জালনোটের আতঙ্ক

প্রকাশ : ১০ জুন ২০১৮, ০০:০০

অনলাইন ডেস্ক

জীবনানন্দ দাশ দুদ- শান্তির খোঁজে নাটোরের বনলতা সেনের কাছে গিয়েছিলেন। তিনি সেখানে শান্তির খোঁজ পেয়েছিলেন কি না আমাদের জানা নেই। কিন্তু তিনি তার কবিতায় বলেছেন, ‘বনলতা সেন তাকে দুদ- শান্তি দিয়েছিল।’ অনেকের মতে, কবি সারাজীবন ধরে এই বনলতা সেনের খোঁজে পথ হেঁটেছেন। কিন্তু তার সঙ্গে এক মুহূর্তের জন্যও দেখা হয়নি। তবে কবির কল্পনায় যে বনলতা সেন, তার উপস্থিতিকে উড়িয়ে দেওয়ার সাহস কারো নেই। সাধারণ মানুষের সঙ্গে কবির যন্ত্রণার একাত্মতা আজ বিশ্বব্যাপী আলোচিত। সেই একই যন্ত্রণা বুকে নিয়ে আমরাও যেন বনলতার খোঁজেই পথ চলেছি। এ চলার কোনো শেষ নেই। রাজা আসে রাজা যায়, মাঝপথে রাজা বদলেছে। বদলায়নি শুধু শাসন আর শোষণ। সাতচল্লিশে একবার বদলাতে দেখেছি। একাত্তরেও দেখলাম। রাজা বদলের দৃশ্যাবলিও দেখলাম। দেখলাম না শুধু বনলতা সেনকে। এটাই বাস্তবতা। সাধারণ নিয়মে এ অঙ্কের সমাধান সম্ভব নয়। এ অঙ্কের সমাধান পেতে হলে প্রয়োজন হবে জীবনানন্দের চোখ। যে চোখের আগুনে সমাজের সব আবর্জনা পুড়ে ছাই হবে। ভেজালসর্বস্ব লোকরা করবে আত্মসমর্পণ।

না, তারা আত্মসমর্পণ করেনি। হৃদয়ের প্রতিটি স্পন্দনের সঙ্গে চক্রবৃদ্ধিহারে বাড়িয়ে চলেছেন ভেজালের বায়োনিক প্রবৃদ্ধি। তারই ধারাবাহিকতায় ঈদের বাজারে জালনোট ছাড়ার প্রক্রিয়ায় সক্রিয় অপরাধী চক্র। পুলিশ কোটি টাকার জালনোটসহ প্রতারক চক্রের ১০ সদস্যকে গ্রেফতার করে। আটক করেছে জালনোট তৈরির সরঞ্জাম, নিরাপত্তা সুতা, প্রিন্টার ও ল্যাপটপ। ঈদের বাজারকে সামনে রেখে এদের তৎপরতা বেড়েছে বলে মনে করছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। তাদের মতে, জালনোট তৈরিতে রাজধানীর বিভিন্ন স্থানে গোপনে কারখানা গড়ে তুলেছে একাধিক চক্র। সাধারণ মানুষকে পুলিশ সতর্কাবস্থায় থাকার পরামর্শ দিয়েছে। তারা বলেছে, রোজা ও ঈদবাজারে লেনদেনের সময় এ সতর্কতা বিশেষভাবে প্রযোজ্য।

সময় বদলেছে। বদলায়নি সমাজ। আর সে কারণেই জীবনানন্দের বোধেরা এখন অনেকটা অসহায়। লুটেরা পুঁজির জাঁতাকলে পড়ে হারিয়ে যাচ্ছে প্রেম। করপোরেট প্রেমে সয়লাপ হয়ে বাংলাদেশ এখন বাণিজ্যিক প্রেম ক্রয়-বিক্রয়ের পথে পা বাড়িয়েছে। আর দেশপ্রেম শব্দটি অনেকটা সেকেলে হয়ে পড়ে আছে গোয়ালঘরের পরিত্যক্ত এলাকায়। আমরা কেউই হয়ে উঠতে পারিনি জীবনানন্দের সেই বিখ্যাত কবিতা ‘কমলালেবু হয়ে উঠতে’। কমলালেবুর পুরোটাই হচ্ছে একটি বোধ। এ বোধের পুনর্বিস্ফোরণ না হওয়া পর্যন্ত আমাদের যেন কোনো মুক্তি নেই। যে বোধ আমরা দেখেছি মহান মুক্তিযুদ্ধে, উনিশশো একাত্তরে। জীবনানন্দের ‘কমলালেবু’তে।

"