জাতীয় নির্বাচনের তফসিল অক্টোবরে

প্রকাশ : ১১ জুলাই ২০১৮, ০০:০০

নিজস্ব প্রতিবেদক

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফসিল আসছে অক্টোবরের মধ্যে ঘোষণা করতে প্রস্তুতি নিচ্ছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। এ লক্ষ্যে সব ধরনের প্রস্তুতি শেষ করার জন্য মাঠ পর্যায়েও নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে রাজধানীর আগারগাঁওস্থ নির্বাচন ভবনে কমিশনের সভা শেষে সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান নির্বাচন কমিশন (ইসি) সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ।

আসন্ন তিন সিটির (রাজশাহী, সিলেট ও বরিশাল) নির্বাচনে ইভিএম ব্যবহারের সিদ্ধান্তের কথাও জানান ইসি সচিব। তিনি বলেন, বরিশালে ১০টি, সিলেট ও রাজশাহীতে ২টি করে কেন্দ্রে ইভিএম ব্যবহার করা হবে। প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) খান মো. নুরুল হুদার সভাপতিত্বে এ কমিশন সভা হয়। এতে উপস্থিত ছিলেন চার নির্বাচন কমিশনার, কমিশন সচিবসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা। পরে ব্রিফিংয়ে ইসি সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ জানান, সভায় একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ভোটার তালিকা নিয়ে আলোচনা হয়েছে। সেখানে আগামী অক্টোবরের শেষের দিকে জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা হতে পারে। এর আগেই যাতে ভোটার তালিকা ও ভোটার তালিকার সিডি প্রস্তুত থাকে সেজন্য নির্বাচন কমিশনারগণ সংশ্লিষ্টদের নির্দেশনা দিয়েছেন।

সংসদ নির্বাচনের সম্ভাব্য সময় চলে আসায় চলতি বছরের হালনাগাদ ভোটার তালিকার কার্যক্রম হাতে নেওয়া হবে না উল্লেখ করে সচিব বলেন, ২০১৮ সালের ভোটার তালিকা হালনাগাদ সম্পন্ন হয়েছে। সর্বশেষ হালনাগাদ ভোটার তালিকার ওপর নির্ভর করেই আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন হবে। যারা বিদেশে থাকেন এবং যাদের ১৮ বছর পূর্ণ হয়েছে এসব নাগরিক চাইলে কমিশনের সঙ্গে যোগাযোগ করে তাদের নাম ভোটার তালিকায় উঠাতে পারবেন। কারণ এটা চলমান প্রক্রিয়া। তবে আমাদের আলাদাভাবে ভোটার কার্যক্রম হাতে নেওয়ার কোনো প্রয়োজন নেই।

তফসিলের আগে সম্পূরক তালিকা প্রকাশ করা হবে কি না জানতে চাইলে সচিব বলেন, আমরা ভোটার তালিকার খসড়া প্রকাশ করেছি। চূড়ান্ত ভোটার তালিকা সিডি তৈরির প্রস্তুতি চলছে। আমরা আশা করি, তফসিল ঘোষণার আগেই সব প্রক্রিয়া সম্পন্ন হবে। এ ছাড়া একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নিয়োগ আনসার সদস্যদের দুই দিনের প্রশিক্ষণ দেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে।

সচিব জানান, প্রতি বছরের ১ মার্চ জাতীয় ভোটার দিবস পালনের জন্য সরকার অনুমোদন দিয়েছে; ২০১৯ সাল থেকে তা পালন করা হবে। এ দিবসটি জাঁকজমকপূর্ণভাবে পালনের জন্য সব প্রস্তুতি থাকবে কমিশনের। এই দিবসটি উদ্যাপনের জন্য বিভাগীয়, জেলা ও উপজেলা কমিটি গঠন করা হয়েছে। এখন থেকে এই কমিটি কার্যক্রম শুরু করবে।

সভায় হিজড়া জনগোষ্ঠীকে তৃতীয় লিঙ্গ হিসেবে ভোটার তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করার সিদ্ধান্ত হয়েছে বলে জানান ইসি সচিব। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, বিদ্যমান ভোটার তালিকায় তারা হয় পুরুষ না হয় নারী ভোটার হিসেবে অন্তর্ভুক্ত আছে। এই মুহূর্তে আমরা কোনো সিদ্ধান্ত গ্রহণ করব না, আলাদা করব না। তবে কেউ যদি আবেদন করেন তবে আমরা তাকে হিজড়া ভোটার হিসেবে অন্তর্ভুক্ত করব। তবে আগামী বছর যখন ভোটার তালিকা হালনাগাদ করা হবে তখন থেকেই হিজড়া জনগোষ্ঠীকে তৃতীয় লিঙ্গ হিসেবে ভোটার তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করব।

"