নদী রক্ষার অঙ্গীকার নিয়ে ইউল্যাবে এসএসইএএসআর সম্মেলন

প্রকাশ : ১৮ জুন ২০১৯, ০০:০০

অনলাইন ডেস্ক

ইউনিভার্সিটি অব লিবারেল আর্টস বাংলাদেশে (ইউল্যাব) শুরু হলো ৮ম এসএসইএএসআর আন্তর্জাতিক সম্মেলন-২০১৯। এ বছরের সম্মেলনের প্রতিপাদ্য বিষয় হলো ‘নদী ও ধর্ম : দক্ষিণ ও দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার সাংস্কৃতিক সম্পর্ক’। ১৩ জুন বৃহস্পতিবার দুপুরে ইউল্যাবের মিলনায়তনে এই সম্মেলনের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন হয়। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি এমপি এবং সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ভারতীয় দূতাবাসের হাইকমিশনার মিসেস রিভা গাঙ্গুলি দাস।

ইউল্যাবে আয়োজিত বাংলাদেশে এই সম্মেলনের গুরুত্ব তুলে ধরে করে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেন, এ সম্মেলনে গবেষকদের সম্মিলিত চিন্তার মধ্য দিয়ে আমরা এগিয়ে যাবার পথ খুঁজে পাব। তিনি আরো বলেন, পৃথিবীর সব সভ্যতাই নদীতীরে গড়ে উঠেছে। নদী ঘিরেই মানবসভ্যতা এগিয়ে গেছে, বাংলাদেশও এর ব্যতিক্রম নয়। তিনি বাংলাদেশে আগত গবেষক ও আয়োজকদের ধন্যবাদ জানান।

তিনি এমন একটি আন্তর্জাতিক মানের সম্মেলনকে বাংলাদেশে আয়োজন করার জন্য ইউল্যাব কর্তৃপক্ষকে অভিনন্দন জানান এবং চার দিনব্যাপী এ সম্মেলনের সাফল্য কামনা করেন। উদ্বোধনী অধিবেশনের সম্মানিত অতিথি ভারতের হাইকমিশনার রিভা গাঙ্গুলি দাস দুই দেশের মধ্যে সাংস্কৃতিক মিলগুলো তুলে ধরে বলন, এই সম্মেলন দক্ষিণ ও দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার সাংস্কৃতিক যোগাযোগ আরো দৃঢ় করবে। শিক্ষামন্ত্রী আমন্ত্রিত অতিথিদের নিয়ে প্রদীপ প্রজ্বালনের মাধ্যমে সম্মেলনের আনুষ্ঠানিক উদ্ববোধন করেন।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ইউল্যাবের উপাচার্য অধ্যাপক ড. এইচ এম জহিরুল হক শুভেচ্ছা বক্তব্য প্রদান করেন। মূল প্রবন্ধ উপস্থাপক হিসেবে বক্তব্য দিয়েছেন ভারতের জাতীয় জাদুঘরের মহাপরিচালক ও ভারত সরকারের সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন এনএমআইয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. বি আর মানী।

অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রেখেছেন সম্মেলনের সভাপতি ও ইউল্যাবের সেন্টার ফর আর্কিওলজিক্যাল স্টাডিসের পরিচালক অধ্যাপক ড. শাহনাজ হুসনে জাহান ও এসএসইএএসআরের সভাপতি অধ্যাপক ড. অমরজিভ লোচন, বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয়য় মঞ্জুরি কমিশনের সদস্য প্রফেসর ড. সাজ্জাদ হোসেন। ইউল্যাব বোর্ড অব ট্রাস্টিজের বিশেষ উপদেষ্টা অধ্যাপক ইমরান রহমানের ধন্যবাদ জ্ঞাপনের মধ্য দিয়ে সম্মেলনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের সমাপ্তি হয়।

১৩ থেকে ১৬ জুন পর্যন্ত চার দিনব্যাপী এই আন্তর্জাতিক সম্মেলনে বিশ্বের ৩০ দেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ও গবেষকগণ ১৫টি শিরোনামের অধীনে ৩৭টি প্যারালাল সেশনের মাধ্যমে মোট ১৭০টি গবেষণা প্রবন্ধ পাঠ করবেন। আয়োজকরা আশা প্রকাশ করেন এই সম্মেলনের মাধ্যমে শতাধিক দেশি ও বিদেশি বিশেষজ্ঞের উপস্থিতিতে দক্ষিণ ও দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ায় ধর্ম ও সংস্কৃতিবিষয়ক গবেষণায় বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে একটি টেকসই ও কার্যকর যোগাযোগ তৈরি হবে; যা বাংলাদেশের জন্য আন্তর্জাতিক একাডেমিক পরিমন্ডলে নিজেদের তুলে ধরার একটি সুবর্ণ সুযোগ। এই সম্মেলনকে সাফল্যমন্ডিত করার জন্য লোকশিল্প মেলা, বই মেলা এবং ইউল্যাবের ছাত্রদের ‘বাংলাদেশের নদী’ শিরোনামে আলোকচিত্র প্রদর্শনী ও ‘গ্রুপ টেম্পল অব পুঠিয়া’ শিরোনামে আলোকচিত্র প্রদর্শনীর আয়োজন করা হয়েছে। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে দেশের ও বিদেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-গবেষক এবং ইউল্যাবের বিভিন্ন বিভাগের প্রধান, শিক্ষক, শিক্ষার্থী, কর্মকর্তা উপস্থিত ছিলেন। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি।

"