উৎসব আমেজে যশোরের শার্শায় ভোটগ্রহণ

প্রকাশ : ৩১ ডিসেম্বর ২০১৮, ০০:০০

বেনাপোল (যশোর) প্রতিনিধি

যশোর-১ (শার্শা) আসনে গতকাল রোববার সকাল ৮টা থেকে শান্তিপূর্ণভাবে ভোট গ্রহন শুরু হয়। ১০২টি কেন্দ্রের অধিকাংশ কেন্দ্রে বিভিন্ন বয়েসের নারী পুরুষের লম্বা লাইন দেখা গেছে। সকাল ৮টার আগেই কয়েকটি ভোট কেন্দ্রে ভোটারদের উপস্থিতি লক্ষ্য করা গেছে। তবে বিএনপিসহ অন্যান্য দলের নেতা কর্মিদের উপস্থিতি কম দেখা গেছে। অনেক কেন্দ্রে বিএনপির এজেন্টকে খুজে পাওয়া যায়নি। তবে প্রশাসনের কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা ছিল চোখে পড়ার মত। ঝুঁকিপূর্ন কেন্দ্রে নেওয়া হয়েছে বাড়তি নিরাপত্তা। বিএনপির ভোটারদের অভিযোগ মুখ দেখে ভোট কেন্দ্রে যাওয়ার অনুমতি দেয়া হচ্ছে ভোটারদের। ফলে ভোটারদের মধ্যে উৎসবের পরিবর্তে বিরাজ করছে উদ্বেগ-উৎকণ্ঠা।

নির্বাচনী অফিস সূত্রে জানা গেছে, এ আসনে মোট ভোটার সংখ্যা দুই লাখ ৬৩ হাজার ৬০০। এদের মধ্যে পুরুষ ভোটার ১ লাখ ৩১ হাজার ৫৪০ ও মহিলা ভোটার ১ লাখ ৩২ হাজার ৬০ জন।

আ.লীগের প্রার্থী শেখ আফিল উদ্দিন জানান, শার্শায় শান্তিপূর্ণ ও উৎসবমূখর পরিবেশে ভোট গ্রহণ চলছে। পুরুষ ভোটারের চেয়ে নারী ভোটারদের উপস্থিতি বেশি। সকাল সকাল সবাই দলবদ্ধভাবে ভোট দিতে কেন্দ্রে চলে আসেন। নৌকার জয়ের ব্যাপারে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন।

ধানের শীষের প্রার্থী মফিকুল হাসান তৃপ্তি অভিযোগ করে বলেন, ভোর থেকে সবকটি কেন্দ্র দখল করে নিয়েছে আ.লীগ নেতাকর্মীরা। কোনো কেন্দ্রেই তার পোলিং এজেন্টদের প্রবেশ করতে দেয়া হয়নি। হুমকি ধামকি দিয়ে তাদের বিদায় করে দিয়েছে পুলিশ ও আ.লীগের নেতাকর্মীরা। আ.লীগের সমর্থকরা একবার ভোট দিয়ে আবার লাইনে দাঁড়িয়ে আছে আর একবার ভোট দিতে। প্রহসনের নির্বাচন হচ্ছে শার্শায়। আইন শৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনী এসব প্রত্যক্ষ করলেও তারা নীরব ভূমিকা পালন করছে।

শার্শার সহকারি রিটানিং অফিসার ও ইউএনও পুলক কুমার মন্ডল জানান, শার্শা উপজেলায় শান্তিপূর্ণ ও উৎসবমূখর পরিবেশে ভোট গ্রহণ চলছে। কোথায়ও কোন অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি। ভোটারদের উপস্থিতি লক্ষ্য করার মত। নির্বাচন নিয়ে আমার কাছে কেউ কোন অভিযোগ করেনি।

"