পদাবলি

নারীরা ফেরে না

প্রকাশ | ১৪ জুন ২০১৮, ০০:০০

সোহরাব পাশা

তখনো নেভেনি ধানক্ষেতে আগুনের লাল শব্দ

ফুরোয়নি উৎপাত ধানকাটা ইঁদুরের পুরোনো বৃত্তান্ত

ধ্রুপদী শিল্পের হরিৎপাতা কাটছে চতুর ফড়িং সময়

গোপন জানালা থেকে নির্মল বাতাসে ঢেলে দিচ্ছে

কেউ দূষণ কার্বন,

তীব্র অভিমানে তুমিও আমাকে করেছো নিঃশব্দ

রাত্রির নির্বাসিত ছায়া

খুলে ফেলেছো রাঙাচুড়ি, মগ্নতার নির্জন শব্দের ঘুঙুর

 

নদীরাও ফিরে আসে বাঁকঘুরে, নারীরা ফেরে না আর

ব্যাকুল স্পর্শের মতো দ্যুতিময় বাসনার কাছে,

যাবার বেলায় ফেলে যায় নারী সুবর্ণ সময়ের সৌরভ

ভোরবেলা বকুলতলায় হাসির মুদ্রণ

দুপুরের নিচে বসে থৈ থৈ জ্যোৎস্নাভেজা স্নিগ্ধ গল্প

নির্ঘুম চোখে ঝরেপড়া অজস্র্র রাত্রির অক্ষর

 

অসমাপ্ত থাকে নারীর অনিঃশেষ দীর্ঘ কাহিনি

মানুষের সম্পর্কের পাশে নিদ্রাহীন জেগে থাকে

অন্য কোথাও উড়ালের এক মায়াপাখি

সোনার পাখি ফেরে না, ফেলে যাওয়া পুরোনো খাঁচায়

"