শীত আছেই সামান্য বেড়েছে তাপমাত্রা

প্রকাশ : ১১ জানুয়ারি ২০১৮, ০০:০০

নিজস্ব প্রতিবেদক

এক চিমটি করে তাপমাত্রা বাড়ছে। তবে শীতের কাঁপ-ধরানো গীত থেমে নেই। হাড়কাঁপানো হিমে এখনো কাঁপছে দেশের উত্তর, মধ্য ও দক্ষিণাঞ্চল। পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়া, দিনাজপুর, রাজশাহীর পর দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের জেলাগুলোয় শীতের তীব্রতা তুলনামূলক বেশি ছিল। গতকাল বুধবার সকালে দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল চুয়াডাঙ্গায় ৫ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এই জেলার আশপাশে যশোরে ৫ দশমিক ৬, সাতক্ষীরায় ৬ দশমিক ৫, বিভাগীয় শহর খুলনায় ৮ দশমিক ৪ ও কুষ্টিয়ার কুমারখালীতে ৮ দশমিক ৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস ছিল বলে জানায় আবহাওয়া অধিদফতর।

দুদিন আগে সর্বনিম্ন ২ দশমিক ৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রার রেকর্ড গড়া তেঁতুলিয়ায় শীতের তীব্রতা কিছুটা কমে এসেছে। গতকাল বুধবার সকালে এখানে তাপমাত্রা ছিল ৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস। গত মঙ্গলবার দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল দিনাজপুরে ৪ দশমিক ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস। গতকাল সেখানে ছিল ৭ দশমিক ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

রাজধানী ঢাকায় গত পরশু ১০ দশমিক ৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস থেকে বৃদ্ধি পেয়ে গত মঙ্গলবার সকাল ছিল ১২ দশমিক ১ ডিগ্রি সেলসিয়াস। তাপমাত্রা বৃদ্ধি পাওয়ার সম্ভাবনা থাকলেও আবহাওয়া অধিদফতরের পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, যশোর ও কুষ্টিয়া অঞ্চলসমূহের ওপর দিয়ে তীব্র শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে। ফরিদপুর, মাদারীপুর, টাঙ্গাইল, শ্রীমঙ্গল, সীতাকু-, কুমিল্লা, ফেনী অঞ্চলসহ রাজশাহী, রংপুর, বরিশাল ও ময়মনসিংহ বিভাগ এবং খুলনা বিভাগের অবশিষ্টাংশের ওপর দিয়ে মৃদু থেকে মাঝারি ধরনের শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে। মৃদু থেকে মাঝারি ধরনের শৈত্যপ্রবাহ সারা দেশে অব্যাহত থাকতে পারে। রাত ও দিনের তাপমাত্রা সামান্য বৃদ্ধি পেতে পারে। এ ছাড়া মধ্যরাত থেকে সকাল পর্যন্ত দেশের কোথাও কোথাও মাঝারি থেকে ঘন কুয়াশা পড়তে পারে। দেশের উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলে দুপুর পর্যন্ত এই কুয়াশা থাকতে পারে।

 

"