প্রবাসীদের ভোটার করতে ব্যাপক কর্মযজ্ঞ ইসিতে

* বিদেশে বাংলাদেশি রাষ্ট্রদূতদের নিয়ে সেমিনার কাল * থাকছেন আওয়ামী লীগ, বিএনপি ও জাপার প্রতিনিধি * অগ্রাধিকার তালিকায় সৌদি আরব

প্রকাশ : ১৮ এপ্রিল ২০১৮, ০০:০০

গাজী শাহনেওয়াজ

প্রবাসী বাঙালিদের ভোটার করতে ব্যাপক কর্মযজ্ঞ হাতে নিয়েছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। এই লক্ষ্যে প্রবাসী অধ্যুষিত রাষ্ট্রের বাংলাদেশি দূতাবাসগুলোর রাষ্ট্রদূত ও হাইকমিশনার এবং রাজনৈতিক নেতাসহ সংশ্লিষ্টদের নিয়ে সেমিনারের আয়োজন চলছে ইসিজুড়ে। এর আগে ১৯৯৮ সালে দেশের উচ্চ আদালত প্রবাসী বাংলাদেশিদের ভোটাধিকার সংবিধান স্বীকৃত বলে ঘোষণা দেন। দীর্ঘ ১৯ বছরেও সেই ঘোষণা বাস্তবায়নের মুখ দেখেনি। যদিও দেশের অর্থনীতিতে অবদান রাখা প্রবাসী বাঙালিদের ভোটার করতে নানা উদ্যোগও নেওয়া হয়। কিন্তু এতে ঘাটতি থাকায় তা আর সামনের দিকে এগোয়নি। তবে বর্তমান খান মো নুরুল হুদা কমিশন গত ফেব্রুয়ারিতে দায়িত্বে এসে প্রবাসীদের ভোটার করার সুপরিকল্পিত পদক্ষেপ নেয়।

এরই অংশ হিসেবে এই সেমিনারের আয়োজন। আগামীকাল বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৯টায় রাজধানীর সোনারগাঁও হোটেলে এই সেমিনার হবে। সেমিনারে যুক্তরাষ্ট্র, ইতালি ও সৌদি আরবে থাকা বাংলাদেশি রাষ্ট্রদূতরা অংশ নিচ্ছেন। এই উদ্যোগে প্রবাসীদের দীর্ঘদিনের পুঞ্জীভূত ক্ষোভের অবসান হবে বলে আশা সংশ্লিষ্ট নীতিনির্ধারকদের।

এতে প্রধানমন্ত্রীর অর্থবিষয়ক উপদেষ্টা ড. মসিউর রহমান, সংসদের বাইরে থাকা বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান এবং দশম জাতীয় সংসদের বিরোধী দল জাতীয় পার্টির কো-চেয়ারম্যান জি এম কাদেরের অংশ নেওয়ার কথা রয়েছে। এতে প্রধান অতিথি থাকবেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) খান মো নুরুল হুদা। বিশেষ অতিথি থাকছেন চার নির্বাচন কমিশনার। সভাপতিত্ব করবেন ইসি সচিব। এছাড়া বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের প্রতিনিধি এবং প্রবাসীদের নিয়ে কাজ করা বিভিন্ন সংগঠনের প্রতিনিধিরাও সেমিনারে থাকছেন।

এ প্রসঙ্গে কমিশনের ভারপ্রাপ্ত সচিব হেলালুদ্দীন আহমেদ বলেন, প্রবাসীদের স্ব স্ব কর্মস্থলেই ভোটার করার বিষয়ে নীতিগত সিদ্ধান্ত নিয়েছি। এজন্য রাজনৈতিক দল, বিভিন্ন মন্ত্রণালয়, সুশীল সমাজ ও ইসির অংশীজনদের নিয়ে আগামী ১৯ এপ্রিল বৃহস্পতিবার সেমিনারের আয়োজন করা হয়েছে।

