অফিসার ক্যাডেট নেবে বাংলাদেশ নৌবাহিনী

প্রকাশ | ১২ জুলাই ২০১৯, ০০:০০

চাকরি ডেস্ক

‘২০২০-এ’ ব্যাচে (দ্বিতীয় গ্রুপ) অফিসার ক্যাডেট নিয়োগ দেবে বাংলাদেশ নৌবাহিনী। ২৯ জুন কালের কণ্ঠের ৫ নম্বর পৃষ্ঠায় এসংক্রান্ত নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশিত হয়। আবেদন করতে হবে ১৮ জুলাইয়ের মধ্যে।

শারীরিক যোগ্যতা

বয়স : ১ জানুয়ারি ২০২০ তারিখে প্রার্থীর বয়স হতে হবে সাড়ে ১৬ থেকে ২১ বছর (সশস্ত্র বাহিনীতে কর্মরত প্রার্থীদের ক্ষেত্রে ১৮ থেকে ২৫ বছর)।

উচ্চতা : পুরুষের ক্ষেত্রে ১৬২.৫ সেন্টিমিটার অর্থাৎ ৫ ফুট ৪ ইঞ্চি এবং মহিলাদের ক্ষেত্রে ১৫৫ সেন্টিমিটার (৫ ফুট ১ ইঞ্চি)।

ওজন : পুরুষের ক্ষেত্রে ওজন ৫০ কেজি এবং মহিলাদের ক্ষেত্রে ৪৬ কেজি।

বুকের মাপ : পুরুষের ক্ষেত্রে স্বাভাবিক ৭৬ সেন্টিমিটার (৩০ ইঞ্চি) এবং সম্প্রসারিত ৮১ সেন্টিমিটার (৩২ ইঞ্চি) আর মহিলাদের ক্ষেত্রে স্বাভাবিক ৭১ সেন্টিমিটার (২৮ ইঞ্চি) এবং সম্প্রসারিত ৭৬ সেন্টিমিটার (৩০ ইঞ্চি)। প্রার্থীদেরকে অবিবাহিত হতে হবে।

শিক্ষাগত যোগ্যতা

১. মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক বিজ্ঞান বিভাগ/সমমান পরীক্ষায় ন্যূনতম জিপিএ ৪.৫০ পেয়ে উত্তীর্ণ হতে হবে। উভয় পরীক্ষায় গণিত ও পদার্থবিজ্ঞানে ন্যূনতম জিপিএ ৪.০০ প্রাপ্ত হতে হবে। অথবা,

২. ইংরেজি মাধ্যমের প্রার্থীদের জন্য ও-লেভেলের ৬টি বিষয়ের মধ্যে ন্যূনতম ৩টিতে এ-গ্রেড এবং ২টিতে বি-গ্রেড থাকতে হবে। এ-লেভেলের জন্য ন্যূনতম ২টি বিষয়ে বি-গ্রেড পেয়ে উত্তীর্ণ (উভয় পরীক্ষায় গণিত, পদার্থবিজ্ঞানসহ) হতে হবে।

৩. সশস্ত্র বাহিনীতে কর্মরত প্রার্থীদের নৌবাহিনীর উচ্চমান পরীক্ষা (এইচটি) বা সমমানের বাংলাদেশ সেনাবাহিনী বা বাংলাদেশ বিমানবাহিনী পরীক্ষায় উত্তীর্ণ। অথবা, মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক (বিজ্ঞান/বাণিজ্য বিভাগে)/সমমানের পরীক্ষায় ন্যূনতম জিপিএ ৪.৫০ পেয়ে উত্তীর্ণ। উভয় পরীক্ষায় গণিত ও পদার্থবিজ্ঞান এবং হিসাববিজ্ঞান, ব্যবসা সংগঠন ও ব্যবস্থাপনা বিষয়ে ন্যূনতম জিপিএ ৪.০০ প্রাপ্ত হতে হবে।

