বিমানবন্দরে আটক নওয়াজ শরিফ

প্রকাশ : ১৪ জুলাই ২০১৮, ০০:০০

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও মুসলিম লীগ (পিএমএলএন) নেতা নওয়াজ শরিফ ও তার মেয়ে মরিয়ম নওয়াজকে আটক করা হয়েছে। গতকাল শুক্রবার রাতে লাহোরের আল্লামা ইকবাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে তাদের আটক করা হয়। তাদের পাসপোর্টও জব্দ করা হয়েছে। এর আগে গত বৃহস্পতিবার লন্ডন থেকে একটি বিমানে করে রওনা দেন তারা। যাত্রাবিরতির জন্য আবুধাবিতে নামেন। সেখান থেকে ইতিহাদ এয়ারওয়েজের ইওয়াই ২৪৩ ফ্লাইটে লাহোরের আল্লামা ইকবাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে আসেন। সেখানে পৌঁছামাত্র তাদের গ্রেফতার করা হয়। নওয়াজ শরিফকে অভ্যর্থনা জানাতে হাজার হাজার সমর্থক বিমানবন্দরে উপস্থিত ছিলেন। এর আগে নওয়াজের আগমনের কারণে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি হতে পারে আশঙ্কায় দলের শ শ নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে জানা গেছে।

গত ৬ জুলাই লন্ডনে চারটি বিলাসবহুল ফ্ল্যাটের মালিকানা নিয়ে দুর্নীতির দায়ে নওয়াজ শরিফকে ১০ বছরের কারাদন্ডাদেশ দেন আদালত। একই সঙ্গে তার মেয়ে মরিয়ম নওয়াজকে সাত বছর ও মরিয়মের স্বামী ক্যাপ্টেন সফদারকে এক বছরের কারাদন্ড দেওয়া হয়। পাকিস্তানের অ্যাকাউন্টেবিলিটি কোর্ট ওই রায় ঘোষণা করেন। কারাদন্ডাদেশের পাশাপাশি নওয়াজকে ৮০ লাখ ব্রিটিশ পাউন্ড ও মরিয়মকে ২০ লাখ ব্রিটিশ পাউন্ড জরিমানা করা হয়। ক্যাপ্টেন সফদার গ্রেফতার হয়ে এখন কারাগারে।

গত বুধবার লন্ডনে নওয়াজ শরিফ তার দল পাকিস্তান মুসলিম লিগ-নওয়াজ (পিএমএল-এন) দলের সমর্থকদের উদ্দেশে বলেন, ‘একটা সময় ছিল যখন আমরা বলতাম, রাষ্ট্রের ভেতর আরেক রাষ্ট্র। এখন সেটিকে বলা যায়Ñরাষ্ট্রের ওপর আরেক রাষ্ট্র। কারাগারের লৌহকপাট চোখের সামনে দেখতে পেলেও আমি পাকিস্তান যাচ্ছি।’

২০১৫ সালে পানামা পেপারস কেলেঙ্কারিতে নাম থাকায় তিনবারের প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফকে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী পদ থেকে সরে যেতে হয়। দেশের সর্বোচ্চ আদালত তাকে অযোগ্য ঘোষণা করে। আদালত তাকে রাষ্ট্রীয় যেকোনো পদে আজীবন নিষিদ্ধ ঘোষণা করে। পরে আদালতের রায়ে দলীয় প্রধানের পদও ছাড়তে হয় নওয়াজকে। তাকে পাকিস্তানের সবচেয়ে জনপ্রিয় নেতাদের একজন বলে ধরা হয়, বিশেষ করে পাঞ্জাবে। পাকিস্তানের নির্বাচনে সবচেয়ে জনবহুল এই প্রদেশের গুরুত্ব অনেক বেশি।

অসুস্থ স্ত্রীর চিকিৎসার জন্য গত কয়েক মাস ধরে নওয়াজ ও মরিয়ম লন্ডনে বসবাস করছেন। তাদের অনুপস্থিতিতেই আদালত ওই রায় ঘোষণা করে। যদিও নওয়াজ ও তার পরিবার কোনো ধরনের দুর্নীতিতে জড়িত থাকার অভিযোগ অস্বীকার করে বলেছেন, দেশটির সেনাবাহিনী তাদের নির্বাচনে অংশ নেওয়া আটকাতেই এ ষড়যন্ত্র করেছে।

কিন্তু বর্তমানে ক্ষমতায় থাকা তার দল পাকিস্তান মুসলিম লিগ-নওয়াজ (পিএমএল) এর সমর্থকদের উজ্জীবিত করতেই তিনি গ্রেফতার হবেন জেনেও দেশে ফেরার ঝুঁকি নিয়েছেন।

তিনি জনগণকে রাস্তায় বেরিয়ে এসে প্রতিবাদ করার আহ্বান জানিয়েছেন।

"