ফইট্টা চোরার গল্প

প্রকাশ : ২৩ মে ২০২০, ০০:০০

আলম হোসেন

কৃষ্ণপক্ষের রাতটা কাত হলেই

শরীরটা মচ মচ করে ওঠে ফইট্টা চোরার

চুরির নেশায় পায় তাকে

পুলিশের গাড়িটা ঠিকঠাক মতো নজরে রাখে সে

একটা পাক ঘুরেই ডিউটি শেষ

নামে অন্য ধান্দায়

বস্তিওয়ালা খবরদার বলেই ফজু মাতব্বরের বারান্দার

এক কোনে বসে গাঁজায় দম দেয় পাহাড়াদার

এই ফাঁকে ফইট্টা সিঁদ কেটে ঢুকে যায় জলিলের ঘরে

ঘুমের মন্ত্রটা পড়ে আল্লাকে ডাকে খুব

সাতবার স্মরণ করে ওস্তাদের নাম বুকে ফু দিয়ে মালিশ করে বার কয়েক

নিমিষেই লোটা বাটি পুটলি বেধে

দরজা দিয়ে বেরিয়ে আসতেই

ঘেউ ঘেউ করে ওঠে দুইটা নেড়ি কুকুর।

অমনি ফুরুৎ ফুরুৎ বেজে ওঠে পাহাড়াদারের বাঁশি

মহল্লার বাতিগুলো ঝিলিক দিয়ে ওঠে চোর চোর বলে

চিৎকার দেয় সারা পাড়া

পুটলিটা পাশের পুকুরে ফেলে

দৌড় পালায় ফইট্টা

শালা কুত্তার বাচ্চা, মাইনষের লগে পারলেও বারবার হাইরা যাই তগ কাছে

তরা মানুষ হলেই বাইচ্চা যাইত আমার মতো ফইট্টারা।

 

"