৪. শুধু সরবরাহ শাখার জন্য মাধ্যমিক (ব্যবসায় শিক্ষা শাখা) ও উচ্চ মাধ্যমিক (ব্যবসায় শিক্ষা শাখা) পরীক্ষায় ন্যূনতম জিপিএ ৪.৫০ পেয়ে উত্তীর্ণ হতে হবে। উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষায় হিসাববিজ্ঞান এবং ব্যবসা সংগঠন ও ব্যবস্থাপনা বিষয়ে ন্যূনতম জিপিএ ৪.০০ প্রাপ্ত হতে হবে। ২০১৯ সালের এইচএসসি পরীক্ষার্থীরাও আবেদন করতে পারবেন।

মনোনয়ন পদ্ধতি

প্রাথমিক স্বাস্থ্য পরীক্ষা ও প্রাথমিক সাক্ষাৎকার হবে ২৯ জুলাই থেকে ১ আগস্ট ২০১৯ তারিখে ঢাকা, চট্টগ্রাম ও খুলনা কেন্দ্রে। প্রাথমিক স্বাস্থ্য পরীক্ষা ও প্রাথমিক সাক্ষাৎকারে উপযুক্ত বিবেচিতদের বুদ্ধিমত্তা এবং ইংরেজি ও সাধারণ জ্ঞান বিষয়ে লিখিত পরীক্ষা ২ আগস্ট ২০১৯ তারিখে উল্লিখিত কেন্দ্রে অনুষ্ঠিত হবে। লিখিত পরীক্ষায় উত্তীর্ণ প্রার্থীদের আইএসএসবি কর্তৃক পরীক্ষা ও সাক্ষাৎকার আন্তঃবাহিনী নির্বাচন পর্ষদ (আইএসএসবি), ঢাকা সেনানিবাস, ঢাকায় অনুষ্ঠিত হবে। আইএসএসবি কর্তৃক নির্বাচিত প্রার্থীদের চূড়ান্ত স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য ঢাকা সেনানিবাসের বিএনএস হাজী মহসীনে উপস্থিত হতে হবে। চূড়ান্ত স্বাস্থ্য পরীক্ষায় উপযুক্ত প্রার্থীদের নৌ সদর কর্তৃক চূড়ান্ত মনোনয়ন পর্ষদ কার্যক্রম ডিসেম্বর ২০১৯-এর মধ্যে অনুষ্ঠিত হবে। চূড়ান্তভাবে মনোনীত প্রার্থীরা ডিসেম্বর ২০১৯-এর শেষ সপ্তাহে বাংলাদেশ নেভাল একাডেমি, পতেঙ্গা, চট্টগ্রামে অফিসার ক্যাডেট হিসেবে যোগদান করবেন।

প্রশিক্ষণ

বাংলাদেশ মিলিটারি একাডেমিতে ১০ সপ্তাহের প্রশিক্ষণসহ বাংলাদেশ নেভাল একাডেমিতে অফিসার ক্যাডেট হিসেবে ২৪ মাস এবং মিডশিপম্যান হিসেবে ১২ মাসসহ মোট ৩ বছর মেয়াদি আন্তর্জাতিক মানের প্রশিক্ষণ শেষে বাংলাদেশ নৌবাহিনীতে ‘সাব লেফটেন্যান্ট’ পদে নিয়মিত কমিশন প্রদান করা হবে।

