নেপালে অভিবাসন কর্মকর্তারা নারী পাচারে জড়িত : রিপোর্ট

প্রকাশ : ১০ আগস্ট ২০১৭, ০০:০০

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

নেপালের আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের কর্মকর্তাদের সঙ্গে যোগসাজশের মাধ্যমে পাচারকারীরা অবৈধভাবে নেপালি নারীদের মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন দেশে পাচার করছে, যেখানে তারা প্রায় ক্ষেত্রেইে যৌন নির্যাতন ও শোষণ ও নিপীড়নের শিকার হচ্ছে।

গত মঙ্গলবার প্রকাশিত এক সংসদীয় রিপোর্টে এ কথা বলা হয়।

আন্তর্জাতিক সম্পর্ক ও শ্রমিক অধিকারবিষয়ক পার্লামেন্টারি কমিটি বলেছে, নেপাল সরকার বিদেশে কর্মরত নেপালি নাগরিকদের সুরক্ষা দিতে ব্যর্থ হয়েছে এবং তারা মানব পাচারের অভিযোগ কানে তোলেনি।

রিপোর্টে বলা হয়েছে, যেসব নেপালি অবৈধভাবে মধ্যপ্রাচ্যে গৃহকর্মীর কাজ করতে যায়, তাদের ৬০ শতাংশই নেপালের রাজধানী কাঠমান্ডুতে অবস্থিত দেশের প্রধান আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর দিয়েই যায়।

রিপোর্টে বলা হয়েছে, ‘(তারা) অভিবাসন কর্মকর্তা, এয়ারলাইনস কোম্পানির স্টাফ ও নিরাপত্তা কর্মকর্তাদের সঙ্গে সরাসরি যোগসাজশের মাধ্যমে টুরিস্ট ভিসা নিয়ে ত্রিভূবন বিমানবন্দর দিয়েই গমন করে। ’

বাকিরা ভারত, শ্রীলঙ্কা, চীন ও আফ্রিকার বিভিন্ন নগরী হয়ে গিয়ে থাকে। এসব নারীকে বিভিন্ন হোটেল ও স্টোরে উচ্চ বেতনের চাকরির প্রলোভন দেখিয়ে মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন দেশে নিয়ে যাওয়া হলেও শেষ পর্যন্ত তাদের বাসাবাড়িতে গৃহকর্মীর কাজে নিয়োগ করা হয়। সেখানে তাদের পাসপোর্ট জব্দ করা হয়।

প্রায় ৪০ লাখ নেপালি নাগরিক মধ্যপ্রচ্য ও নেপালে কাজ করে থাকে। সরকারি তথ্য অনুযায়ী তাদের পাঠানো রেমিট্যান্সের পরমিাণ দেশটির জাতীয় রাজস্ব আয়ের প্রায় এক-তৃতীয়াংশ।

"