অর্জিত অগ্রযাত্রা ধরে রাখতে হবে

প্রকাশ : ১২ জানুয়ারি ২০১৯, ০০:০০

অনলাইন ডেস্ক

বাংলাদেশের অব্যাহত অগ্রগতি বিশ্ববাসীর জন্য এক নতুন বিস্ময়। ইতোমধ্যে উন্নতবিশ্বসহ বিভিন্ন আন্তর্জাতিক প্রতিষ্ঠান থেকে এই অগ্রগতির স্বীকৃতিও মিলেছে। তেমনি একটি হলো যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক নাগরিকত্ব ও পরিকল্পনাবিষয়ক ফার্ম হেনলি। গত বুধবার প্রকাশিত তাদের পাসপোর্ট সূচকের তথ্য অনুযায়ী, ১০০তম অবস্থান থেকে তিন ধাপ এগিয়ে বিশ্বে ৯৭ নম্বর স্থানে এসে দাঁড়িয়েছে বাংলাদেশের পাসপোর্ট। বিনা ভিসায় বিশ্বের ৪১টি দেশে ভ্রমণের সুবিধা নিয়ে লেবানন, লিবিয়া এবং দক্ষিণ সুদানের সঙ্গে যৌথভাবে ৯৭তম অবস্থানে আছে বাংলাদেশ। অন্যদিকে, একই দিনে যুক্তরাজ্যের ইকোনমিস্ট ইন্টেলিজেন্স ইউনিটের প্রকাশিত তথ্যে বলা হয়েছে, বৈশ্বিক গণতন্ত্র সূচকে চার ধাপ এগিয়েছে বাংলাদেশ। এমন গৌরবময় একটি দেশের অপেক্ষায় আছে এ দেশের মানুষ। যে স্বপ্ন তারা দেখেছিল একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধে।

বিভিন্ন সূচকে বাংলাদেশের এই অগ্রগতি নিয়ে বিশ্লেষকরা বলছেন, অবকাঠামো খাতে যেসব মেগা প্রকল্পের কাজ এগিয়ে চলেছে, সেগুলো সম্পন্ন হলে উন্নয়নের এই গতি অনেক বেশি ত্বরান্বিত হবে। পৌঁছে যাবে বিশ্বের বৃহত্তম অর্থনীতির দেশগুলোর তালিকায়। মূলত গত এক দশকে বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনার গতিশীল নেতৃত্বে দেশ অনেক দূর এগিয়েছে। যেমন বিদ্যুৎ উৎপাদন ক্ষমতা ২০ হাজার মেগাওয়াট ছাড়িয়েছে। ২০২৫ সালে তা ৩০ হাজার মেগাওয়াট ছাড়াবে। কর্মসংস্থান বাড়ছে, দারিদ্র্যের হার কমছে। শিক্ষায় আসছে গুণগত পরিবর্তন। পদ্মা সেতু, মেট্রোরেলের কাজ প্রায় শেষপর্যায়ে। ফলে যোগাযোগ ব্যবস্থায় রীতিমতো বিপ্লব সূচিত হয়েছে। মূলত এসব কারণেই বিশ্বব্যাপী আজ বাংলাদেশের এত প্রশংসা। বলা হচ্ছে, বিশ্বে বাংলাদেশ এখন উন্নয়নের রোল মডেল। তেমনি একটি পাসপোর্ট, যে সূচকে তিন ধাপ এগিয়েছে বাংলাদেশ। এটি বাংলাদেশের অর্জন। শুধু তা-ই নয়, বৈশ্বিক লিঙ্গসমতা সূচকে বাংলাদেশ দক্ষিণ এশিয়ার শীর্ষে (৪৮তম), যেখানে ভারতের অবস্থান ১০৮তম আর পাকিস্তানের অবস্থান তালিকার সর্বনিম্নে। তবে অর্জনের এই ধারাবাহিকতা অবশ্যই আমাদের ধরে রাখতে হবে। পাশাপাশি এ কথাও মনে রাখতে হবে, আন্তর্জাতিক পরিম-লে বাংলাদেশ আজ উন্নয়ন ও অগ্রগতিতে যে বিস্ময় সৃষ্টি করেছে, গণতন্ত্রচর্চা ও প্রতিষ্ঠায়ও সে ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখতে হবে। সজাগ থাকতে হবে, যেন কোনো অপশক্তি অগ্রগতির এই ধারা ব্যাহত করতে না পারে।

পরিশেষে বলতে চাই, বাংলাদেশের মানুষ নৈরাশ্যবাদী নয়, প্রচ- আশাবাদী মানুষ। তাই সবার সম্মিলিত প্রচেষ্টায় এই বিরামহীন অগ্রযাত্রা অব্যাহত রাখতে হবে। এ ব্যাপারে সবাইকে সবোর্চ্চ সততা, আন্তরিকতা ও দেশপ্রেমের চেতনায় উদ্বুদ্ধ হয়ে বঙ্গবন্ধুকন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতকে আরো শক্তিশালী করতে হবে। আমাদের এই অপ্রতিরোধ্য অগ্রযাত্রা পৃথিবীর কোনো শক্তি থামাতে পারবে না, যেকোনো মূল্যে অর্জন ধরে রাখতে হবেÑ এটাই আমাদের প্রত্যাশা।

"