ময়মনসিংহ-৩

চূড়ান্ত তালিকা থেকে হিরণকে বাদ, প্রতিবাদে বিক্ষোভ

প্রকাশ : ০৯ ডিসেম্বর ২০১৮, ০০:০০

গৌরীপুর (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি

ময়মনসিংহ-৩ (গৌরীপুর) আসনে বিএনপির চূড়ান্ত প্রার্থী তালিকা থেকে আহাম্মদ তায়েবুর রহমান হিরণের নাম বাদ দিয়ে প্রকৌশলী এম ইকবাল হোসাইনকে মনোনয়ন দেয়া হয়েছে। এর প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল ও মানববন্ধন করেছে হিরণ সমর্থকরা। গতকাল শনিবার সকালে গৌরীপুর পৌর শহরের উত্তরবাজার এলাকায় এ কর্মসূচী পালিত হয়। এ ঘটনার পর থেকে বিএনপি নেতা-কর্মীদের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছে।

স্থানীয় ও দলীয় সূত্রে জানা গেছে, এ আসনে বিএনপির তিনজন প্রার্থীকে মনোনয়নের চিঠি দেয়া হয়। তারা হলেন, উপজেলা চেয়ারম্যান আহাম্মদ তায়েবুর রহমান হিরণ, ডক্টরস এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ড্যাব) এর সিনিয়র সহসভপতি ডা. আব্দুস সেলিম, বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য প্রকৌশলী ইকবাল হোসাইন। এদিকে মনোনয়ন চিঠি প্রাপ্তির পর নির্বাচন অংশ নিতে উপজেলা চেয়ারম্যানের পদ থেকে পদত্যাগ করেন হিরণ। পরে তিনি ওই দিন সহকারি রির্টানিং অফিসারের কার্যালয়ে মনোনয়নপত্র জমা দেন। গত ২ ডিসেম্বর জেলা রির্টানিং অফিসার মনোনয়নপত্র যাচাইবাছাই শেষে উপজেলা চেয়ারম্যানের পদ থেকে পদত্যাগ এর বিষয়টি প্রমাণিত না হওয়া হিরণের প্রার্থিতা বাতিল করেন। গত ৬ ডিসেম্বর নির্বাচনে কমিশনে আপিল করে প্রার্থিতা ফিরে পান হিরণ। গত শুক্রবার বিকালে রাজধানীর গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ২০৬ আসনে বিএনপি চূড়ান্ত প্রার্থীদের নাম ঘোষণা করেন। ওই তালিকায় ময়মনসিংহ-৩ আসনে বিএনপির প্রার্থী হিসাবে আহাম্মদ তায়েবুর রহমান হিরণের নাম ঘোষণা করা হয়। এমনকি গণমাধ্যমে প্রকাশিত বিএনপির চূড়ান্ত প্রার্থী তালিকায় হিরণের প্রকাশিত হয়।

এদিকে শুক্রবার রাতে বিএনপি হিরণের প্রার্থী বাতিল করে নতুন করে ইকবালকে মনোনয়ন দেয়া হয়েছে এমন খবর ছড়িয়ে পড়লে ক্ষোভে ফেঁটে পড়ে হিরণ সমর্থকরা। মনোনয়ন বাতিলের প্রতিবাদ ও হিরণকে বিএনপি প্রার্থী করার দাবিতে গতকার শনিবার দুপুরে পৌর শহরের বিক্ষোভ মিছিল করে মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করে। এক পর্যায়ে বিক্ষুব্ধ নেতা-কর্মীরা সড়কের ওপর শুয়ে পড়ে বিক্ষোভ করেন। এ বিষয়ে হিরণ বলেন, দেশের একটি প্রভাবশালী পত্রিকার সম্পাদক ও বিশিষ্ট একজন শিল্পপতি তদবির করে আমার মনোনয়ন বাতিল করে ইকবাল হোসেনকে মনোনয়ন পাইয়ে দিয়েছেন। বিষয়টি নিয়ে নেতা-কর্মীদের মধ্যে ব্যাপক হতাশা বিরাজ করছে। এই মুহূর্তে এর বেশি কিছু বলতে পারছিনা। তবে দলীয় নেতা-কর্মীদের সঙ্গে আলোচনা করে পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেবো।

"