‘সত্য-সুন্দর-আনন্দ-মঙ্গল সংস্কৃতির অন্যতম বাহন’

প্রকাশ : ১১ জুলাই ২০১৮, ০০:০০

অনলাইন ডেস্ক

স্কুল অব ওরিয়েন্টাল ডান্স চট্টগ্রামের উদ্যোগে এবং চট্টগ্রামের ভারতীয় সহকারী হাইকমিশনের সহযোগিতায় ৬ জুলাই শুক্রবার সন্ধ্যা ৭টায় চট্টগ্রাম শিল্পকলা একাডেমিতে দুদিনব্যাপী নৃত্যোৎসব, ভরতনাট্যম ও রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের গীতিনাট্য ‘মায়ার খেলা’ অনুষ্ঠান শুরু হয়।

এতে প্রধান অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) উপাচার্য প্রফেসর ড. ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরী। অনুষ্ঠান উদ্বোধন করেন চট্টগ্রামের ভারতীয় দূতাবাসের সহকারী হাইকমিশনার অনিন্দ্য ব্যানার্জি। এতে বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন বাংলাদেশ নৃত্যশিল্পী সংস্থার চট্টগ্রামের সভাপতি শারমিন হোসেন, চট্টগ্রাম জেলা শিল্পকলা একাডেমির কালচারাল অফিসার মোসলেম উদ্দিন সিকদার ও চট্টগ্রামের ভারতীয় সহকারী হাইকমিশনারের সহধর্মিণী রুনা ব্যানার্জি। এতে সম্মানিত অতিথির বক্তব্য দেন অলিয়ঁস ফ্রঁসেজের চট্টগ্রামের পরিচালক ড. সেলভাম থরেজ।

ড. ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরী বলেন, সত্য-সুন্দর-আনন্দ-মঙ্গল এ চারটি সংস্কৃতির অন্যতম বাহন। সংগীত-নৃত্যকলা-নাট্যকলা এ সব উপাদান বাঙালি সংস্কৃতিকে করেছে পরিপুষ্ট। তিনি আরো বলেন, জঙ্গি-সন্ত্রাস-মাদককে পদদলিত করে আমাদের তরুণসমাজকে সৃজনশীল কর্মকা-ে সম্পৃক্ত হতে হবে। উপাচার্য জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর নৈতিক আদর্শ ও মহান মুক্তিযুদ্ধের অসাম্প্রদায়িক-গণতান্ত্রিক-মানবিক-নান্দনিক সমাজ বিনির্মাণে তরুণসমাজকে সংস্কৃতিচর্চার উপাদানসমূহ ধারণ করে আলোর পথের দিশারি হওয়ার আহ্বান জানান। প্রসঙ্গক্রমে উপাচার্য চট্টগ্রামের ভারতীয় দূতাবাসের সাবেক সহকারী হাইকমিশনার সোমনাথ হালদারের আকস্মিক মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করে বলেন, সংস্কৃতিমনা এ ব্যক্তি চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় তথা চট্টগ্রামের সাংস্কৃতিক অঙ্গনের একটি পরিচিত মুখ ছিলেন। বর্তমান সহকারী হাইকমিশন ও অলিয়ঁস ফ্রঁসেজ একইভাবে চট্টগ্রামের শিল্প-সাংস্কৃতিকচর্চা ও বিকাশে অবদান রাখবেন উপাচার্য এ প্রত্যাশা ব্যক্ত করেন।

অনুষ্ঠান নির্দেশনা ও সার্বিক দায়িত্ব পালন করেন বরেণ্য নৃত্যশিল্পী চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় সংগীত বিভাগের প্রভাষক (খ-কালীন) শুভ্রা সেনগুপ্তা। অনুষ্ঠান উপস্থাপনা করেন সংস্কৃতিকর্মী মোজাহিদুল ইসলাম ও শ্রাবণী দাশগুপ্তা। অনুষ্ঠানে বিপুলসংখ্যক দর্শক-শ্রোতা উপস্থিত ছিলেন। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি।

"