মনোময় সিরিজ-৩১

প্রকাশ : ২৩ মে ২০২০, ০০:০০

নাহিদা আশরাফী

মনোময়,

 

বাড়ির ছাদে একটা নয়নতারার গাছ ছিল। কোনো দিন ঘ্রাণ পাইনি। পাবার কথাও তো নয়। কিন্তু কী আশ্চর্য! গাছটা মরে যাওয়ার পর আমি তার ঘ্রাণ পেতে শুরু করলাম। কোন কিছু ভেঙে গেলে, মরে গেলে অথবা হারিয়ে গেলে তার নিজস্ব একটা ঘ্রাণ রেখে যায়। মা চলে যাওয়ার পর তাবৎ আঁচল থেকে, বাবা চলে যাওয়ার পর বৃক্ষের ছায়া থেকে আর ঘর হারাবার পর সব সোঁদা মাটি থেকে আমি তাদের ঘ্রাণ পেতাম। ঘ্রাণকেই কেন যেন পৃথিবীর প্রাচীনতম চিহ্ন মনে হয় আমার।

কখনো কী খেয়াল করেছ মনো, সকাল চলে গেলে তার ঘ্রাণ রেখে যায় সবুজ পাতার গায়ে। দুপুর তার ঘ্রাণ রেখে যায় নিঃসঙ্গতার কাছে। আর রাতের ঘ্রাণ লুকিয়ে থাকে একাকিত্বের কোটরে।

 

মনোময়, আমাদের পানপাতা প্রেমে এত শিরা-উপশিরা যে, ঠিক কোনপথে গেলে তোমার অবধি দ্রুত পৌঁছানো যাবে; ভাবতে ভাবতেই তোমায় হারিয়ে ফেললাম।

 

আর তোমাকে হারাবার পর পৃথিবীর সব নোনা জলে আমি ভালোবাসার ঘ্রাণ পেতে শুরু করলাম।

 

ইতি

নিশ্চয়তা

 

"