দেশের ভাষা পরিস্থিতি নিয়ে পূর্ণাঙ্গ জরিপ দরকার

ঢাবি উপাচার্য

প্রকাশ : ০৫ মার্চ ২০১৮, ০০:০০

অনলাইন ডেস্ক

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান বাংলাদেশের বিভিন্ন ক্ষুদ্র নৃ-তাত্ত্বিক গোষ্ঠীর ভাষা পরিস্থিতি নিয়ে জরিপ চালানোর ওপর গুরুত্বারোপ করে বলেছেন, এ ক্ষেত্রে ভাষাবিজ্ঞান বিভাগকে কার্যকর ভূমিকা পালন করতে হবে। মহান একুশে ফেব্রুয়ারি ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে ২৬ ফেব্রুয়ারি সোমবার নবাব নওয়াব আলী চৌধুরী সিনেট ভবনে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ভাষাবিজ্ঞান বিভাগ আয়োজিত দিনব্যাপী আন্তর্জাতিক সেমিনারের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

ইউনিভার্সিটি অব লিবারেল আটর্সের ইমেরিটাস অধ্যাপক ড. রফিকুল ইসলামের সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কলা অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. আবু মো. দেলোয়ার হোসেন বিশেষ অতিথি ছিলেন। স্বাগত বক্তব্য দেন ভাষাবিজ্ঞান বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. সৈয়দ শাহরিয়ার রহমান।

উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান বলেন, বাংলাদেশে বিভিন্ন ক্ষুদ্র নৃ-তাত্ত্বিক গোষ্ঠীর বসবাস। যথাযথ পরিচর্যার অভাবে অনেক নৃ-তাত্ত্বিক গোষ্ঠীর ভাষা আজ বিলুপ্তির পথে। এসব ভাষা সংরক্ষণের ওপর তিনি গুরুত্বারোপ করেন। উপাচার্য বলেন, ২০২১ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার শতবর্ষপূর্তি হবে। এর আগেই বাংলাদেশে ভাষা পরিস্থিতি নিয়ে পূর্ণাঙ্গ জরিপ রিপোর্ট প্রকাশের জন্য তিনি ভাষাবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের প্রতি আহ্বান জানান।

উল্লেখ্য, দিনব্যাপী সেমিনারে দুটি পর্বে দেশ-বিদেশের পাঁচজন ভাষা বিশেষজ্ঞ প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন। ইউনিভার্সিটি অব লিবারেল আর্টসের ইমেরিটাস অধ্যাপক ড. রফিকুল ইসলামের সভাপতিত্বে প্রথম পর্বে আধুনিক ভাষা ইনস্টিটিউটের পরিচালক অধ্যাপক ড. শিশির ভট্টাচার্য্য ‘বাংলাদেশের ভাষা পরিস্থিতি’, ভাষাবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক ড. শাখাওয়াৎ আনসারী ‘বাংলাদেশে জাতীয় ভাষানীতির প্রয়োজনীয়তা’ এবং নেপালের ত্রিভুবন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন অধ্যাপক ড. যোগেন্দ্র পি. ইয়াদব ‘নেপালের ভাষা পরিস্থিতি’ শীর্ষক প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ভাষাবিজ্ঞান বিভাগের অনারারি অধ্যাপক ড. আবুল কালাম মনজুর মোরশেদের সভাপতিত্বে দ্বিতীয় পর্বে বিশিষ্ট তথ্য ও প্রযুক্তি বিশেষজ্ঞ মুনীর হাসান ‘বাংলা ভাষা ও প্রযুক্তি’ এবং নেপালের ত্রিভুবন বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. ধনরাজ রিগমি ‘নেপালের সমাজ ভাষাতাত্ত্বিক জরিপের অভিজ্ঞতা’ শীর্ষক প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন। দেশের বিশিষ্ট ভাষাবিজ্ঞানীরা প্রবন্ধের ওপর মুক্ত আলোচনায় অংশ নেন।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তি।

"