কোটার আন্দোলন স্থগিত : আনন্দ মিছিল

প্রধানমন্ত্রীকে মাদার অব এডুকেশনে ভূষিত করলেন শিক্ষার্থীরা

প্রকাশ : ১৩ এপ্রিল ২০১৮, ০০:০০

ঢাবি প্রতিনিধি

কোটাপ্রথা বাতিলের ঘোষণা দেওয়ায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ‘মাদার অব এডুকেশন’ উপাধি দিয়েছেন কোটা সংস্কার দাবিতে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা। পাশাপাশি কোটা পদ্ধতি নিয়ে চলমান আন্দোলনও স্থগিত করে আনন্দ মিছিল করেছে সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ। গতকাল বৃহস্পতিবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) ছাত্র শিক্ষক কেন্দ্রের সামনে রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে সংবাদ সম্মেলনে এ ঘোষণা দেন তারা। আন্দোলনের প্রেক্ষিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গত বুধবার কোটা পদ্ধতিই বাতিলের ঘোষণা দেওয়ার পর নিজেদের অবস্থান জানাতে গতকাল সকাল পর্যন্ত সময় নিয়েছিলেন শিক্ষার্থীরা। এরপর এ সংবাদ সম্মেলন ডাকা হলো।

সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের আহ্বায়ক হাসান আল মামুন বলেন, সরকারি চাকরিতে কোটার বিষয়ে আমরা প্রধানমন্ত্রীর সিদ্ধান্ত মেনে নিয়েছি। তার বক্তব্যের প্রতি সম্মান জানিয়ে চলমান আন্দোলন স্থগিত করার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছি। গত বুধবার রাতে সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের নেতারা সবাই এ সিদ্ধান্ত নেন জানিয়ে হাসান আল মামুন বলেন, জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় থেকে প্রজ্ঞাপন জারি হওয়ার আগপর্যন্ত আমরা আন্দোলন স্থগিত রাখব। তিনি বলেন, প্রজ্ঞাপন জারি করার পর যদি বুঝি আমাদের ন্যায্য দাবি প্রত্যাশা অনুযায়ী পূরণ হয়নি, তখন আমরা কঠোর কর্মসূচি দিতে বাধ্য হব। তিনি আরো বলেন, আমরা প্রধানমন্ত্রী বরাবর ধন্যবাদ জ্ঞাপন করে একটি চিঠি দেব। যারা কোটার প্রাপ্য দাবিদার, তারা কোটা পাক, এটি আমরাও চাই। যেমন মুক্তিযোদ্ধা কোটা এবং প্রতিবন্ধী কোটার দাবিদারদের কোটা দিতে ওই চিঠিতে আহ্বান জানাব। তবে সেটি যেন প্রাপ্য পরিমাণযোগ্য হয়।

ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের যুগ্ম আহ্বায়ক মো. উজ্জ্বল মিয়া বলেন, প্রধানমন্ত্রীর সিদ্ধান্তের প্রতি আস্থা রেখে আমরা আমাদের আন্দোলন প্রত্যাহার করে নিচ্ছি। আমরা বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে শুধু একটিই অনুরোধ করবÑ কোনো মামলা দিয়ে আমাদের সাধারণ আন্দোলনকারীদের যেন হয়রানি করা না হয়।

গত কয়েক দিন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজু ভাস্কর্যের সামনে যেখানে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ দেখিয়ে আসছিলেন আন্দোলনকারীরা, সেখান থেকেই কিছুক্ষণের মধ্যে আন্দোলন প্রত্যাহারের আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেওয়া হলো।

উজ্জ্বল বলেন, আমরা আনন্দ মিছিল করব। প্রধানমন্ত্রীর জন্য ফুল নিয়ে যাব। আর ধানমন্ডি ৩২ নম্বরে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করব।

 

"