‘চিত্রাঙ্গদা’ হয়ে মঞ্চে চুমকী

প্রকাশ : ১২ অক্টোবর ২০১৮, ০০:০০

বিনোদন প্রতিবেদক

স্কুলে পড়ার সময় নৃত্যনাট্যে অভিনয় করেছিলেন অভিনেত্রী নাজনীন হাসান চুমকী। এরপর অনেকটা সময় পেরিয়ে গেছে। কিন্তু আর কখনোই নৃত্যনাট্যে অভিনয়ে দেখা মিলেনি চুমকির। বহুবছর পর আবারো আজ মঞ্চে চুমকীকে নৃত্যনাট্যে অভিনয়ে দেখা যাবে। সাধনা প্রযোজিত রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের নৃত্যনাট্য ‘চিত্রাঙ্গদা’য় চিত্রাঙ্গদা চরিত্রে অভিনয়ে দেখা মিলবে চুমকীর। এর নাট্যরূপ দিয়েছেন লুবনা মারিয়ম এবং নির্মাণ করছেন সুইটি দাস চৌধুরী। লুবনা মারিয়ম চিত্রনাট্য করার পর নৃৃত্যনাট্যের নাম দেয়া হয়েছে ‘নহি দেবী নহি সামান্য নারী’। নারী পক্ষের ৩৫তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে আজ সন্ধ্যা ৭টায় বাংলা একাডেমি মঞ্চে নৃত্যনাট্য ‘নহি দেবী নহি সামান্য নারী’র মঞ্চায়ন হবে বলে জানান নাজনীন হাসান চুমকি।

এতে চিত্রাঙ্গদা চরিত্রে অভিনয় প্রসঙ্গে নাজনীন হাসান চুমকি বলেন, সেই ছোটবেলায় স্কুলে পড়ার সময় চিত্রাঙ্গদা নৃত্যনাট্যে অভিনয় করেছিলাম। এরপর আর সুযোগ হয়নি অভিনয় করার। কিন্তু বহু বছর পর আজ মঞ্চে সেই চিত্রাঙ্গদারূপে দর্শকের সামনে উপস্থিত হবো। ভালোলাগা তো অবশ্যই কাজ করছে নিজের ভেতর। এটা আসলে ভাষায় প্রকাশের নয়। আমি কৃতজ্ঞ এমন একটি কাজে আমাকে সম্পৃক্ত করার জন্য লুবনা মারিয়ম এবং নির্মাতা সুইটি দাস চৌধুরীর কাছে। নাটকটিতে তিন চিত্রাঙ্গদা চরিত্রে দেখা যাবে নাজনীন হাসান চুমকীকে, নৃত্যে সুইটি দাস চৌধুরীকে এবং গানে সিমু দাসকে। সংগীত পরিচালক হিসেবে কাজ করছেন নির্ঝর চৌধুরী।

এদিকে চুমকীকে সর্বশেষ মাসুম রেজার রচনা ও নির্দেশনায় দেশ নাটকের ‘নিত্যপুরাণ’ নাটকে মঞ্চে দেখা যায়। এই নাটকের দ্রৌপদী চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন তিনি। টিভি নাটকে চুমকীকে প্রথম দেখা যায় ১৯৯৯ সালে ‘যেতে যেতে অবশেষে’ নাটকে। বর্তমানে তিনি যুবরাজ খানের ‘ব’তে বন্ধুর হুটোপুটি’, রুলীন রহমানের ‘ভালোবাসা কারে কয়’, আলভী আহমেদের ‘দ্য জেনারেসন’, বাবরের ‘বাবর আলী রিটার্ন’ ধারাবাহিকে নিয়মিত অভিনয় করছেন। তারই নির্দেশনায় নির্মিত ধারাবাহিক ‘নাগরদোলা’ অক্টোবরের তৃতীয় সপ্তাহ থেকে চ্যানেল নাইনে প্রচার শুরু হতে যাচ্ছে। গেলো বছর জনপ্রিয় অভিনেত্রী তারিনকে নিয়ে চুমকী দুটি নাটক নির্মাণ করে বেশ আলোচনায় আসেন। একটি ‘বেবী আপা’ এবং অন্যটি ‘বেবী আপার বর’। ১৯৯৬ সাল থেকে চুমকী ‘দেশ নাটক’-এর সদস্য হিসেবে অভিনয় করছেন।

 

"