কলকাতায় আইয়ুব বাচ্চুর স্মরণে গাইলেন আঁখি

প্রকাশ : ১৩ জানুয়ারি ২০১৯, ০০:০০

বিনোদন প্রতবেদক
ama ami

কলকাতার তালতলা মাঠের যোধপুর পার্কের ‘উৎসব ২০১৯’ অনুষ্ঠানে গত ১০ জানুয়ারি ‘বাংলাদেশ দিবস’-এ একই মঞ্চে সংগীত পরিবেশন করেছেন আঁখি আলমগীর, অণিমা রায়, নীশিতা বড়–য়া ও স্বপ্নীল সজীব। প্রধান অতিথি ছিলেন কলকাতার পুরমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম। বিশেষ অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ দূতাবাসের শীর্ষ আধিকারিক কবি রবিউল হুসাইন। অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ‘উৎসব ২০১৯’-এর চেয়ারম্যান শ্রী শীর্ষেন্দু মুখোপাধ্যায়। উপস্থিত সব দর্শক শ্রোতা বাংলাদেশি শিল্পীদের কণ্ঠে মনোমুগ্ধকর গান শুনে মুগ্ধ হন। আঁখি আলমগীর, অণিমা রায়, নীশিতা বড়–য়া কিংবা স্বপ্নীল সজীব যে শুধু সংগীত পরিবেশনই করেছেন এমনটি নয়। গান গাইবার আগে নিজেদের গান দিয়ে বাংলাদেশের সংগীতাঙ্গনকে সমৃদ্ধ করার জন্য তাদের অনুষ্ঠানে সংবর্ধনাও দেওয়া হয়, যা দেশের বাইরে শিল্পীদের জন্য নতুন এক অভিজ্ঞতা। আঁখি বলেন, ‘সংগীত পরিবেশনের পাশাপাশি আমাদের উৎসব কমিটি যে সম্মান দিয়েছে, তা শিল্পী হিসেবে বড় প্রাপ্তি।’ গত বছর একই মঞ্চে আইয়ুব বাচ্চু ও আঁখি আলমগীর সংগীত পরিবেশন করেছিলেন। তাই গত ১০ জানুয়ারির অনুষ্ঠানে আঁখি আলমগীর নিজের গানগুলো টানা এক ঘণ্টারও বেশি সময় গাওয়ার পর একেবারে শেষপর্যায়ে আইয়ুব বাচ্চুর স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে গেয়ে ওঠেন ‘সেই তুমি কেন এত অচেনা হলে’। গানটি গাইতে গাইতে আঁখি আলমগীর মঞ্চে স্বপ্নীল সজীবকে ডেকে নেন। দুজনের কণ্ঠে সেই তুমি কেন এত অচেনা হলে গানটি তখন অন্য এক দ্যোতনার সৃষ্টি করে। সেই দ্যোতনায় চোখ ভিজে উঠে উপস্থিত সবার। নিজের চোখের পানি ধরে রাখতে পারেননি আঁখি ও স্বপ্নীলও। এবারের উৎসবে আইয়ুব বাচ্চু না থাকলেও তিনি সবার হৃদয়ে মিশে ছিলেন আঁখির গান গাওয়ার মধ্য দিয়ে যেন তাই প্রমাণ হলো। স্বপ্নীল সজীব বলেন, ‘বাচ্চু ভাই আমাদের দেশের সম্পদ। তিনি নেই, এ কথা আমি কখনোই বিশ্বাস করব না। তিনি আমাদের হৃদয়ে বেঁচে আছেন, বেঁচে থাকবেন।’ অনুষ্ঠানে তখন তোমার একুশ বছর, সোনাবন্ধু তুই আমারে, মধু হৈ হৈ বিষ খাওয়াইলা, বায়োস্কাপ গান পরিবেশন করেন। নীশিতা বড়–য়া বলেন, ‘বাংলাদেশের কবি, সাহিত্যিক, শিল্পী, কলকাতার বিধায়ক ও গণ্যমান্য ব্যক্তিদের উপস্থিতিতে কলকাতার পুরমন্ত্রীর কাছ থেকে সংবর্ধনাসহ কিছু সুন্দর সময় পার করেছি কলকাতা যোধপুর পার্ক উৎসবে।’

"