সিটি নির্বাচন

গণসংযোগে ব্যস্ত প্রার্থীরা

প্রকাশ : ১২ জুলাই ২০১৮, ০০:০০

বরিশাল প্রতিনিধি

বরিশাল সিটি করপোরেশন নির্বাচনের প্রতীক বরাদ্দ পাওয়ার দ্বিতীয় দিন গতকাল বুধবারও ব্যস্ত সময় পার করছেন প্রার্থীরা। সকাল থেকেই নগরীর বিভিন্ন এলাকায় গণসংযোগ করেন আওয়ামী লীগ বিএনপিসহ সব মেয়র প্রার্থীরা। দ্বারে দ্বারে গিয়ে সাধারণ মানুষের কাছে ভোট ও দোয়া চাইছেন। সবার হাতে তুলে দিচ্ছেন লিফলেট ও প্রচারপত্র। নগরী জুড়ে চলছে মাইকিং। সিটির ছয় মেয়র ও ১২৯ কাউন্সিলর প্রার্থীর প্রচারণায় বরিশালে এখন চলছে নির্বাচনীর ভরা জোয়ার।

গতকাল সকাল ১১টায় নগরের জেল খানার মোড় এলাকা থেকে প্রচারণা শুরু করেন বিএনপি মনোনীত মেয়র প্রার্থী অ্যাডভোকেট মজিবর রহমান সরোয়ার। এ সময় তিনি সদর রোড, গীর্জা মহল্লাসহ বিভিন্ন এলাকায় লিফলেট বিতরণ করেন। গণসংযোগকালে সরোয়ার অভিযোগ করেন, আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থীর পক্ষে প্রচারণা চালাচ্ছেন তার বাবা, যিনি মন্ত্রীর পদমর্যাদা প্রাপ্ত।

এ দিকে নির্বাচনকে সামনে রেখে কর্মী সমর্থকদের নিয়ে আওয়ামী লীগের মনোনীত মেয়র প্রার্থী সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহ বিভিন্ন এলাকায় পোস্টার ও লিফলেট বিতরণ করেন। তারা সরকারের উন্নয়নের কথা তুলে ধরে নৌকায় ভোট চাচ্ছেন। সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহর মুখপাত্র গোলাম আব্বাস চৌধুরী দুলাল বলেন, নির্বাচন শতভাগ সুষ্ঠু হবে এবং সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহ বিপুল ভোটে জয়লাভ করবেন।

এ দিকে, সকাল থেকে নগরের পলাশপুর, বাজার রোড এলাকায় গণসংযোগ করেছেন জাতীয় পার্টির (এরশাদ) মনোনীত প্রার্থী ইকবাল হোসেন তাপস। তিনি জাতীয় পার্টির শাসনামলের উন্নয়নের কথা তুলে ভোট চাইছেন। ইকবাল হোসেন তাপস বলেন, বরিশালের উন্নয়নে জাতীয় পার্টির অবদান রয়েছে। সুষ্ঠু নির্বাচন হলে জাতীয় পার্টির জয় হবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।

গণসংযোগ করেছেন সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্ট (বাসদ) এর মনোনীত প্রার্থী (মই) মার্কার ড. মনিষা চক্রবর্তী। সকাল থেকে বরিশাল নগরের বিভিন্ন এলাকা ঘুরে সাধারণ মানুষের হাতে লিফলেট তুলে দেন তিনি। বস্তি ও শ্রমিক এলাকাগুলোতে প্রভাবশালী দলের লোকজন হুমকি দিয়ে চলেছে বলে অভিযোগ করেছেন মনিষা চক্রবর্তী। একজন মন্ত্রীর পদমর্যাদা প্রাপ্ত ও দক্ষিণ বঙ্গের অন্যতম ক্ষমতাধর ব্যক্তি নগরীতে অবস্থান করে প্রচারণা করছেন বলেও অভিযোগ করেন।

অপরদিকে, গতকাল ১২টায় নগরীর সদররোডের অশ্বিনী কুমার টাউন হলের সামনে থেকে একটি মিছিল বের করে বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি মনোনীত মেয়র প্রার্থী (কাস্তে) অ্যাডভোকেট এ কে আজাদ। মিছিলটি বরিশাল নগরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে। অন্যদিকে ইসলামী আন্দোলন মনোনীত প্রার্থী ওবায়ইদুর রহমান মাহবুব বিকেল ৩টায় সাগরদী বাজার এলাকা থেকে গণসংযোগ শুরু করেন। তিনি আসর বাদ একটি পথসভা করেন।

এ দিকে গতকাল বুধবার সকালে বরিশাল সিটি করপোরেশনের অ্যানেক্স ভবনে যান আবুল হাসানাত আবদুল্লাহ। পরে তিনি পুনরায় নগরীর সোহেল চত্বরের আওয়ামী লীগ অফিসে যান। তার বরিশালে অবস্থান ও প্রচার প্রচারণার অভিযোগ এনেছেন নির্বাচনে অংশ নেওয়া অন্য প্রার্থীরা।

নির্বাচনী প্রচারণার শুরুর প্রথম দিনেই নগরীর ১১নং ওয়ার্ড থেকে নির্বাচনী সহিংসতার খবর পাওয়া যায়। ওই ওয়ার্ডে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী কাউন্সিলর প্রার্থী মারুফ হোসেন জিয়ার কর্মী সমর্থকদের ওপর হামলা চালিয়েছে আওয়ামী লীগ সমর্থীত কাউন্সিলর প্রার্থী ও বর্তমান কাউন্সিলর মো. মজিবর রহমানের কর্মী সমর্থকরা।

"