ট্রাম্প-পুত্রের সঙ্গে বৈঠকের কথা স্বীকার করলেন রাশিয়ার লবিস্ট

প্রকাশ : ১৬ জুলাই ২০১৭, ০০:০০

বিবিসি

নির্বাচনের আগে প্রতিপক্ষের স্পর্শকাতর তথ্যের জন্য মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের ছেলে রাশিয়ার সঙ্গে বৈঠক করেছিলেন বলে স্বীকার করেছেন রাশিয়ার সাবেক এক সামরিক গোয়েন্দা কর্মকর্তা।

রিনাত আখমেৎশিন নামের ওই সাবেক সামরিক গোয়েন্দা এখন একজন রাশিয়ান-আমেরিকান লবিস্ট হিসেবে কাজ করেন।

গত শুক্রবার বৈঠকটির সত্যতা মার্কিন মিডিয়ার কাছে স্বীকার করেন রাশিয়ার এই লবিস্ট। নিউইয়র্কের ট্রাম্প টাওয়ারে গত বছর অনুষ্ঠিত বৈঠকটির বিষয় নিশ্চিত করে রিনাত আখমেৎশিন জানান, তিনি নিজেও ওই বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন। ওই বৈঠকে ট্রাম্পের জামাতা জেরার্ড কুশনার এবং ট্রাম্পের নির্বাচনী প্রচার কমিটির চেয়ারম্যান পল ম্যানাফোর্টও উপস্থিত ছিলেন বলে জানান আখমেৎশিন। তিনি আরো জানান, বৈঠকে ডোনাল্ড ট্রাম্প জুনিয়রকে হিলারির জন্য ক্ষতিকর তথ্য দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েছিল।

ট্রাম্প জুনিয়র এর আগে অবশ্য শুধু রাশিয়ার আইনজীবী নাতালিয়া ভেসেলনিতস্কায়ার সঙ্গে সাক্ষাতের বিষয়টি স্বীকার করেছিলেন।

এ সপ্তাহে ২০১৬ সালের ৯ জুন ট্রাম্পের বড় ছেলে ওই বৈঠক করেছিলেন বলে জানাজানি হয়।

এ বিষয়ে মার্কিন সিনেট ৩৯ বছর বয়সী ট্রাম্প জুনিয়রকে জনসমক্ষে সাক্ষ্য দিতে বলেছে।

এই বৈঠক সম্পর্কে গত বৃহস্পতিবার ফ্রান্সের প্যারিসে এক সংবাদ সম্মেলনে ট্রাম্প বলেন, ‘অনেকেই এটাকে বৈঠক হিসেবে বিবেচনা করছে, আসলে মোটেও তা নয়।’

আখমেৎশিন ওয়াশিংটন পোস্টকে জানান, ট্রাম্প টাওয়ারের ওই বৈঠকে নাতালিয়ার একমাত্র সহচর ছিলেন তিনি। বৈঠকের পর সেখানে নাতালিয়ার জন্য মধ্যাহ্ন ভোজেরও আয়োজন করা হয়েছিল।

‘নাতালিয়ার সঙ্গে আমার যখন ম্যানহাটন স্কাইস্ক্রাপার টাওয়ারে দেখা হয়, তখন তিনি জিন্স আর টি-শার্ট পরা ছিলেন’ উল্লেখ করে রাশিয়ার লবিস্ট বলেন, ‘সত্যি বলছি, আমি কখনো ভাবিনি যে এত বড় একটা চুক্তি হতে যাচ্ছে।’

এ বৈঠকের সব ব্যবস্থা করে দিয়েছিলেন যুক্তরাজ্যের সংগীত জগতের প্রকাশক রব গোল্ডস্টোন। তিনি মূলত রাশিয়ার পপ তারকা এমিন আগালারভের গান প্রকাশ করে থাকেন।

আগালারভের সঙ্গে ট্রাম্পের বড় ছেলের ২০১৩ সালে মস্কোর মিস ইউনিভার্স প্যাজেঅ্যান্টে পরিচয় হয়।

বৈঠকের আলোচ্যসূচি সম্পর্কে এই লবিস্ট বলেন, গোল্ডস্টোন ট্রাম্প-পুত্রকে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন যে, নাতালিয়া তাকে হিলারির জন্য ক্ষতিকর এমন তথ্য জানাবে। এ সময় গোল্ডস্টোন নাতালিয়াকে রাশিয়া সরকারের অ্যাটর্নি হিসেবেও পরিচয় করিয়ে দেন। আখমেৎশিন সংবাদমাধ্যম এপিকে জানান, নাতালিয়া ট্রাম্প-পুত্রকে হিলারির ডেমোক্রেটিক ন্যাশনাল কমিটির (ডিএনসি) কেলেঙ্কারির বিষয়ে বিস্তারিত জানান। তিনি বলেন, ‘কী করে ডিএনসি অবৈধ অর্থ গ্রহণ করছে, নির্বাচনের জন্য এটা ছিল একটা ভালো ইস্যু।’

আখমেৎশিনের ভাষ্য, ট্রাম্প-পুত্র নাতালিয়ার কাছে জানতে চেয়েছিলেন এ অভিযোগ প্রমাণের জন্য তার কাছে যথেষ্ট তথ্য আছে কি না। নাতালিয়া এ সময় বিষয়টি নিয়ে ঘাঁটাঘাঁটি করতে হবে জানান। এই কথা শুনে ট্রাম্প-পুত্র বৈঠকেই আগ্রহ হারিয়ে ফেলেন। রাশিয়ার লবিস্টের দাবি, ‘ট্রাম্প-পুত্র বৈঠকের শেষ অবধি অপেক্ষা না করেই উঠে যেতে চাইছিলেন।’

"