চট্টগ্রামে পিটিয়ে ও পাথর ছুঁড়ে নারীকে হত্যা, অবরোধ

প্রকাশ : ২১ জানুয়ারি ২০১৮, ০০:০০

চট্টগ্রাম ব্যুরো

চট্টগ্রামের পটিয়ায় সীমানা প্রাচীর নিয়ে বিরোধের জেরে জয়নাব বেগম (৪০) নামের এক নারীকে রড দিয়ে পিটিয়ে ও পাথর ছুঁড়ে হত্যা করা হয়েছে। গতকাল শনিবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে এই ঘটনা ঘটে। এর প্রতিবাদে স্থানীয়রা বিক্ষুব্ধ হয়ে চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়ক অবরোধ করে। এতে প্রায় দুই ঘণ্টা যান চলাচল বন্ধ ছিল।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, পটিয়া পৌরসভায় ভূমি অফিসের সামনে গাজী কনভেনশন সেন্টার নামের কমিউনিটি সেন্টার এবং চার তলা একটি আবাসিক ভবন পাশাপাশি। গাজী কনভেনশন সেন্টারের মালিক প্রবাসী গাজী মো. আসলাম। তার ভাই পটিয়া পৌর বিএনপির সিনিয়র সহসভাপতি গাজী মো. আবু তাহের কমিউনিটি সেন্টারের দেখভাল করেন। আর চার তলা ভবনের মালিক প্রবাসী নূরুল আলম। সম্প্রতি উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয়ে একটি আবেদন করেন তিনি। আবেদনে উল্লেখ ছিল, কমিউনিটি সেন্টারের সীমানা প্রাচীর ওই ভবনের দুই ফুট জায়গা দখল করে গড়ে তোলা হয়েছে। চার দিন আগে সেই সীমানা প্রাচীর ভেঙে দেওয়া হয়। এই ঘটনায় গাজী আসলামের আরেক ভাই গাজী গিয়াস বাদী হয়ে পটিয়া থানায় মামলা দায়ের করেন। এসব ঘটনার জের ধরে শনিবার সকাল ৭টা থেকে কমিউনিটি সেন্টারে শ শ তরুণ-যুবক জমায়েত হয়। তাদের উপস্থিতিতে কমিউনিটি সেন্টারের মালিকপক্ষ সেখানে সীমানা প্রাচীরের নির্মাণকাজ শুরু করেন। এ সময় নূরুল আলমের স্ত্রী জয়নাব বেগম প্রতিবাদ করলে ঝগড়া শুরু হয়। এক পর্যায়ে ব্যাপক হট্টগোলের মধ্যে দুর্বৃত্তরা তাদের বাসায় ঢুকে রড দিয়ে পিটিয়ে তাকে হত্যা করে। আবার একই সময়ে ভবনটি লক্ষ্য করে কমিউনিটি সেন্টার থেকে পাথর ছুঁড়তেও দেখেছেন স্থানীয়রা।

ঘটনার পর বেলা ১২টার দিকে পটিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সামনে চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কে ব্যারিকেড দেয় স্থানীয়রা। এতে মহাসড়কে যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যান চট্টগ্রামের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (দক্ষিণ) এ কে এম এমরান ভূঁইয়া। এরপর খুনিদের দ্রুত গ্রেফতারের আশ্বাস দিলে বেলা ২টার দিকে এলাকাবাসী ব্যারিকেড তুলে নেয়।

"