দেড় বছর পর ঢাকার মঞ্চে শাওন চৌধুরী

প্রকাশ : ০৮ ডিসেম্বর ২০১৮, ০০:০০

বিনোদন প্রতিবেদক

দেড় বছর আগে সর্বশেষ রাজধানীর শিশু একাডেমির মঞ্চে সংগীতশিল্পী শাওন চৌধুরী তার একক সংগীতানুষ্ঠান করেছিলেন। এরপর তিনি বেতার, চলচ্চিত্র ও টিভির জন্য নিয়মিত গান পরিবেশন করলেও মঞ্চে তাকে দেখা যায়নি। এবার দেড় বছর পর আবার তিনি মঞ্চে সরাসরি গান পরিবেশন করলেন গত বৃহস্পতিবার।

রাজধানীর শিল্পকলা একাডেমির সংগীত ও নৃত্যকলা মিলনায়তনে এদিন সন্ধ্যায় আড়াই ঘণ্টা ধরে ১৫টি গান পরিবেশন করেন তিনি। রবীন্দ্রসংগীত দিয়ে অনুষ্ঠান শুরু করলেও এরপর তিনি নজরুলসংগীত, আধুনিক সংগীত, কলকাতার খ্যাতিমান শিল্পীদের জনপ্রিয় গান ও গজল পরিবেশন করেন। কলকাতার শিল্পীদের মধ্যে মান্না দে, হেমন্ত মুখোপাধ্যায় ও সতীনাথ মুখোপাধ্যায়ের গান পরিবেশন করেন তিনি। শাওন চৌধুরীর অনবদ্য পরিবেশনায় হলভর্তি দর্শকরা ছিলেন মুগ্ধ। গানের ফাঁকে ফাঁকে সংগীত জীবন নিয়ে নানা স্মৃতিচারণা করেন এই শিল্পী।

শাওন চৌধুরীর পরিবেশিত গানের মধ্যে ছিল, মোরা আর জনমে হংস মিথুন ছিলাম, আমি চাঁদকে বলেছি, বন্ধু তোমার পথের সাথীকে চিনে নিয়ো, অলিও কথা শুনে বকুল হাসে, আজ এই বৃষ্টির কান্না দেখে, হায় বরষা এমন ফাগুন কেড়ে নিয়ো না, যদি হিমালয় আল্পসের সমস্ত জমাট বরফ একদিন গলে যায়, আমি ফুল না হয়ে কাঁটা হয়ে বেশ ছিলাম, ও চাঁদ সামলে রাখো জোসনাসহ পাঁচটি গজল ও হিন্দি গান।

উল্লেখ্য, ওস্তাদ নিয়াজ মোহাম্মদ চৌধুরীর সুযোগ্য শিষ্য শাওন চৌধুরীই বাংলাদেশের একমাত্র কণ্ঠশিল্পী যিনি বিশ্বের কিংবদন্তি শিল্পী লতা মঙ্গেশকরের সঙ্গে দ্বৈতকণ্ঠে গান রেকর্ড করার বিরল সৌভাগ্য অর্জন করেছেন। তিনি নিয়মিত রেডিও-টেলিভিশনের পাশাপাশি চলচ্চিত্রেও প্লে-ব্যাক করেন। দেশের প্রায়

সব চ্যানেল ছাড়াও ভারত ও যুক্তরাজ্যের টিভি চ্যানেলে তার গাওয়া অসংখ্য গান প্রচারিত হয়েছে। কাজের স্বীকৃতিস্বরূপ উল্লেখযোগ্য সংখ্যক আন্তর্জাতিক পুরস্কার অর্জন করেছেন তিনি। সম্প্রতি নেপাল থেকেও রাষ্ট্রীয় সম্মাননা পেয়েছেন শাওন চৌধুরী।

"