প্রথমবার একসঙ্গে তারা...

প্রকাশ | ১৪ মে ২০১৯, ০০:০০

বিনোদন প্রতিবেদক

দীর্ঘদিন ধরেই নাটক নির্মাণের সঙ্গে সম্পৃক্ত গুণী নাট্যনির্মাতা শান্তা রহমান। নির্মাণের পথে দীর্ঘদিনের পথচলায় তিনি সাদিয়া ইসলাম মৌ, তারিন জাহান ও নূসরাত ইমরোজ তিশাকে নিয়েই সবচেয়ে বেশি নাটক নির্মাণ করেছেন। মৌকে নিয়ে ‘অনুভব’, ‘সেল’, তারিনকে নিয়ে ‘নন্দিনী’, ‘পাওয়া না পাওয়া’, ‘জানা গন্তব্য অজানা পথ’, তিশাকে নিয়ে ‘হয়তোবা’, ‘স্বচ্ছ অন্ধকার’সহ আরো বেশকিছু নাটক নির্মাণ করেছেন তিনি; যা দর্শকের মধ্যে বেশ সাড়া ফেলে। গল্প নির্বাচনের ক্ষেত্রে শান্তা যেমন বেশ সচেতন, ঠিক তেমনি নির্মাণের ক্ষেত্রেও বেশ মনোযোগী থাকেন।

সেই ধারাবাহিকতায় এবার শান্তা রহমান প্রথমবারের মতো তানভীর, শ্যামল মাওলা ও স্নিগ্ধা মোমিনকে নিয়ে নির্মাণ করেছেন আগামী ঈদের জন্য বিশেষ নাটক ‘লাল রঙের খাম’। এরই মধ্যে রাজধানীর উত্তরার একটি শুটিং হাউসসহ আশপাশের এলাকায় নাটকটির নির্মাণকাজ শেষ হয়েছে। নাটকটির গল্প প্রসঙ্গে জানা যায়, রিজু সাজিদকে লাল রঙের একটি খাম দিয়ে যায়। যাওয়ার সময় রিজু বলে যান, এই খামের ভেতর চিঠিটি পড়লেই আপনার স্ত্রীর অতীত সম্পর্কে জানতে পারবেন। কিন্তু নানা কারণে সাজিদের চিঠিটা পড়াই হয়ে ওঠে না। একসময় চিঠিটি সাজিদের স্ত্রী অধরার হাতে গিয়ে পড়ে। এভাবেই এগিয়ে যায় নাটকের গল্প।

নাটকটিতে রিজু চরিত্রে শ্যামল, সাজিদ চরিত্রে তানভীর এবং অধরা চরিত্রে স্নিগ্ধা অভিনয় করেছেন। আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে অভিনয় করেছেন গুণী নাট্যাভিনেত্রী মুনিরা ইউসুফ মেমী। নাটকটি নির্মাণ প্রসঙ্গে শান্তা রহমান বলেন, ‘বেশ কিছুদিন বিরতি শেষে নাটক নির্মাণ করেছি। যারা এই নাটকে অভিনয় করেছেন তাদের প্রত্যেকেই ভীষণ আন্তরিক। প্রচন্ড গরমের মধ্যেও তারা সত্যিই ভীষণ কষ্ট করে শুটিং করেছেন। তানভীর, শ্যামল, স্নিগ্ধা এবং সর্বোপরি মেমী আপা অসাধারণ অভিনয় করেছেন। যদিওবা শ্যামল ছোট্ট একটি চরিত্রে অভিনয় করেছে কিন্তু তাতেই দর্শককে মুগ্ধ করার মতোই অভিনয় করেছে। তানভীর এবং স্নিগ্ধাকে দর্শক একেবারেই ভিন্নভাবে দেখবেন এ নাটকে। আমি খুব আশাবাদী কাজটি নিয়ে।’ শান্তা রহমান জানান, আগামী ঈদে একটি বেসরকারি টিভি চ্যানেলে নাটকটি প্রচারিত হবে।

এদিকে তানভীর এরই মধ্যে শেষ করেছেন ঈদের সাত পর্বের ধারাবাহিক নাটক ‘ঈদ বোনাস’-এর কাজ। গেল ‘মা দিবস’কে নিয়ে একটি বিশেষ তথ্যচিত্রে শ্যামল মাওলার অভিনয় দারুণ প্রশংসিত হয়েছে।

 

"