রোল মডেলে বাংলাদেশ

প্রকাশ : ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০০:০০

অনলাইন ডেস্ক

সম্পর্কও যে রোল মডেলে উত্তীর্ণ হতে পারে তার উৎকৃষ্ট প্রমাণ বাংলাদেশ। একবার নয়, অনেকবার। অনেক ক্ষেত্রেই বাংলাদেশ তার প্রমাণ রেখেছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ‘বাংলাদেশ-ভারতের মধ্যে যে সম্পর্ক বজায় আছে, তা বিশ্বে এক রোল মডেল। বহু বছর ধরে আমাদের মধ্যে বিদ্যমান পারস্পরিক বিশ্বাস, শ্রদ্ধাবোধ এবং সুনামের কারণে সম্পর্ক পরিপক্বতা পেয়েছে। এই সুসম্পর্ক আমাদের দৃঢ় আস্থার সঙ্গে সমৃদ্ধির পথে এগিয়ে নিয়ে যেতে সাহায্য করেছে।’ পাশাপাশি ভারতের প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, ‘আজ থেকে আমরা আরো কাছাকাছি এলাম।’ গত সোমবার বিকেলে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ৫০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ প্রকল্প, রেলওয়ের ‘কুলাউড়া-শাহবাজপুর সেকশন পুনর্বাসন’ ও ‘আখাউড়া-আগরতলা ডুয়েল গেজ রেল সংযোগ নির্মাণ’ প্রকল্পের নির্মাণকাজ উদ্বোধনকালে দুই প্রধানমন্ত্রী এ কথাগুলো উল্লেখ করেন।

মিয়ানমার থেকে ১১ লাখ রোহিঙ্গাকে আশ্রয় দিয়ে বাংলাদেশের মতো একটি উন্নয়নশীল দেশ যে মানবতার উদাহরণ সৃষ্টি করেছে তাও এখন বিশ্বদরবারে একটি রোল মডেল হিসেবে প্রতিদ্বন্দ্বিত হচ্ছে। জাতিসংঘসহ বিশ্বের অধিকাংশ দেশ এ প্রশ্নে বাংলাদেশের পাশে দাঁড়িয়েছে। আমরা এখন একটি মধ্যম আয়ের দেশ হতে চলেছি। একসময় এই বাংলাদেশকে ‘তলাবিহীন ঝুড়ি’ বলে ব্যঙ্গ করতে যেসব দেশ কোনো কার্পণ্য করেনি আজ সেসব দেশকে কিছু বলতে হলে সমীহ করেই বলতে হচ্ছে। এ মুহূর্তে বাংলাদেশ ব্যাংকে বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভের পরিমাণ ৩২ দশমিক ৯৭ বিলিয়ন ডলার। শূন্য রিজার্ভ থেকে এই বিলিয়ন ডলারে উল্লম্ফনের ঘটনাকে একটি বিরল ঘটনা হিসেবে চিহ্নিত করা যেতে পারে। বিশেষ করে একটি সদ্য স্বাধীন দেশ এত অল্প সময়ের মধ্যে যে উন্নয়ন সাধন করেছে তা অনেক দেশের জন্য অনুকরণীয় হতে পারে। বিশেষ করে বিশ্বব্যাংকের অনুদানকে উপেক্ষা করে বাংলাদেশ যখন নিজস্ব অর্থায়নে পদ্মা সেতুর মতো একটি বিশাল বাজেটের প্রকল্প বাস্তবায়নে সক্ষম; তখন তার সক্ষমতা প্রমাণের আর প্রয়োজন নেই। দেশ তার আপন গতিতে এগিয়ে যাবে এবং যাচ্ছেÑ এটাই বাস্তবতা। বাস্তবতার আরো একটি চিত্র জিডিপি, যা এখন অনেকের জন্য ঈর্ষণীয়।

রোল মডেলের আরো উপমা দেওয়া যেতে পারে। আমাদের নারীশিক্ষা এবং নারীর ক্ষমতায়ন এখন বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় কয়েকটি দেশের পাশে স্থান করে নিয়েছে। সন্ত্রাস দমনে বাংলাদেশ আজ এমন একপর্যায়ে উপনীত হয়েছে; যা অনেক দেশের জন্য অনুকরণীয় হতে পারে। সুতরাং এ মুহূর্তে এ কথা নির্দ্বিধায় বলা যায় যে, বাংলাদেশ আজ অর্থনৈতিক, সামাজিক ও কূটনৈতিক পেরিফেরিতে যে সাফল্য দেখিয়েছে তাকে সাধুবাদ জানাতেই হয়। আমরা মনে করি, শুধু সম্পর্কের ক্ষেত্রে নয়; এধারা অব্যাহত থাকলে আগামীর কোনো একসময় বাংলাদেশ বিশ্ব মানচিত্রে শান্তি ও সমৃদ্ধির দেশ হিসেবে একটি মডেলে পরিণত হবে।

"