জাতীয় পরিচয়পত্র নিবন্ধন অনুবিভাগের মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোহাম্মদ সাইদুল ইসলাম বলেন, বাংলাদেশের অর্থনীতির মূল চালিকা শক্তির অন্যতম হচ্ছে রেমিট্যান্স। প্রবাসী বাংলাদেশি নাগরিকরা তাদের কষ্টার্জিত অর্থ দেশে পাঠান কিন্তু জাতীয় পরিচয়পত্র না থাকায় অনেকেই বিদেশে নানা সমস্যায় পড়েন। দেশে ফিরেও নানা সেবা গ্রহণের ক্ষেত্রে বিড়ম্বনার সম্মুখীন হন। প্রবাসীদের এ সমস্যা থেকে পরিত্রাণের জন্য কর্মপন্থা নির্ধারণের জন্য সেমিনারের আয়োজন করা হয়েছে। তিনি বলেন, কমিশনের চিন্তা রয়েছে মধ্যপ্রাচ্য, ইউরোপ এবং আমেরিকা অঞ্চলের তিনটি দেশকে প্রাথমিক অবস্থায় নির্বাচন করে বৈধ কাগজপত্রধারী নাগরিকদের ভোটার করা। পরে কমিশনের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী অন্যদের তালিকাভুক্ত করা হবে।

এদিকে স্বরাষ্ট্র, পররাষ্ট্র, প্রবাসী ও বৈদেশিক কল্যাণ মন্ত্রণালয়, পাসপোর্ট অফিস, বোয়েসেল, রামরু, প্রবাসী কল্যাণ ব্যাংক, এনজিও প্রতিনিধি, প্রবাসে কর্মরত প্রথম সচিব ও কনসাল জেনারেলসহ কোনো পক্ষই যাতে দায় এড়াতে না পারে মূলত সে কারণেই এই সেমিনারের আয়োজন করা হচ্ছে। পাশাপাশি পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে সৌদি আরব, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, ইতালি, কুয়েত, সিঙ্গাপুর ও মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশি দূতাবাসগুলোর রাষ্ট্রদূত ও হাইকমিশনারদের সেমিনারে উপস্থিতি নিশ্চিতে সমন্বয় করছে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। ইসি সচিব চিঠি দিয়ে পররাষ্ট্র সচিবকে এ বিষয়ে সমন্বয় করার অনুরোধ জানিয়েছেন। তবে সৌদি আরব, ইতালি ও যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত ছাড়া বাকিরা সেমিনারে অংশ নিতে পারছেন না বলে কমিশনকে জানিয়ে দিয়েছেন তারা।

প্রসঙ্গত, বিশ্বের ১৫৭টি দেশে কোটির ওপরে প্রবাসী বাংলাদেশি রয়েছেন। এই দেশগুলো মধ্যে জনবহুল তিনটি দেশ অর্থাৎ সৌদি আরব, সংযুক্ত আরব আমিরাত এবং মালয়েশিয়ায় গিয়ে বাংলাদেশি দূতাবাসের সহায়তায় ছবিসহ ভোটার তালিকায় নাম উঠানোর সিদ্ধান্ত ছিল। কিন্তু পরে এতে কাঁটছাঁট করা হয়েছে। বিদ্যমান প্রস্তাবে শুধু সৌদি আরবকে অগ্রাধিকার তালিকায় রাখা হয়েছে। এই দেশে চারটি টেকনিক্যাল টিম পাঠিয়ে কর্মস্থলেই প্রবাসীদের ভোটার করা হবে। এর আগে এ তালিকায় ছিল সংযুক্ত আরব আমিরাত এবং মালয়েশিয়া। এজন্য আগামী ২০১৭-১৮ সংশোধিত অর্থবছরের বাজেটে বরাদ্দ রাখতে অনুরোধ জানানো হয়েছে। ধাপে ধাপে কাতার, মালয়েশিয়া, মধ্যপাচ্য, ইউরোপ ও আমেরিকা অঞ্চলে কমিশনের টেকনিক্যাল টিম পাঠিয়ে সেখানে বসবাসরতদের নাম ভোটার তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করা হবে। তবে বৈধ কাগজপত্রধারী বাঙালিরা প্রথমে অগ্রাধিকার পাবেন।

"