বেতন-ভাতা ও অন্যান্য সুবিধা

সরকার কর্তৃক নির্ধারিত অন্যান্য সুবিধাসহ সশস্ত্র বাহিনীর বেতনক্রম অনুযায়ী অফিসার ক্যাডেটরা বেতন-ভাতা পাবেন। পরবর্তী সময়ে মিডশিপম্যান হিসেবে পদোন্নতির পর উচ্চতর স্কেলে বেতন পাবেন। প্রশিক্ষণের বিভিন্ন পর্যায়ে এবং কমিশন্ড পাওয়ার পর মেধাবী ক্যাডেট ও অফিসারদের প্রশিক্ষণের জন্য বিদেশ গমণের সুযোগ; দেশে-বিদেশে সরকারি খরচে বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে উচ্চতর প্রশিক্ষণের (এমএসসি, এমবিএ, কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং, এমএস ইত্যাদি) সুযোগ রয়েছে। অন্যদিকে জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনে বিদেশ ভ্রমণ ও আর্থিক সচ্ছলতা অর্জনের সুযোগ এবং নিরাপদ ও মনোরম পরিবেশে মানসম্মত সুসজ্জিত বাসস্থানের ব্যবস্থা রয়েছে। সামরিক হাসপাতালগুলোতে উন্নতমানের চিকিৎসা সুবিধা ও দুরারোগ্য ব্যাধিতে উন্নত চিকিৎসার প্রয়োজন হলে বিধি মোতাবেক নগদ অর্থ প্রদানসহ বিদেশে পাঠানোর ব্যবস্থা রয়েছে।

আবেদন প্রক্রিয়া

অনলাইনের পাশাপাশি ম্যানুয়ালিও আবেদন করা যাবে।

অনলাইনে আবেদন যেভাবে : www.joinnavy.mil.bd ওয়েবসাইটে প্রবেশ করে ডান পাশে APPLY NOW-এ ক্লিক করে আবেদন পদ্ধতি অনুসরণ করতে হবে। আবেদনের শেষ পর্যায়ে অনলাইন ব্যাংকিং, মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে পেমেন্ট করা যাবে। এ পর্যায়ে প্রার্থীরা যেকোনো ব্যাংক কর্তৃক প্রদত্ত ডেবিট/ক্রেডিট কার্ড এবং মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে চার্জ ছাড়া ৭০০ টাকা (অফেরতযোগ্য) আবেদন ফি প্রদান করতে পারবেন। আবেদন প্রক্রিয়ায় ওয়েবসাইটে বর্ণিত পদ্ধতি অনুসরণ করে আবেদন ফি প্রদান করা যাবে। এ ছাড়া বাংলাদেশের যেকোনো ব্যাংক থেকে ‘বিএন রিক্রুটমেন্ট ফান্ড, ট্রাস্ট ব্যাংক লিমিটেড, প্রিন্সিপাল ব্রাঞ্চ, ঢাকা’র অনুকূলে আবেদন ফি জমা দিয়ে পে-অর্ডার সংগ্রহ করে অনলাইনে আবেদন করা যাবে। আবেদন প্রক্রিয়া সম্পন্ন হওয়ার পর প্রার্থীকে সঙ্গে সঙ্গে প্রাথমিক সাক্ষাৎকারের জন্য কল-আপ লেটারসহ Form Commission-1A I Personal Information Form ডাউনলোড এবং প্রিন্ট করে পরবর্তী সময়ে প্রাথমিক সাক্ষাৎকারের সময় অন্যান্য প্রয়োজনীয় কাগজপত্র সঙ্গে আনতে হবে। ম্যানুয়াল আবেদন পদ্ধতির ক্ষেত্রে বাংলাদেশের যেকোনো ব্যাংক থেকে ‘বিএন রিক্রুটমেন্ট ফান্ড’ ট্রাস্ট ব্যাংক লিমিটেড, প্রিন্সিপাল ব্রাঞ্চ, ঢাকার অনুকূলে ৭০০ টাকার (অফেরতযোগ্য) পে-অর্ডার/মানিরিসিপ্ট সংগ্রহ করা যাবে। ম্যানুয়ালি ফরম পূরণের ক্ষেত্রে উক্ত পে-অর্ডার/মানিরিসিপ্ট দেখিয়ে আবেদনপত্র ফরম (Form Commission-1A) সংগ্রহ করা যাবে এবং পরবর্তী সময়ে ফরমের সঙ্গে পে-অর্ডার/মানিরিসিপ্টটি জমা দিতে হবে।

* নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি এই লিংকে : bit.ly/2J26o7L

সূত্র : কালের কণ্ঠ

 

"