আপিলে ফিরছে প্রার্থিতা

প্রকাশ : ০৭ ডিসেম্বর ২০১৮, ০০:০০

প্রতিদিনের সংবাদ ডেস্ক

আপিলের মাধ্যমে মনোনয়ন বৈধতা পেতে শুরু করেছেন অনেক প্রার্থী। গত ২৮ নভেম্বর মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাইয়ে বাদ পড়া প্রার্থীরা নির্ধারিত সময়ে নির্বাচন কমিশনে আপিল করেন। গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে রাজধানীর আগারগাঁওয়ের নির্বাচন ভবনে অনুষ্ঠিত শুনানি শেষে অনেক প্রার্থীর মনোনয়ন বৈধ বলে ঘোষণা করা হয়। নির্বাচন কমিশনে মোট ৫৪৩টি আপিল জমা পড়েছে। ৬ ডিসেম্বর প্রথম দিন ১ থেকে ১৬০ নম্বর আপিলের শুনানি হবে। ৭ ডিসেম্বর দ্বিতীয় দিনে ১৬১ থেকে ৩১০ নম্বর আবেদনের শুনানি হবে। ৮ ডিসেম্বর শেষ দিন শুনানি হবে ৩১১ থেকে ৫৪৩ নম্বর আবেদনের। প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর :

খুলনা : খুলনা জেলা বিএনপির সভাপতি শফিকুল আলম মনার মনোনয়ন বৈধ ঘোষণা করেছে নির্বাচন কমিশন। তিনি খুলনা-৬ আসনে বিএনপির প্রার্থী। জানা যায়, ২০১৩ সালে খুলনায় বেসরকারি বিনিয়োগ প্রতিষ্ঠান থেকে নেওয়া ঋণের জামিনদার ছিলেন মনা। পরবর্তীতে ওই ঋণগ্রহিতা ঋণের টাকা পরিশোধ করেননি। এদিকে বিষয়টি জানতে পেরে মনা ১ ডিসেম্বর ঋনের ৫ লাখ ৯০ হাজার টাকা পরিশোধ করেন। কিন্তু গত রোববার (২ ডিসেম্বর) যাচাই-বাছাইয়ে ঋণ খেলাপির অভিযোগে মনার মনোনয়ন বাতিল করা হয়। গত সোমবার (০৩ ডিসেম্বর) ঋণ খেলাপির অভিযোগে মনোনয়নপত্র বাতিলের সিদ্ধান্তের ঢাকায় নির্বাচন কমিশনের (ইসি) সচিব বরাবর বিরুদ্ধে আপিল করেন।

নবাবগঞ্জ (ঢাকা) : ঢাকা-১ (দোহার-নবাবগঞ্জ) আসনে বিএনপি মনোনীত প্রার্থী খন্দকার আবু আশফাক তার প্রার্থিতা ফিরে পেয়েছেন। উপজেলা চেয়ারম্যান পদ থেকে পদত্যাগের নথি গ্রহণ সংক্রান্ত জটিলতার কারণে ঢাকা জেলা রিটার্নিং অফিসারের কার্যালয় থেকে তার প্রার্থিতা বাতিল হয়ে গেলেও আপিল করে প্রার্থিতা ফিরে পেয়েছেন তিনি। প্রার্থিতা ফিরে পাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন খন্দকার আবু আশফাক।

গৌরীপুর (ময়মনসিংহ) : ময়মনসিংহ-৩ (গৌরীপুর) আসনে বিএনপি প্রার্থী আহাম্মদ তায়েবুর রহমান হিরণের প্রার্থিতা বৈধ ঘোষণা করা হয়েছে। এর আগে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করতে গত ২৮ নভেম্বর গৌরীপুর উপজেলা চেয়ারম্যানের পদ থেকে পদত্যাগ করেন হিরণ। পরে তিনি ওই দিন সহকারী রিটার্নিং অফিসারের কার্যালয়ে মনোনয়নপত্র জমা দেন। গত ২ ডিসেম্বর জেলা রিটার্নিং অফিসারের কার্যালয়ে প্রার্থীদের মনোনয়নপত্র যাচাইবাছাই শেষে উপজেলা চেয়ারম্যানের পদ থেকে পদত্যাগের বিষয়টি প্রমাণিত না হওয়ায় হিরণের মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়। পরে তিনি মনোনয়নপত্র বাতিলের বিরুদ্ধে নির্বাচন কমিশনে আপিল করে প্রার্থিতা ফিরে পান।

