উন্নত রুচির সংবাদ-ভাষ্য

প্রকাশ | ০৩ আগস্ট ২০১৮, ০০:০০

পিন্টু রহমান

সভ্যতার ক্রমবিকাশের ধারায় অরণ্যচারী মানুষ আজ নভোচারী; নভোযানের গতিতে নভোমন্ডল ও ভূমন্ডলের সর্বত্রই আমাদের বিজয়গাথা! পালে হাওয়া লাগলে নৌযান যেমন উজানের পথে তরতর করে এগিয়ে চলে, সভ্যতাও তদ্রুপ ধাবমান; বিজ্ঞানের নিত্যনতুন আবিষ্কার, প্রযুক্তির সর্বোত্তম ব্যবহার, তথ্যের অবাধপ্রবাহ এই অগ্রযাত্রায় নিয়ামক শক্তি। বিশেষত তথ্যের অবাধপ্রবাহ সমকালীন বিশেষ মানদ- হিসেবে বিবেচিত। তথ্যের প্রবাহ নিশ্চিত করতে সংবাদপত্রের ভূমিকা অগ্রণী। প্রকৃত অর্থেই পৃথিবী আজ আমাদের হাতের মুঠোয়। পরিবর্তিত পরিবেশ-পরিস্থিতির সঙ্গে খাপ খাইয়ে নিতে অন্যান্য সংবাদপত্রের মতোন ‘প্রতিদিনের সংবাদ’ নিয়ত বন্ধুর পথ পাড়ি দিয়ে চলেছে, নতুন-নতুন চ্যালেঞ্জ গ্রহণ করে নিজেই নিজের উৎকর্ষতাকে অতিক্রম করছে; তারুণ্যের বিজয়কেতন সমুন্নত রেখে নির্মাণ করছে উন্নত রুচির সংবাদ-ভাষ্য! পত্রিকার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট সবাইকে আন্তরিক ধন্যবাদ; ঐকান্তিক প্রচেষ্টা না-থাকলে এত অল্প সময়ের মধ্যে বৃহৎ জনগোষ্ঠীর আস্থা ও ভালোবাসা অর্জনে সক্ষম হতো না!

প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর এই বিশেষ ক্ষণে আবার শফাতের মন্ত্র পাঠ করা জরুরি। কতিপয় শুভ সম্ভাবনার স্বপ্ন এঁকে মাড়াতে হবে দুর্গম গিরিশৃঙ্গ। গিরিশৃঙ্গই বটে! বৈশ্বিক ও জাতীয় প্রেক্ষাপটে ক্রান্তিকাল অতিক্রম করছি আমরা। একদিকে সাম্রাজ্যবাদীদের নগ্ন আগ্রাসন, অন্যদিকে ভূলুণ্ঠিত মানবতা! সংবাদ ও সংবাদকর্মীদের ভূমিকা তাই বহু গুণে বৃদ্ধি পেয়েছে। নির্যাতিত-নিপীড়িত জনগণ তাদের দিকে চেয়ে; হয়তো চেয়ে-চেয়ে স্বপ্নজাল বুনছে! স্বপ্নের দিশারি হতে না পারলে সাংবাদিকতার মতো এমন মহৎ পেশায় আসা কেন; কেনই-বা স্বপ্নের ফানুস ওড়ানো! রাষ্ট্রীয় ব্যবস্থাপনা বা অন্য যেকোনো কারণে ব্যক্তির মতপ্রকাশের স্বাধীনতা ক্ষুণœ হলে সংবাদপত্রের ওপর জনগণের নির্ভরতা বৃদ্ধি পায়। বর্ধিত চাপ নিরসন করে সুষ্ঠু ও সুন্দর সমাজ বির্নিমাণে সংবাদপত্রের ভূমিকা যুগে-যুগে প্রশংসিত হয়েছে। তা ছাড়া গণতান্ত্রিক ব্যবস্থায় সংবাদপত্র সহায়ক শক্তি। যেকোনো পত্রিকার শক্তিমত্তা জানান দিতে সমাজের রন্ধ্রে-রন্ধ্রে বিদ্যমান সংকট ও সম্ভাবনার কথা নির্মোহভাবে উপস্থাপন করতে হয়; জনগণের আশা-আকাক্সক্ষার প্রতিফলন ঘটাতে হয়। গত পাঁচ বছরের গতিপথ পর্যালোচনা করে এ কথা বলতে পারি, ‘প্রতিদিনের সংবাদ’ পরিকল্পনামাফিক এগিয়ে চলেছে। সংবাদ পরিবেশনের নিরিখে নিজস্বতা তৈরিতে স্বক্ষম হয়েছে; শিল্প-সাহিত্য, ব্যবসা-বাণিজ্য, বিজ্ঞান, ধর্ম, বিনোদনসহ অন্যান্য শাখায় স্বকীয়তার নজির স্থাপন করেছে। সত্য প্রকাশে পত্রিকাটি নির্ভিক। জনগণের আশা-আকাক্সক্ষার প্রতিফলন ঘটাতে সদা তৎপর। আপসকামী মানসিকতায় প্রভাবিত না হয়ে, দল-মতের ঊধ্বে উঠে ‘প্রতিদিনের সংবাদ’ ইতোমধ্যেই বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ হিসেবে বিবেচিত। পত্রিকাটির উত্তরোত্তর সমৃদ্ধি কামনা করছি।

"