ফিফার পেজে বাংলাদেশের ফুটবল উন্মাদনা

প্রকাশ : ১০ জুলাই ২০১৮, ০০:০০

ক্রীড়া ডেস্ক

ফিফা ফুটবল বিশ্বকাপে খেলার স্বপ্নটা কখনোই পূরণ হয়নি বাংলাদেশের। স্বপ্ন সত্যি হয়ে কবে ধরে দেবে সেটারও কোনো হদিস সেই। তবে সাম্প্রতিক কয়েকটা বিশ্বকাপে না থেকেও আছে বাংলাদেশের উপস্থিতি। বিশ্বকাপের জার্সি বানিয়ে গত আসরে তো বরাবরই শিরোনামে ছিল বাংলাদেশ। অবশ্য বিশ্বকাপে খেলতে না পারলেও বৈশ্বিক এই আসর নিয়ে বাংলাদেশে উন্মাদনার কমতি নেই।

বিশ্বকাপে নিজেদের দল না থাকলে যে রোমাঞ্চ থাকবে না এমন কোনো কথাও নেই। বিশ্বকাপ জ্বরে ভুগছে গোটা দুনিয়া। ব্যতিক্রম নয় বাংলাদেশও। কিন্তু দেশের ফুটবলপ্রেমীদের এই উন্মাদনা অনেকটাই আড়ালে থেকে যাচ্ছিল বিশ্ববাসীর কাছে।

অবশেষে বাংলাদেশকে সারা দুনিয়ার সামনে নতুন করে উপস্থাপন করল বিশ্ব ফুটবলের অভিভাবক সংস্থা ফিফা। কাল ফিফা তাদের ভেরিফাইড অফিসিয়াল ফেসবুক পেজে বাংলাদেশের ফুটবল উন্মাদনার ছবি পোস্ট করেছে। তাতে লেখা ‘কখনোই ফিফা বিশ্বকাপ খেলার যোগ্যতা অর্জন করতে না পারা সত্ত্বেও বিশ্বকাপ জ্বরে কাঁপছে বাংলাদেশ। এ দেশে অনেক ফুটবলপ্রেমী সমর্থক রয়েছে।’

বাংলাদেশিরা যে ক্রীড়ামোদি জাতি সেটা এর আগেও বহুবার প্রমাণ করেছেন দেশের মানুষ। এবার বাঙালিদের ফুটবলপ্রেম বিশ্ববাসীর কাছে নতুন করে সামনে নিয়ে এলো ফিফা। ফিফা বাংলাদেশের ফুটবল উন্মাদনার যে ছবি পোস্ট করেছে তা এরই মধ্যে ছড়িয়ে পড়েছে দেশ-বিদেশের সব খানেই। এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত ৫২ হাজার লাইক ও ৩ হাজার ৩০০ মন্তব্য এবং ১৪ হাজার বার পোস্টটি শেয়ার হয়েছে।

ফিফার পেজে পোস্ট করা ওইসব ছবিতে এক ব্রাজিলিয়ান সমর্থক মন্তব্য করেছেন, ‘আমি বিস্মিত বাংলাদেশের সমর্থকদের দেখে। ধন্যবাদ সবাইকে, যারা বাংলাদেশে থেকেও ব্রাজিলকে মনেপ্রাণে সমর্থন করছেন। আশার করছি ২০২২ সালে কাতারে দেখা হবে। অথবা অন্তত বাংলাদেশ ও ব্রাজিল একটা প্রীতি ম্যাচেও দেখা হতে পারে।’

বাংলাদেশ জাতীয় ফুটবলে বিশ্বকে না চেনাতে পারলেও ফুটবল উন্মাদনা এখন বিশ্বজোড়া খ্যাতি। কদিন আগে আর্জেন্টাইন তারকা ফুটবলার লিওনেল মেসির ফেসবুক পেজে বাংলাদেশি সমর্থকদের নিয়ে একটি ছবি পোস্ট করেছিলেন। তাতে মেসি বাংলাদেশের সমর্থকদের ধন্যবাদ জানান।

বাংলাদেশের ফুটবল উন্মাদনার কথা শুনে নিজেদের আর ধরে রাখতে পারেননি একদল ব্রাজিলিয়ান সাংবাদিক। বাংলাদেশের ফুটবলপ্রেমীদের উন্মাদানা স্বচক্ষে দেখতে বাংলাদেশেও ঘুরে গেছেন তারা। আর্জেন্টিনা জাতীয় টেলিভিশনে তো ৩ মিনিটের একটি প্রমাণ্য চিত্রই সম্প্রচার করেছিল বাংলাদেশের মানুষের ফুটবল উন্মাদনা নিয়ে।

"