ইংরেজি ভাষা নিয়ে ইউল্যাবের বিশেষ সেমিনার

প্রকাশ : ১৮ অক্টোবর ২০১৮, ০০:০০

অনলাইন ডেস্ক

বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় ইউনিভার্সিটি অব লিবারেল আর্টস বাংলাদেশ (ইউল্যাব)-এর ইংরেজি বিভাগ ও ঢাকার আমেরিকান সেন্টারের যৌথ উদ্যোগে ‘ইভালুয়েটিং সেকেন্ডারি স্কুল ইংলিশ ল্যাংগুয়েজ টিচিং অ্যান্ড লার্নিং’ রিসার্চ প্রজেক্টের সমাপনী অনুষ্ঠিত হলো। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন, তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সাবেক উপদেষ্টা ও গণসাক্ষরতা অভিযানের নির্বাহী পরিচালক রাশেদা কে চৌধুরী। ১৩ অক্টোবর শনিবার রাজধানীর স্পেকট্রা কনভেনশন সেন্টারে এই আয়োজনের সমাপনী অনুষ্ঠিত হয়। প্রধান অতিথির বক্তব্যে রাশেদা কে চৌধুরী বলেন, বিশ্বে একটি চাহিদা তৈরি করা হয়েছে অন্য ভাষার। তাই অন্য ভাষা শেখার প্রতি জোর দেওয়া উচিত। তিনি আরো বলেন, সবকিছুতেই একটা আমূল পরিবর্তন এসেছে। আমাদের মোবাইল ফোনগুলো দেখলেই বুঝা যায়। বর্তমানে এই ধরনের মোবাইল ফোনের চাহিদা প্রচুর। এখন আপনি বাংলা জানেন এবং ইংরেজি শিখছেন। কারণ, বিশ্বে একটি চাহিদা তৈরি করা হয়েছে অন্য ভাষার। কিন্তু আমরা এখনো পরিপূর্ণ হয়ে উঠতে পারিনি। তাই আমাদের অন্য ভাষা শেখার প্রতিও গুরুত্ব দিতে হবে। এ সময় তিনি ইউল্যাবকে এ ধরনের উদ্যোগের জন্য ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন আমেরিকান সেন্টারের কালচারাল অ্যাফেয়ার্স অফিসার কেলি রায়ান। এ ছাড়া অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন ইউল্যাবের উপাচার্য অধ্যাপক ড. জহিরুল হক, ইউল্যাবের উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. শামসাদ মর্তুজা, প্রজেক্ট কো-অর্ডিনেটর ড. মাহমুদ হাসান খান প্রমুখ।

উল্লেখ্য, ‘ইভালুয়েটিং সেকেন্ডারি স্কুল ইংলিশ ল্যাংগুয়েজ টিচিং অ্যান্ড লার্নিং’ শীর্ষক প্রজেক্টটির মূল বিষয়বস্তু হলো মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও মাদ্রাসাগুলোর পরিবেশ, পরিস্থিতি এবং ভবিষ্যৎ বিষয়ে পর্যালোচনা করা। এক বছর মেয়াদি এই প্রজেক্টের সঙ্গে জড়িত ছিল দেশের ৩০টি স্কুল ও ১০টি মাদরাসার ৬০ জন শিক্ষক-শিক্ষিকা। অনুষ্ঠানে সব শিক্ষকগণ উপস্থিত অতিথিদের কাছ থেকে সার্টিফিকেট গ্রহণ করেন।

এ ছাড়াও, ইউল্যাবের ইংরেজি বিভাগের প্রভাষক নাজাহ ফারহাতের ‘ভোকাবুলারি কন্টেন্ট ডেভেলপমেন্ট : এ মাল্টিমডেল এপ্রোচ’ বিষয়ক একটি সেশন অনুষ্ঠিত হয়, যেখানে দেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের ডিকশনারি ছাড়াই ভিন্ন উপায়ে ইংলিশ ভোকাবুলারির দক্ষতা অর্জনের জন্য একটি অ্যাপ্লিকেশন ও প্রোজেক্ট উপস্থাপন করেন। এই অ্যাপটি উদ্বোধন করেন আমেরিকান সেন্টারের কালচারাল অ্যাফেয়ার্স অফিসার কেলি রায়ান। এ সময় ইন্টার-ইউনিভার্সিটি ভোকাবুলারি কম্পিটিশনের বিজয়ীদের হাতে ক্রেস্ট ও সনদ তুলে দেওয়া হয়। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি।

"