ধামরাই (ঢাকা) : ঢাকার-২০ (ধামরাই) আসনে আপিলের মাধ্যমে নির্বাচন কমিশনের শুনানিতে মনোনয়নের বৈধতা পেয়েছেন বিএনপি থেকে মনোনয়নপ্রত্যাশী আলহাজ¦ তমিজউদ্দিন। গতকাল সকালে ঢাকা ইসি ভবনে অবস্থিত ট্রায়াল রুমে অনুষ্ঠিত শুনানিতে এই বৈধতা দেওয়া হয়।

ধামরাই উপজেলা বিএনপির সভাপতি ও তিন বারের উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ¦ তমিজউদ্দিন বলেন, উপজেলা চেয়ারম্যান পদ ছেড়ে দেওয়ার পদত্যাগপত্র তাৎক্ষণিক গৃহিত না হওয়ায় বাছাই পর্বে আমার মনোনয়ন পত্র বাতিল করা হয়েছিল। পরে আমি আপিল করার পরম মন্ত্রণালয় কর্তৃক অনুমোদন পত্র জমা দেওয়ার পর আমার মনোনয়নপত্র বৈধতা ঘোষনা করেন ইসি।

এর আগে ঢাকা-২০ আসনে মনোনয়নের প্রত্যাশী ১০ প্রার্থীর মধ্যে যাচাই-বাচাই শেষে বিএনপির তমিজউদ্দিন ও সুলতানা আহম্মেদসহ ৫ প্রার্থীর মনোনয়ন বাতিল করে ইসি। বাকীরা হলেন জাকির পার্টির এ্যাড. মো. নুরুল ইসলাম, গণফোরামের মো. জামালউদ্দিন ও স্বতন্ত্র প্রার্থী আব্দুল মান্নান।

কটিয়াদী (কিশোরগঞ্জ) : কিশোরগঞ্জ-২ (কটিয়াদী-পাকুন্দিয়া) আসনে বিএনপি প্রার্থী মেজর (অব.) মো. আখতারুজ্জামান রঞ্জন এর মনোনয়নপত্র বৈধ ঘোষণা করেছে নির্বাচন কমিশন। এর আগে ঋণ খেলাপির জামিনদার হওয়ায় তার মনোনয়ণপত্র বাতিল হয়েছিল। পরে ৩ ডিসেম্বর নির্বাচন কমিশনে আপিল করেন বিএনপির দুই বারের এই সাবেক এমপি।

শিবচর (মাদারীপুর) : মাদারীপুর-১ (শিবচর) আসনে জাতীয় পার্টির প্রার্থী জহিরুল ইসলাম মিন্টু’র মনোনয়নপত্র বৈধ ঘোষণা করেছেন নির্বাচন কমিশন। গতকাল শুনানি শেষে কমিশনের ট্রাইব্যুনালে এ ঘোষণা দেন। মনোনয়নপত্র বৈধ ঘোষণা হওয়ার ব্যাপারটি জাতীয় পার্টির প্রার্থী জহিরুল ইসলাম মিন্টু মুঠোফোনে নিশ্চিত করেছেন

গুরুদাসপুর (নাটোর) : নাটোর-৪ (গুরুদাসপুর-বড়াইগ্রাম) আসনে বিএনপির দলীয় প্রার্থী আব্দুল আজিজের মনোনয়ন বৈধ ঘোষণা করা হয়েছে। গতকাল নির্বাচন কমিশনের আপিল বিভাগ যাচাই বাছাই করে তার মনোনয়ন বৈধ বলে ঘোষনা করেছেন বলে প্রার্থী আব্দুল আজিজ মুঠোফোনে নিশ্চিত করেন। এদিকে আব্দুল আজিজের মনোনয়ন বাতিলের পর বৈধতা পাওয়ার খবরে তৃনমুল বিএনপিতে উৎসবতা ফিরে এসেছে। বিভিন্ন এলাকায় উল্লাস ও মিষ্টি বিতরণের ঘটনা ঘটেছে বলে পৌর বিএনপির কয়েকজন নেতা জানান।

