খামেনির নেতৃত্বে ৮ বছর পর দোয়া

প্রকাশ : ১৮ জানুয়ারি ২০২০, ০০:০০

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

ইরানের সর্বোচ্চ নেতা আয়াতুল্লাহ আল খামেনি ২০১২ সালের পর গতকাল শুক্রবার তেহরানে জুমার নামাজ শেষে দোয়ায় নেতৃত্ব দেন। দোয়ার মাধ্যমে খামেনি জাতীয় ঐক্যের ডাক দেন। ইরানের ক্ষেপণাস্ত্রে বিমান বিধ্বস্তের ঘটনায় চলমান বিক্ষোভের মধ্যে প্রেসিডেন্ট রুহানিও জাতীয় ঐক্যের ডাক দিয়েছেন।

সোলাইমানি হত্যাকা-ের পর গোটা ইরানে মার্কিনবিরোধী সেøাগান শুরু হলেও যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে চলমান ওই উত্তেজনার মধ্যেই ইরান ভুলে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালিয়ে ১৭৬ আরোহীর একটি বিমান ভূপাতিত করলে ক্রুসহ বিমানের সব যাত্রী নিহত হয়। যাদের বেশির ভাগই ইরানি। এরপর খামেনিবিরোধী বিক্ষোভ শুরু হয় ইরানে।

ইরানের রাষ্ট্রায়ত্ত সংবাদ সংস্থা জানিয়েছে, তেহরানের মোসাল্লা মসজিদে জুমার নামাজ শেষে দোয়ায় নেতৃত্ব দেন আয়াতুল্লাহ আল খামেনি। ১৯৮৯ সালে ইরানের সর্বোচ্চ নেতা হন তিনি। ইরানে তার কথার ওপরে কারো কোনো কথা বলার সুযোগ নেই। তিনিই দেশটির গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নেন। সোলাইমানির জানাজায় তাকে কাঁদতে দেখা গিয়েছিল।

খামেনির পরপরই ইরানের দ্বিতীয় ক্ষমতাধর ব্যক্তি মনে করা হতো জেনারেল কাসেম সোলাইমানিকে। তিনি ছিলেন খামেনির বিশ্বস্ত সঙ্গী। তাইতো মার্কিন অভিযানে সোলাইমানি নিহত হওয়ার পর খামেনি যুক্তরাষ্ট্রকে হুঁমকি দিয়ে বলেন, সোলাইমানির হত্যাকারী ইরানের শত্রুদের জন্য কঠিন প্রতিশোধ অপেক্ষা করছে।

খামেনি সর্বশেষ শুক্রবার দোয়ায় নেতৃত্ব দেন ২০১২ সালের ফেব্রুয়ারিতে। তখন তিনি ইসরায়েলকে ‘ক্যানসার-টিউমার’ বলে অভিহিত করেন। এর বিরুদ্ধে যারা লড়বে তাদের সমর্থনের কথাও জানান। এছাড়া তিনি ইরানের পারমাণবিক কর্মসূচিতে মার্কিন হামলা হলে ১০ গুণ বেশি ধ্বংসের হুমকি দেন যুক্তরাষ্ট্রকে।

তবে সোলাইমানি হত্যার পর ইরান বিপুলভাবে ঐক্যবদ্ধ হলেও গত ৮ জানুয়ারি ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালিয়ে যাত্রীবাহী বিমান বিধ্বস্তের ঘটনা লুকানোর কারণে ইরান সরকারের বিরুদ্ধে মানুষ ক্ষিপ্ত হয়। বিক্ষোভকারীরা খামেনিকে মিথ্যা বলার অভিযোগে অভিযুক্ত করেন। অনেকে ক্ষমতাসীন সরকারের পতনের দাবিতেও সেøাগান দেন।

তিন দিন পর বিমান ভূপাতিত করার কথা স্বীকার করায় ঘরে-বাইরে সরকারের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন হয়। ইরানের মানুষ ওই ঘটনায় ক্ষোভ জানাতে শুরু করলে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প তাদের পাশে আছেন বলে আশ্বস্ত করেন। এসবের মধ্যে জাতীয় ঐক্য তৈরিতে আট বছর পর দোয়ায় খামেনি নেতৃত্ব দিচ্ছেন বলে ধারণা করা হচ্ছে।

 

"