ব্লাস্ট-ইবির সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর

প্রকাশ : ১১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০০:০০

অনলাইন ডেস্ক
ama ami

বাংলাদেশ লিগ্যাল এইড অ্যান্ড সার্ভিসেস ট্রাস্টের (ব্লাস্ট) সঙ্গে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) একটি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হয়েছে। ২৭ জানুয়ারি রোববার সকালে উপাচার্য অধ্যাপক ড. হারুন-উর-রশিদ আসকারীর কার্যালয়ে এ সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হয়।

কার্যালয় সূত্রে জানা যায, ব্লাস্টের পক্ষে সমঝোতা স্মারকে স্বাক্ষর করেন বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগের সাবেক বিচারপতি ও ব্লাস্টের মুখ্য আইন উপদেষ্টা নিজামুল হক নাসিম এবং ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষে স্বাক্ষর করেন ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার এসএম আব্দুল লতিফ। এ সময় উপাচার্য অধ্যাপক ড. হারুন-উর-রশিদ আসকারী উপস্থিত ছিলেন।

এ ছাড়াও উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. শাহিনুর রহমান, আইন বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক ড. জহুরুল ইসলাম, ইইই বিভাগের অধ্যাপক ড. মাহবুবর রহমান, আইন বিভাগের শিক্ষক অধ্যাপক ড. হালিমা খাতুন, ব্লাস্টের কুষ্টিয়া ইউনিটের কো-অর্ডিনেটর শংকর মজুমদার, ব্লাস্টের ট্রেনিং কো-অর্ডিনেটর শাহ আলম ও রিসার্চ স্পেশালিস্ট ব্যারিস্টার আব্দুল্লাহ আনবর আনন তিতির প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

সুইডিশ অর্থায়নে ব্লাস্টের চজওঞওঊ (ঢ়ৎড়সড়ঃরহম জরমযঃং ঞযৎড়ঁময ওহপষঁংরড়হ ধহফ ঊসঢ়ড়বিৎসবহঃ) প্রকল্প বাংলাদেশের ছয়টি সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে বাস্তবায়নের প্রাথমিক ধাপ হিসেবে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে এই সমঝোতা চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। প্রকল্পটি ২০২০ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত চলবে।

প্রকল্পের মাধ্যমে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন, ল অ্যান্ড ল্যান্ড ম্যানেজমেন্ট ও সমাজকর্ম বিভাগের ৪০ জন শিক্ষার্থী আইন, মানবাধিকার, স্বাস্থ্য ও যৌন, স্বাস্থ্য এবং অধিকারবিষয়ক ধারণা অর্জন করবে।

এদিকে সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হওয়ার পর ব্লাস্ট এবং ইবি যৌথ আয়োজনে আইন বিভাগে ‘লাভ লাইফ অ্যান্ড ল’ শীর্ষক সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়। সেমিনারের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগের সাবেক বিচারপতি ও ব্লাস্টের মুখ্য আইন উপদেষ্টা মো. নিজামুল হক নাসিম উপস্থিত ছিলেন।

উপাচার্য অধ্যাপক ড. হারুন-উর-রশিদ আসকারীর সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. শাহিনুর রহমান ও আইন অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. রেবা মন্ডল উপস্থিত ছিলেন। আইন বিভাগের সভাপতি ও ইবি সেফ স্পেস গ্রুপের উপদেষ্টা অধ্যাপক ড. জহুরুল ইসলাম অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন।

প্রধান অতিথির বক্তৃতায় সাবেক বিচারপতি মো. নিজামুল হক নাসিম বলেন, আমাদের সমাজে ভাইবোন, পিতা-মাতা, সন্তান-সন্ততি, বন্ধুবান্ধব থেকে শুরু করে যত প্রকার সম্পর্ক আছে সেটাকে ভালো রাখা, পবিত্র রাখা এবং সম্পর্কটাকে উন্নয়ন করে আমাদের দেশকে সুখী-সমৃদ্ধ হিসেবে গড়ে তোলার উদ্দেশ্য নিয়েই ব্লাস্ট কাজটি শুরু করেছে।

তিনি আরো বলেন, ‘আমরা পত্রপত্রিকা খুললেই দেখি ধর্ষণ, শিশুদের ওপর অত্যাচার, মারপিটের ছাড়াছড়ি। তবে সরকার খুব শক্ত হাতে এগুলো দমন করার পদক্ষেপ নিয়েছে। এ-সংক্রান্ত কিছু মামলায় আমরা সফলতা পেয়েছি, তারপরও বলব, আমাদের সবচেয়ে বড় প্রয়োজন হলো, সমাজের প্রতিটি মানুষকে এ ইস্যুগুলো সম্পর্কে সচেতন করা। তারা যেন এ সম্পর্কিত বিধিবিধান মেনে চলেন এবং কেউ যেন এ অন্যায়গুলো করতে না পারে বা সমর্থন না করেন; সেদিকে আমাদের নজর দিতে হবে।’

সভাপতির বক্তব্যে উপাচার্য অধ্যাপক ড. হারুন-উর-রশিদ বলেন, আমরা আনন্দিত যে ব্লাস্টের মতো প্রতিষ্ঠান এ ধরনের উদ্যোগে সহযোগী হয়েছে। এটি এ বিশ্ববিদ্যালয়ে নতুন সময়ের সূচনা করেছে। আমরা এগিয়ে যেতে চাই। আমরা বিশ্বের আইন ও আইনবিহীনতার ইতিহাস জানি। আইন হচ্ছে সেই সভ্যতার প্রতীক যা আইনবিহীনতায় নিয়ম তৈরির মাধ্যমে জীবন, সমাজ ও মানবতাকে অর্থবহ করে। আইনের উদ্ভবের পেছনেই বিশ্বের সকল ইতিবাচক ঘটনার জন্ম।

বিশেষ অতিথি উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. শাহিনুর রহমান বলেন, ‘আইন প্রতিটি প্রাণীর জন্য প্রযোজ্য একটি বিষয়। যেখানে আইন নেই সেখানে কোনো কাজই সঠিকভাবে সম্পন্ন হতে পারে না। আইন হলো একটি দায়িত্বশীলতা যা আমাদের প্রত্যেকের করণীয় নির্ধারণ করে দেয়। এই দায়িত্বশীলতা উন্নয়নের পূর্ব শর্ত।’

অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন ল’ অ্যান্ড ল্যান্ড ম্যানেজমেন্ট বিভাগের প্রভাষক বনানী আফরিন। সেমিনারে বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন, ল’ অ্যান্ড ল্যান্ড ম্যানেজমেন্ট এবং সোশ্যাল ওয়ার্ক বিভাগের শিক্ষার্থীরা অংশ নেয়। সেমিনারে নারীদের ক্ষমতায়ন, মানবাধিকার, লিঙ্গবৈষ্ণম্য, নারী নির্যাতনসহ বিভিন্ন আইন সংক্রান্ত বিষয়ে আলোচনা হয়। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি।

"