মুরাদনগর (কুমিল্লা) : কুমিল্লা-৩ (মুরাদনগর) আসনে বিএনপি মনোনীত প্রার্থী কেএম মজিবুল হকের মনোনয়পত্র বৈধ ঘোষনা করেছেন নির্বাচন কমিশন। এর আগে গত রোববার মনোনয়নপত্র যাচাই বাছাই কালে মজিবুল হকের দাখিল করা কাগজে আইটি-১০ ভি ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট পেপার নেই বলে মনোনপত্রটি বাতিল করেন জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা। প্রার্থীতা ফিরেপেতে গত ৩ ডিসেম্বর নির্বাচন কমিশনে তিনি আপিল করেন।

বোদা (পঞ্চগড়) : পঞ্চগড়-২ আসনে বিএনপির মনোনিত প্রার্থী ফরহাদ হোসেন আজাদের প্রার্থীতা বৈধ বলে ঘোষনা করেন নির্বাচন কমিশন। প্রার্থীদের পক্ষে-বিপক্ষে করা আপিলের ওপর শুনানিতে মনোনয়নের বৈধতা পেয়েছেন তিনি। গত ২ ডিসেম্বর যাচাই-বাছাইয়ে পঞ্চগড়-২ আসনে বিএনপি মনোনীত ফরহাদ হোসেন আজাদের মনোনয়নপত্র বাতিল করেন জেলা রিটার্নিং অফিসার। হলফনামায় স্বাক্ষর না থাকায় তার মনোনয়নপত্রটি বাতিল ঘোষণা করা হয়।

বড়াইগ্রাম (নাটোর) : নাটোর-৪ (বড়াইগ্রাম-গুরুদাসপুর) আসনে মনোনয়ন বৈধতা পেলেন জাতীয় পার্টির প্রার্থী অধ্যাপক আলাউদ্দিন মৃধা। এর আগে মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাইয়ে ঋণ খেলাপীর অভিযোগে তার মনোনয়ন বাতিল করা হয়েছিলো। কিন্তু নির্বাচন অফিসে তিনি আপীল করলে পুন:যাচাই বাচাইয়ে তার মনোনয়ন বৈধতা পায়। আলাউদ্দিন মৃধা জেলা জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক। এই আসনে যারা মনোনয়ন বৈধতা পেলেন তারা হলেন, আ.লীগের অধ্যাপক আব্দুল কুদ্দুস, বিএনপি’র জন গমেজ ও মোজাম্মেল হক, ন্যাপের হারুন-অর-রশিদ, কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের মুন্সি শহিদুল ইসলাম, ইসলামী আন্দোলনের বদরুল আমিন ও স্বতন্ত্র প্রার্থী জামায়েতের প্রভাষক আব্দুল হাকিম।

বেলকুচি (সিরাজগঞ্জ) : সিরাজগঞ্জের চৌহালী উপজেলা পরিষদের সদ্য পদত্যাগ করা চেয়ারম্যান মেজর (অব.) আব্দুল্লাহ আল মামুন ও সাবেক প্রতিমন্ত্রী মেজর (অব.) মঞ্জুর কাদের প্রার্থীতা বৈধ বলে ঘোষনা করেছে নির্বচন কমিশন। তারা দুজনই সিরাজগঞ্জ-৫ (বেলকুচি-চৌহালী) আসনে বিএনপি মনোনীত প্রার্থী।

এর আগে জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা ও জেলা প্রশাসক কামরুন্নাহার সিদ্দীকা গত ২ ডিসেম্বর প্রার্থীতা যাচাই বাছাই করেন। এ সময় চৌহালী উপজেলা চেয়ারম্যানের পদ থেকে পদত্যাগ না করার কারন দেখিয়ে মেজর মামুনের ও ঋণ খেলাপির দায়ে সাবেক প্রতিমন্ত্রী মেজর মুঞ্জুর কাদেরের মনোনয়নপত্র বাতিল ঘোষনা করেন। এদিকে নির্বাচন কমিশনে আপিল করে মেজর মঞ্জুর কাদের ও মেজর মামুন প্রার্থীতা ফিরে পাওয়ার সংবাদ তাদের সমর্থকদের মধ্যে জানাজানি হলে এলাকায় মিষ্টি খেয়ে তারা আনন্দ উল্লাস করেন।

"