অস্ট্রেলিয়ায় স্টেজ শোতে এন্ড্রু কিশোর

প্রকাশ : ২৫ জুন ২০১৯, ০০:০০

বিনোদন প্রতিবেদক

সহধর্মিণী লিপিকা এন্ড্রুুকে সঙ্গে নিয়ে এবার অস্ট্রেলিয়া যাচ্ছেন বাংলাদেশের প্লেব্যাক সম্রাট এন্ড্রু কিশোর। এন্ড্রু কিশোরের ছেলেমেয়ে দুজনই অস্ট্রেলিয়ায় থাকেন। তাই স্টেজ শোর পাশাপাশি এন্ড্রু কিশোর ও লিপিকা এন্ড্রু ছেলেমেয়ের সঙ্গে সময় কাটাবেন। আগামী জুলাইয়ের মাঝামাঝিতে এন্ড্রু কিশোর ও লিপিকা এন্ড্রু অস্ট্রেলিয়ার উদ্দেশে রওনা হবেন। সেখানে মেলবোর্ন, সিডনি ও এডিলেট সিটিতে তিনটি ভিন্ন শোতে সংগীত পরিবেশন করবেন এন্ড্রু কিশোর। বিষয়টি গতকাল নিশ্চিত করেছেন তিনি।

এন্ড্রু কিশোর বলেন, ‘যেহেতু আমার ছেলে-মেয়ে দুজনই অস্ট্রেলিয়া থাকে এবং সেখানেই আমার তিনটি স্টেজ শোতে অংশ নিতে হচ্ছে, তাই ভাবলাম এবার সঙ্গে স্ত্রীকে নিয়ে যাই। ছেলে-মেয়ের সঙ্গে ভালো কিছু সময়ও কাটবে। সময়টাও আশা করছি উপভোগ্য হয়ে উঠবে।’ এর আগে অস্ট্রেলিয়াতে তিনবার স্টেজ শোতে অংশগ্রহণ করেন এন্ড্রু কিশোর। এ নিয়ে চতুর্থবারের মতো তিনি সেখানে যাচ্ছেন। এন্ড্রু কিশোরের ছেলে জে এন্ড্রু পড়াশোনা করছেন সিডনিতে একটি ইউনিভার্সিটিতে। অন্যদিকে মেয়ে মিলিম এন্ড্রু বিয়ের পর অস্ট্রেলিয়ার মেলবোর্নে আছেন স্বামীর সঙ্গে। তিনিও সেখানে একটি বিশ^বিদ্যালয়ে পড়াশোনা করছেন।

গেল ২১ জুন ছিল বিশ^ সংগীত দিবস। শিল্পকলা একাডেমি দিনটিকে বিশেষভাবে উদ্যাপন করে। সংগীত দিবস উপলেক্ষ শিল্পকলা আয়োজিত বিশেষ অনুষ্ঠানে সরকারিভাবে সাংস্কৃতিক প্ল্যাটফরম থেকেই এন্ড্রু কিশোর দাওয়াত পেয়েছিলেন। এন্ড্রু কিশোর বলেন, ‘যেহেতু বেশ কয়েক দিন ধরে আমি জ¦রে আক্রান্ত। তাই দাওয়াত পাওয়ার পরও অসুস্থার কারণে বিশ^ সংগীত দিবস উপলক্ষে আয়োজিত বিশেষ অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করতে পারিনি। তবে অনেক জায়গায় সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে যে, আমি নাকি দাওয়াতই পাইনি, এটা ভুল তথ্য।’

এন্ড্রু কিশোরের সময়ে অনেক কিংবদন্তি সংগীতশিল্পীই পরবর্তীতে নিজেই সুরকার হিসেবে আবির্ভূত হয়েছেন। কিন্তু এ ব্যাপারে তার কোনোরকম আগ্রহ নেই। এন্ড্রু কিশোর বলেন, ‘আমি যখন এখানে প্লেব্যাক করা নিয় খুব ব্যস্ত। তখন আমার সঙ্গে শ্রদ্ধেয় আর ডি বর্মণ যোগাযোগ করেছিলেন ভারতে যাওয়ার জন্য, সেখানে গানে নিয়মিত হওয়ার জন্য। তিনি আমাকে সব ধরনের সুযোগ-সুবিধা দিয়েই গান করার প্রস্তাব দিয়েছিলেন। কিন্তু আমি দাদাকে বলেছিলাম, দাদা, আমি আমার দেশেই খুব ভালো আছি। দাদা, জবাবে বলেছিলেন, তুই বাঘের বাচ্চা। কথাটি এ কারণেই বললাম, আমি গান গাওয়া ছাড়া আর অন্য কোনো কিছু নিয়েই

কখনো ভাবতে চাইনি। এখনো না। আমি যেভাবে আছি,

খুব ভালো আছি।’

 

"