সীতাকুন্ডে নৌকা রাস্তায় ধানের শীষ ঝিমিয়ে

প্রকাশ : ১৪ ডিসেম্বর ২০১৮, ০০:০০

সীতাকুন্ড (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি

চট্টগ্রামের সীতাকুন্ডের সর্বত্রই নৌকা প্রতীকের প্রচার-প্রচারণা লক্ষ্য করা গেলেও ধানের শীষের প্রচারণা এখনো চোখে পড়ছে না। কিছু কিছু স্থানে লাঙ্গল’র প্রচার-প্রচারনা দেখা যাচ্ছে। আওয়ামী লীগ প্রতিনিধি সভা, বর্ধিত সভা শেষ করে নির্বাচনী এলাকায় কমিটি গঠন শেষ পর্যায়ে হলেও বিএনপি এখনো কোনটাই শুরু করতে পারেনি। বানিজ্যিক রাজধানী বন্দর নগরীর প্রবেশদ্বার সংসদীয় এলাকা চট্টগ্রাম-৪ আসন সীতাকু-, পাহাড়তলী ও আংশিক আকবর শাহ এলাকা নিয়ে গঠিত। আসন্ন একাদশ সংসদ নির্বাচনে আ.লীগ দলীয় প্রতীক নৌকা নিয়ে লড়ার জন্য দলীয় নেতা কর্মীদের নিয়ে মাঠে চষে বেড়াচ্ছেন বর্তমান সাংসদ দিদারুল আলম। অন্যদিকে বিএনপি’র কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম সম্পাদক লায়ন আসলাম চৌধুরীর মনোনয়ন বাতিল হওয়ায় তাঁর জায়গায় দলীয় প্রতীক ধানের শীষ নিয়ে আগোছালো মাঠ গোছানোর চেষ্টায় উপজেলা কৃষক দল সভাপতি ইছহাক কাদের চৌধুরী। আ.লীগ দলীয় প্রার্থী দিদারুল আলম বলেন, গত পাঁচ বছরে শিক্ষা, স্বাস্থ্য ও অবকাঠামোগত উন্নয়নে এলাকার ব্যাপক উন্নয়ন সাধন হয়েছে। এলাকার মানুষের ভালবাসায় আমি সিক্ত, ইনশাল্লাহ জয় আমাদেরই হবে। বিএনপি’র প্রার্থী ইছহাক কাদের চৌধুরী বলেন, আমাদের প্রথম নির্বাচনী কর্মীসভা থেকে ২৫জন নেতা কর্মীকে আটক করার পর আমরা জেলা নির্বাচন কমিশনকে নির্বাচনে লেভেল প্লেয়িং এর জন্য স্মারকলিপি দিয়েছি। বৃহস্পতিবার (গতকাল) সকালে কালুশাহ মাজার জেয়ারতের মাধ্যমে নির্বাচনী কর্মসূচি শুরু করেছি, প্রচুর সাড়া পাচ্ছি। সুষ্ঠু নির্বাচন হলে জনগণ ব্যালটের মাধ্যমে আমাদের পক্ষে রায় প্রদান করবেন।

সীতাকু- মডেল থানার ওসি দেলোয়ার হোসেন জানান, বিএনপি’র সভা শেষে ১৩জনকে আটক করা হয়েছিল কারণ তাদের বিরুদ্ধে মামলা আছে।

আ.লীগ ও বিএনপি ছাড়াও উক্ত আসনে জাতীয় পার্টি থেকে দিদারুল কবীর দিদার, ইসলামিক ফ্রন্ট বাংলাদেশ’র আবুল বাশার মুহাম্মদ জয়নুল আবেদীন, বাংলাদেশ ইসলামিক ফ্রন্ট’র মুহাম্মদ আশ্রাফ হোসাইন প্রতিদ্বন্দ্বীতা করবেন।

"