়াতের জন্য স্টুডেন্ট সার্ভিস চালু করা, পথশিশুদের উন্নয়নে পথশিশু ট্রাস্ট গঠন, মেধাবী শিক্ষার্থীদের জন্য উপবৃত্তি প্রদান করা, রাজনৈতিক সহাবস্থান অটুট রাখাসহ ৩১ টি দফার কথা উল্লেখ করেন।

"