ঠাকুরগাঁও-১

মির্জা ফখরুল নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘন করছেন : রমেশ চন্দ্র

প্রকাশ : ১৪ ডিসেম্বর ২০১৮, ০০:০০

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি
ama ami

ঠাকুরগাঁও-১ আসনে নির্বাচনী আচরণ বিধি লঙ্ঘন করে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর নির্বাচনী সভা করছেন বলে অভিযোগ আওয়ামী লীগের। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে এই আসনের নৌকার প্রার্থী আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য রমেশ চন্দ্র সেন শহরের কলেজপাড়া এলাকায় নিজস্ব বাসভবনে সংবাদ সম্মেলন করে এ অভিযোগ করেন।

রমেশ চন্দ্র সেন বলেন, মির্জা ফখরুল শালেরহাট নামক এলাকায় একটি পথসভা করেছে। যেখানে রিটার্নিং অফিসারের অনুমতি ছাড়া কোন প্রার্থী কোন সভা করতে পারে না। সেখানে ফখরুল কিভাবে সভা করল। যেমন আমরা বিভিন্ন জায়গায় পথসভা, নির্বাচনী সভা করছি; আর সেগুলো রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে অনুমতি নিয়ে।’

মির্জা ফখরুলের গাড়ি ভাঙচুরের ঘটনা রমেশ চন্দ্র বলেন, ধানের শীষের প্রার্থী মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর গত পরশুদিন বিমানবন্দর থেকে ফেরার পথে সদর উপজেলার বেগুনবাড়ি ইউনিয়নের দানারহাট এলাকায় অনির্ধারিত একটি সভায় যোগ দেন। এর পূর্বে সেখানে বিএনপির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের মধ্যে দলীয় কোন্দল হয়েছিল। তারাই ফখরুলের গাড়িবহরে হামলা করেছে। তিনি অভিযোগ করে বলেন, আমাদের দানারহাট অফিসে স্থানীয় বিএনপির লোকজন ইটপাটকেল ছুড়েছে। এসময় আমাদের ছাত্রলীগের কর্মী সালাম বাঁধা দিতে গেলে তাকে মারপিট করে আহত করে বিএনপির লোকজন। এরপর স্থানীয় দোকানদাররা সম্মিলিত হয়ে বিএনপির ক্যাডারদের সাথে বাকবিতন্ডা হয়। আমাদের সাথে তাদের কোনকিছুই হয়নি।

সংবাদ সম্মেলনে জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি অ্যাড. মকবুল হোসেন বাবু, সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাড. মোস্তাক আলম টুলু, উপ-দপ্তর সম্পাদক অ্যাড. নাসিরুল ইসলাম নাসির, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অরুনাংশু দত্ত টিটো, সাধারণ সম্পাদক মোশারুল ইসলাম, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলাম স্বপন প্রমুখ। ঠাকুরগাঁও জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা ড. কেএম কামরুজ্জামান সেলিম বলেন, নির্বাচনী প্রচারণায় বিএনপির প্রার্থী মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর আচরণ বিধি লঙ্ঘণ করে সড়কের মাঝখানে মাটিতে বাঁধ পুতে ফেস্টুন লাগিয়েছিল। আমরা বলার পরও তারা সেসব সাইবোর্ডগুলো অপসারণ করেনি। পরে আমরা সেসব সাইনবোর্ডগুলো অপরসাণ করেছি এবং বিএনপি প্রার্থীকে নির্বাচন আচরণ বিধি মেনে চলার পরামর্শ দিয়েছি। আবারও যদি কোন প্রার্থী নির্বাচন আচরণ বিধি লঙ্ঘণ করে তাহলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

"