চাঁদপুর-৫

ভোটযুদ্ধে প্রার্থী দুই পীর দ্বিধাদ্বন্দ্বে সাধারণ ভক্তরা!

প্রকাশ : ১৪ ডিসেম্বর ২০১৮, ০০:০০

হাজীগঞ্জ (চাঁদপুর) প্রতিনিধি

চাঁদপুর-৫ (হাজীগঞ্জ-শাহরাস্তি) আসনে নির্বাচনে অংশ নেয় ৬টি দলের মধ্যে ভোট যুদ্ধে নেমেছেন ৪ পীরের দল। তাদের মধ্যে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ ও জাকের পার্টির প্রতিনিধি নির্বাচনে অংশ নিলেও সরাসরি ভোট যুদ্ধে নেমেছেন দুই পীর।

তারা হলেন, ইসলামিক ফ্রন্ট বাংলাদেশ এর চেয়ারম্যান ও ধেররা দরবার শরীফের পীর আল্লামা সৈয়দ বাহাদুর শাহ্ মোজাদ্দেদী এবং ইসলামী ফ্রন্টের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও বদরপুর দরবার শরীফের পীর আল্লামা আবু সুফিয়ান খাঁন আবেদী আল কাদেরী।

এছাড়াও ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ এর প্রার্থী হাফেজ মোহাম্মদ শাহাদাত হোসেন প্রধানীয়া হাতপাখা প্রতিকে এবং জাকের পার্টির প্রার্থী ওবায়েদ মোল্লা গোলাপ ফুল প্রতিকে নির্বাচনে অংশ নিচ্ছেন। মূলত ভোটযুদ্ধে লড়াইটা হবে, আ.লীগের প্রার্থী ও বর্তমান সংসদ সদস্য মেজর অব. রফিকুল ইসলাম বীরউত্তম এবং বিএনপির প্রার্থী ইঞ্জি. মমিনুল হকের মধ্যে। ইসলামিক ফ্রন্ট বাংলাদেশ এর চেয়ারম্যান আল্লামা সৈয়দ বাহাদুর শাহ্ মোজাদ্দেদী দলের প্রতিক ‘চেয়ার’ মর্কায় নির্বাচনে অংশ নিচ্ছেন।

জানা যায়, ইসলামিক ফ্রন্ট বাংলাদেশ মহাজোটের সঙ্গে রয়েছে। তবে ধর্মভিত্তিক শরীক দলগুলোর মধ্যে একটি দলের জন্য দুইটি আসনে ছাড় দিয়েছে আওয়ামী লীগ। এর বাইরে যে ধর্মভিত্তিক দলগুলো ১৪ দলীয় জোট বা মহাজোটের সঙ্গে রয়েছে, তারা আর কোন আসন পায়নি। যার ফলে ইসলামিক ফ্রন্ট বাংলাদেশ নিজস্ব প্রতিকে ‘চেয়ার’ নির্বাচনে অংশ নিচ্ছে।

অপর দিকে বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্ট দলটির বর্তমান চেয়ারম্যান আল্লামা এম. এ মান্নান ‘মোমবাতি’ প্রতিকে নির্বাচন করছেন। দলের প্রেসিডিয়াম সদস্য আল্লামা আবু সুফিয়ান খাঁন আবেদী আল কাদেরী নির্বাচনে চাঁদপুর-৫ আসনে অংশ নিচ্ছেন। তিনি হাজীগঞ্জ পৌরসভাধীন বদরপুর দরবার শরীফের বর্তমান পীর।

জাতীয় পার্টির নেতৃত্বাধীন সম্মিলিত জাতীয় জোটের অন্যতম শরিক দল ‘বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্ট’। আবার আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন মহাজোটের অন্যতম শরীক দল জাতীয় পার্টি।

জানা যায়, মহাজোট থেকে ২৬টি আসন পেয়েছে জাতীয় পার্টি। দলটির মনোনয়ন জটিলতা, পার্টির মহাসচিব রদবদল, দলের চেয়ারম্যান হুসাইন মোহাম্মদ এরশাদের অসুস্থতাসহ দলীয় অভ্যন্তরীন বিভিন্ন সমস্যার কারনে এখন পর্যন্ত জাতীয় পার্টি শরীকদের সঙ্গে আসন ভাগাভাগি হয়নি। যার ফলে বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্ট নিজস্ব প্রতিকে ‘মোমবাতি’ নির্বাচনে অংশ নিচ্ছে। এ ছাড়াও নির্বাচনী মাঠে রয়েছে আহলে সুন্নাত ওয়াল জমাআতের আদর্শবাহী অন্যতম রাজনৈতিক দল জাকের পার্টি। ওবায়েদ মোল্লা এ আসনে দলীয় প্রতিক ‘গোলাপ ফুল’ নির্বাচন অংশ নিচ্ছেন। যার ফলে আহলে সুন্নাত ওয়াল জমাআতের অনুসারী সাধারণ ভক্তরা কার পক্ষ নিবেন এবং কোন প্রার্থীকে ভোট দিবেন? এ নিয়ে রয়েছেন দ্বিধাদ্বন্ধে। তবে নিজ নিজ দরবার শরীফের মুরিদ ও অনুসারী তাদের প্রার্থীর পক্ষেই গণসংযোগসহ প্রচার-প্রচারণায় অংশ নিচ্ছেন। ইসলামিক ফ্রন্ট বাংলাদেশ এর উপজেলা সভাপতি জাকির হোসেন মিয়াজী জানান, আল্লামা সৈয়দ বাহাদুর শাহ মোজাদ্দেদী সর্বমহলের কাছে একজন গ্রহনযোগ্য ব্যক্তি। আমরা জয়ের লক্ষ্যে নির্বাচন করছি। ইসলামী ফ্রন্ট উপজেলা শাখার সম্পাদক মাওলানা আব্দুর রাহিম জানান, নির্বাচনের উদ্দেশ্য হলো, আমরা দীর্ঘদিন ধরে আহলে সুন্নাত ওয়াল জমা’আতের মতাদর্শের রাজনীতি করে আসছি। অনুসারীরা যেন আমাদের মতাদর্শের প্রার্থীকে ভোট দিতে পারেন।

"