আবক্ষ ভাস্কর্য উদ্বোধন অনুষ্ঠানে চবি ভিসি

মাস্টারদা সূর্যসেনের আদর্শ জাতির ইতিহাসে চির ভাস্বর

প্রকাশ : ১৩ আগস্ট ২০১৮, ০০:০০

অনলাইন ডেস্ক

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় বনবিদ্যা ও পরিবেশ বিজ্ঞান ইনস্টিটিউটের ২৪তম ব্যাচের শিক্ষার্থীদের উদ্যোগে মাস্টারদা সূর্যসেন হলে ব্রিটিশবিরোধী আন্দোলনের পুরোধা বিপ্লবী মাস্টারদা সূর্যসেনের আবক্ষ ভাস্কর্য উদ্বোধন অনুষ্ঠান ২ আগস্ট বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে ১১টায় বনবিদ্যা ও পরিবেশ বিজ্ঞান ইনস্টিটিউ অডিটোরিয়ামে অনুষ্ঠিত হয়।

এতে প্রধান অতিথি থেকে ভাস্কর্যের উদ্বোধন করেন চবি উপাচার্য প্রফেসর ড. ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরী। চবি মাস্টারদা সূর্যসেন হলের প্রভোস্ট প্রফেসর ড. খালেদ মিসবাহুজ্জানের সভাপতিত্বে এবং সহকারী অধ্যাপক রাজশ্রী নন্দীর পরিচালনায় আলোচনা অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন ইনস্টিটিউটের পরিচালক প্রফেসর ড. মো. দানেশ মিয়া, চবি প্রক্টর মোহাম্মদ আলী আজগর চৌধুরী, ২৪তম ব্যাচের শিক্ষার্থী আসাদুজ্জামান নূর এবং ইনস্টিটিউটের এম এস শিক্ষার্থী নিলুৎফার সরকার। উপাচার্য বীর চট্টলার কৃতী সন্তান এ উপমহাদেশের স্বাধীনতাপিয়াসী মুক্তিকামী নির্যাতিত-নিপীড়িত গণমানুষের পথপ্রদর্শক ব্রিটিশবিরোধী আন্দোলনের অন্যতম প্রাণপুরুষ বিপ্লবী মাস্টারদা সূর্যসেনের স্মৃতির প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। তিনি বলেন, এ বিপ্লবী মহান নেতার স্বদেশপ্রেম ও নির্ভীক আদর্শ ধারণ করে মহাকালের মহানায়ক জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সুযোগ্য-বলিষ্ঠ নেতৃত্বে সুদীর্ঘ স্বাধীনতা সংগ্রাম-আন্দোলন সর্বোপরি ১৯৭১ এ মহান মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে বীর বাঙালি বিশ্ব মানচিত্রে প্রতিষ্ঠা করেছে স্বাধীন-সার্বভৌম বাংলাদেশ। তাই মাস্টারদা সূর্যসেনের ত্যাগ-আদর্শ এ জাতির ইতিহাসে চির ভাস্বর। উপাচার্য প্রজন্মের সন্তানদের মাস্টারদা সূর্যসেনের আদর্শ ধারণ করে স্বদেশপ্রেমে উজ্জীবিত হওয়ার আহ্বান জানান এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের ২৪তম ব্যাচের শিক্ষার্থীদের এ মহতী উদ্যোগ গ্রহণ ও বাস্তবায়নের জন্য বিশেষ ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন। পূর্বাহ্নে উপাচার্য উপস্থিত সবাইকে নিয়ে মাস্টারদার আবক্ষ ভাস্কর্য উদ্বোধন করেন। অনুষ্ঠানে চবি রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) কে এম নূর আহমদ, ইনস্টিটিউটের সহকারী অধ্যাপক ড. শ্যামল কর্মকার, ম. ম আবদুল্লাহ আল মামুন, আখতার হোসেন, সহকারী প্রক্টর হেলাল উদ্দিন আহম্মদ ও লিটন মিত্র, প্রধান প্রকৌশলী মো. আবু সাঈদ হোসেন, চবি সাংবাদিক সমিতির সভাপতি বাইজিদ ইমন ও সমিতির সদস্য এবং ইনস্টিটিউট ও হলের কর্মকর্তা-কর্মচারী ও বিপুলসংখ্যক শিক্ষার্থী উপস্থিত ছিলেন।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তি।

"