ঢাবিতে ‘কালো দিবস’ পালিত

‘কোনো প্রতিষ্ঠানের ওপর আঘাত কোনোভাবেই আমাদের কাম্য নয়’

প্রকাশ | ০৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০০:০০

অনলাইন ডেস্ক

‘কালো দিবস’ উপলক্ষে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ৩ সেপ্টেম্বর সোমবার এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। বেলা ১১টায় বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্র মিলনায়তনে উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামানের সভাপতিত্বে ওই আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

সভায় প্রো-ভাইস চ্যান্সেলর (প্রশাসন) অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ সামাদ, কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. মো. কামালউদ্দীন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. এ এস এম মাকসুদ কামাল, সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক শিবলী রুবাইয়াতুল ইসলাম, কারা নির্যাতিত শিক্ষক ও মুক্তিযোদ্ধা কমান্ড ইউনিটের পক্ষ থেকে অধ্যাপক ড. আনোয়ার হোসেন, অফিসার্স অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি সৈয়দ আলী আকবর, তৃতীয় শ্রেণি কর্মচারী সমিতি, কারিগরি কর্মচারী সমিতি, চতুর্থ শ্রেণি কর্মচারী ইউনিয়নের নেতারাসহ প্রমুখ বক্তব্য দেন। এ ছাড়া নির্যাতিত একজন ছাত্র ও বর্তমানে বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্রের কর্মকর্তা মো. রফিকুল ইসলাম এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রদের পক্ষ থেকে সাদ্দাম হোসেন বক্তব্য দেন। আলোচনা সভা পরিচালনা করেন ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার মো. এনামউজ্জামান। সভাপতির বক্তব্যে উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান বলেন, ইতিহাসের একটি চলমানতা আছে এবং সেই লক্ষ্যে নতুন প্রজন্মকে সেই দিনগুলোর কথা স্মরণ করিয়ে দিতে এই আলোচনা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। ২০০৭ সালের এই দিনে বিশ্ববিদ্যালয় পরিবার তথা আবাসিক ছাত্রদের ওপর অমানবিক নির্যাতন করা হয়েছে এবং চারজন শিক্ষককেও গ্রেফতার করা হয়েছিল। কোনো প্রতিষ্ঠানের ওপর আঘাত কোনোভাবেই আমাদের কাম্য নয়। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি ঐতিহাসিক গুরুত্ব রয়েছে, এই বিশ্ববিদ্যালয় গণতন্ত্রের সূতিকাগার। স্বৈরাচারী দৃষ্টিভঙ্গি কিংবা অগণতান্ত্রিক যেকোনো কিছুর বিরুদ্ধে নিয়মতান্ত্রিক পদ্ধতিতে সাহসী কথা বলার ইতিহাস ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রয়েছে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের দৃষ্টিভঙ্গি মানবতাবাদী ও উদার নৈতিক, যা সব সময়ই জয়ী হয়েছে। এখান থেকে শিক্ষা নিয়ে আমরা নিজ নিজ অবস্থানে কাজ করব, এটিই হোক আজকের দিনের প্রত্যয়। দিবসটি উপলক্ষে সকালে অপরাজেয় বাংলার পাদদেশে ‘২০০৭ সালের ২৩ আগস্ট সেনাসমর্থিত তত্ত্বাবধায়ক সরকার কর্তৃক ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-শিক্ষকদের ওপর নির্যাতনের বিচারের দাবিতে’ এক মানববন্ধন পালন করা হয়। মানববন্ধনে প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন প্রো-ভাইস চ্যান্সেলর (প্রশাসন) অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ সামাদ। এ ছাড়া কালো দিবস উপলক্ষে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, কর্মকর্তা, কর্মচারী ও ছাত্রছাত্রীরা কালো ব্যাজ ধারণ করেন। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি।

 

"