ডিআইইউ স্কয়ার গ্রুপের ‘স্পট রিক্রুটমেন্ট অব মেডিকেল স্ক্রাইব’ কর্মসূচি

প্রকাশ : ১২ জুন ২০১৮, ০০:০০

অনলাইন ডেস্ক

ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি (ডিআইইউ) ও দেশের শীর্ষস্থানীয় স্কয়ার গ্রুপের সহযোগী প্রতিষ্ঠান এসআইটুয়ের যৌথ আয়োজনে ৫ জুন মঙ্গলবার ইউনিভার্সিটির ৭১ মিলনায়তনে ‘স্পট রিক্রুটমেন্ট অব মেডিকেল স্ক্রাইব’ কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়েছে। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন ড্যাফোডিল ইউনিভার্সিটির উপাচার্য অধ্যাপক ড. ইউসুফ মাহবুবুল ইসলাম। বিশ্ববিদ্যালয়ের অ্যালাইড হেলথ সায়েন্স অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. আহমেদ ইসমাইল মোস্তফার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত কর্মসূচিতে রিসোর্স পার্সন হিসেবে উপস্থিত ছিলেন স্কয়ার হাসপাতাল ও এসআইটুয়ের প্রধান প্রশাসনিক কর্মকর্তা (সিএও) মো. ইসাম ইবনে ইউসুফ সিদ্দিকী। সেমিনারে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন স্কয়ার হাসপাতাল ও এসআইটুয়ের মহাব্যবস্থাপক (মানবসম্পদ) নওশাদ পারভেজ, অপারেশন ইনচার্জ মো. নাজমুল হোসেন, সমন্বয়ক (বিজনেস ডেভেলপমেন্ট) জোসেফিন আলেক্সান্ডার, এসআইটুয়ের সমন্বয়ক মাহমুদুল হাসান, মেডিকেল স্ক্রাইব হেমায়েতুল হক নাঈম ও ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির ক্যারিয়ার ডেভেলপমেন্ট সেন্টারের পরিচালক আবু তাহের খান। সেমিনারটি সঞ্চালনা করেন ক্যারিয়ার ডেভেলপমেন্ট সেন্টারের প্রশাসনিক কর্মকর্তা আল শাফায়েত। এসআইটুতে মেডিকেল স্ক্রাইব পদে কর্মী নিয়োগের উদ্দেশ্যে এ কর্মসূচির আয়োজন করা হয়। এতে আগ্রহী শিক্ষার্থীরা জীবনবৃত্তান্ত জমা দেন এবং সেমিনার শেষে এক ঘণ্টার একটি বহুনির্বাচনী পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেন। পরীক্ষায় উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীদের পরে মৌখিক পরীক্ষার জন্য আহ্বান জানাবে এসআইটু এবং মৌখিক পরীক্ষায় চূড়ান্তভাবে উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীদের জন্য ১৮ সপ্তাহের একটি প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করবে এসআইটু। সবশেষে সফলভাবে প্রশিক্ষণ সম্পন্নকারীদের মেডিকেল স্ক্রাইব পদে নিযোগ দেবে প্রতিষ্ঠানটি। অনুষ্ঠানে স্কয়ার হাসপাতাল ও এসআইটুয়ের প্রধান প্রশাসনিক কর্মকর্তা (সিএও) মো. ইসাম ইবনে ইউসুফ সিদ্দিকী বলেন, এসআইটু একটি বিপিও কোম্পানি। বর্তমানে এই প্রতিষ্ঠানে অর্ধশতাধিক কর্মী কাজ করছেন। কিন্তু অচিরেই আরো পাঁচ হাজার কর্মী নিয়োগ দেওয়া হবে এবং এ সেমিনার সেই নিয়োগ প্রক্রিয়ারই অংশ। বিপিও সেক্টরকে দ্রুত বর্ধনশীল এবং সম্ভাবনাময় এক খাত উল্লেখ করে ইসাম ইবনে ইউসুফ সিদ্দিকী বলেন, বাংলাদেশে বিপিও প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা বাড়ছে। এই সেক্টরে প্রচুর দক্ষ কর্মীর প্রয়োজন। আগামী কয়েক বছরের মধ্যে গার্মেন্টশিল্পের পরই বিপিও সেক্টর নিজের অবস্থান করে নেবে, তাতে কোনো সন্দেহ নেই। তাই এখন থেকেই শিক্ষার্থীদের প্রাতিষ্ঠানিক পড়াশোনার পাশাপাশি নিজেদের চাকরি-সংক্রান্ত দক্ষতা বাড়ানোর পরামর্শ দেন ইসাম ইবনে ইউসুফ সিদ্দিকী। এসআইটুয়ের মহাব্যবস্থাপক (মানবসম্পদ) নওশাদ পারভেজ বলেন, বাংলাদেশের তরুণরা অমিত সম্ভাবনার অধিকারী। কিন্তু সঠিক ক্যারিয়ার পরিকল্পনা না থাকা এবং ইংরেজি ভাষায় যথাযথ দক্ষতা না থাকার কারণে তারা আধুনিক বিশ্ব থেকে পিছিয়ে পড়ছে। এ জন্য ছাত্রাবস্থা থেকেই শিক্ষার্থীদের ইংরেজি ভাষায় দক্ষতা অর্জন ও সফট স্কিল বাড়ানোর আহ্বান জানান নওশাদ পারভেজ। তিনি বলেন, পাশের দেশ ভারতে প্রচুর বিপিও প্রতিষ্ঠান রয়েছে। সেখানে কোনো কোনো প্রতিষ্ঠানে দুই লাখের ওপর কর্মী কাজ করছে। বাংলাদেশেও সেই সম্ভাবনা রয়েছে। এসআইটু সেই লক্ষ্যেই কাজ করে যাচ্ছে। সুতরাং বিপিও সেক্টরে ক্যারিয়ার গড়ার জন্য এখন থেকেই নিজেকে প্রস্তুত করতে হবে বলে মন্তব্য করেন নওশাদ পারভেজ।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তি।

 

"