তাদের একসঙ্গে দেখতে চায় দর্শক

প্রকাশ : ১৭ জুলাই ২০১৮, ০০:০০

বিনোদন প্রতিবেদক

জাকিয়া বারী মম এবং মেহজাবিন চৌধুরী, দুজনেরই একই প্লাটফরম থেকে উঠে আসা শিল্পী। তাই একের প্রতি অন্যের ভালোবাসাও রয়েছে অসীম। দুজনই এবারের ঈদে তাদের অভিনয়ের কারণে দর্শকের ভালোবাসায় মুগ্ধ হয়েছেন। নির্মাতারা যেন মম ও মেহজাবিনের ওপরই এ সময়ে যেকোনো চ্যালেঞ্জিং চরিত্রের জন্য অনায়াসে নির্ভর করতে পারেন।

গত ঈদে মম ও মেহজাবিনকে একমাত্র একটি টেলিফিল্মেই দেখা গেছে। জাকারিয়া শৌখিনের রচনা ও নির্দেশনায় শরৎচন্দ্রের ‘দেবদাস’র ছায়া অবলম্বনে নির্মিত ‘জলসা ঘর’-এ তাদের দুজনকে দেখা গেছে। এতে তাদের বিপরীতে ছিলেন অপূর্ব। টেলিফিল্মটিতে তাদের দুজনের অনবদ্য অভিনয় প্রশংসিত হয়েছে। যে কারণে একই নাটক ও টেলিফিল্মে দর্শক তাদের একসঙ্গে দেখার আগ্রহ প্রকাশ করেছেন। ‘জলসা ঘর’ ছাড়া মম ও মেহজাবিন অভিনীত ভিন্ন ভিন্ন নাটক-টেলিফিল্মে তাদের দুজনের অনবদ্য অভিনয় মন ছুঁয়ে গেছে।

মম অভিনীত শিহাব শাহীন পরিচালিত ‘শেষ পর্যন্ত’, মাহমুদুর রহমান হিমির ‘আনমনে তুমি’ শামীম জামানের ‘ঘাওরা মজিদ’, সালাহ উদ্দিন লাভলুর ‘বুকের মাঝে নূপুর বাজে’, ও রুবেল হাসানের ‘পরশ’ দর্শকের মধ্যে দারুণ সাড়া ফেলে। অন্যদিকে মেহজাবিন অভিনীত মিজানুর রহমান আরিয়ান পরিচালিত ‘বুকের বাঁ পাশে’, আশফাক নিপুণের ‘ফেরার পথ নেই’ নাটকে অভিনয়ের জন্য বেশি সাড়া পেয়েছেন। মম বলেন, ‘সারা বছর জুড়েই দর্শক ঈদের নাটক টেলিফিল্ম দেখার জন্য অধীর আগ্রহ নিয়ে অপেক্ষা করেন। যে কারণে আমি ঈদের কাজ করার ব্যাপারে ভীষণ চুজি থাকি। গল্প নির্বাচন থেকে শুরু করে চরিত্র এবং কস্টিউম নিয়েও সচেতন থাকি। সর্বোপরি যেসব নাটক টেলিফিল্মে কাজ করি, আমি আমার সর্বোচ্চটা দিয়েই ভালোভাবে কাজগুলো শেষ করার চেষ্টা করি। এবারের ঈদেও যেসব কাজ করেছি, আমি অনেক কষ্ট করে নির্ধারিত সময়ের পরও কষ্ট করে কাজগুলো শেষ করেছি। যার ফল আমি কিন্তু ঠিকই পাচ্ছি। দর্শকের কাছ থেকে প্রতিদিনই সাড়া পাচ্ছি। সহকর্মীরা উৎসাহ দিচ্ছেন। নির্মাতারাও অনুপ্রেরণা জোগাচ্ছেন। মনে হয় আমি যেন নতুন আমাকে আবিষ্কার করছি।’

মেহজাবিন বলেন, ‘অভিনয়ে আমি আগের চেয়েও যে অনেক বেশি সিরিয়াস তা দর্শক আমার কাজগুলো দেখলেই বোধগম্য হয়। এবারের ঈদে অনেক স্ক্রিপ্ট এসেছিল আমার কাছে। সেখান থেকে ভালো গল্পের নাটক-টেলিফিল্মগুলোতেই আমি কাজ করেছি। আমি কিন্তু দর্শকের কথা ভেবেই ভালো ভালো গল্পে কাজ করেছি। কারণ আমি দর্শকের কারণেই আজকের মেহজাবিন। তাই আগামী দিনের চলার পথে এগিয়ে যেতে হলে দর্শকের কথা মাথায় রেখেই আমাকে কাজ করতে হবে এবং ভালো ভালো গল্পে চ্যালেঞ্জিং চরিত্রগুলোর মুখোমুখি হয়ে নিজেকে ভেঙে অভিনয় করতে হবে আমাকে। সবার সহযোগিতা নিয়েই আমি এগিয়ে যেতে চাই আগামীর পথে।’ এদিকে ঈদ শেষে এরই মধ্যে মেহজাবিন কাজে ফিরেছেন। মোস্তফা সরয়ার ফারুকীর নির্দেশনায় বিজ্ঞাপনের কাজ শেষে লন্ডন থেকে দেশে ফিরেছেন। মম এরই মধ্যে রায়হান রাফি পরিচালিত ‘দহন’ চলচ্চিত্রের কাজ শেষ করেছেন।

"