‘ভুয়া খবরের’ বিরুদ্ধে লড়াইয়ে বিবিসি

প্রকাশ : ০৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০০:০০

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

গুগল, টুইটার, ফেসবুকের মতো প্রতিষ্ঠানের সহায্য নিয়ে ‘ভুয়া খবরের’ বিরুদ্ধে লড়াইয়ে নামার খসড়া পরিকল্পনা তৈরি করেছে বিবিসি। নতুন পরিকল্পনায় নির্বাচনের সময় বা জনজীবনের জন্য ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে উঠতে পারে এমন ‘ভুয়া খবর’ ছড়িয়ে পড়া আটকাতে আগাম সতর্কবার্তা দেওয়ার ব্যবস্থা, অনলাইনের ব্যবহার নিয়ে বাড়তি শিক্ষা দেওয়া এবং ভোটারদের নির্বাচন নিয়ে আংশিক মিথ্যা খবর পড়া আটকাতে নিউজ পোর্টালে প্রবেশের ক্ষেত্রে নিরাপত্তা ব্যবস্থার উন্নয়ন করার কথা বলা হয়েছে।

‘ভুয়া তথ্যের’ বিরুদ্ধে তাদের এই যুদ্ধ ‘খুবই গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ’ বলে বর্ণনা করেছে বিবিসি। বড় বড় প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানগুলো ‘টিকা নিয়ে ভীতি ছড়ানো’ ‘মিথ্যা গল্প ছড়িয়ে দেওয়া’ বা ‘নির্বাচনকে প্রভাবিত করার মতো ভুয়া খবর’ অনলাইনে ছড়িয়ে পড়া রোধে পর্যাপ্ত ব্যবস্থা গ্রহণে ব্যর্থ হয়েছে। ভুয়া খবর ছড়িয়ে পড়া আটকাতে সম্প্রতি বিবিসির আয়োজনে ‘ট্রাস্টেড নিউজ সামিট’ এ বড় বড় প্রযুক্তি ফার্মের শীর্ষ কর্মকর্তা এবং বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমের কর্তা ব্যক্তিরা অংশ নেন। ওই সম্মেলনে নতুন পরিকল্পনার খসড়া নিয়ে আলোচনা হয়। নতুন পরিকল্পনায় যেসব বিষয়ের কথা উল্লেখ করা হয়Ñ

১. আগাম সতর্কবার্তা দেওয়া : এমন একটি প্রযুক্তি প্রদ্ধতি তৈরি করা যাতে মানবজীবনের জন্য হুমকি বা নির্বাচনের সময় বিশৃঙ্খলা ছড়িয়ে গণতান্ত্রিক পরিবেশ নষ্ট করার মতো ভুয়া তথ্য ছড়িয়ে পড়ছে বুঝতে পারলেই সঙ্গে সঙ্গে অন্যান্য প্রতিষ্ঠানকে সেটি সম্পর্কে সতর্ক করে দেওয়া।

২. অনলাইন সংবাদমাধ্যম ব্যবহার সম্পর্কে শিক্ষা : অনলাইন সংবাদমাধ্যমের ব্যবহার সম্পর্কে একটি যৌথ প্রচার অভিযান চালানো।

৩. ভোটার তথ্য : নির্বাচনের সময় নাগরিক তথ্য প্রদানে সহায়তা করা। যেমন ভোটের দিন ভোটারদের ভোটকেন্দ্র কোনটি বা কীভাবে যেতে হবে ইত্যাদি সাধারণ তথ্য প্রদান।

৪. সংগ্রহিত তথ্য বিনিময় : বিশেষ করে গুরুত্বপূর্ণ নির্বাচনের সময় প্রয়োজনীয় তথ্য বিনিময় করা।

বিবিসির মহাপরিচালক টনি হল বলেন, মিথ্যা তথ্য এবং তথাকথিত মিথ্যা খবর আমাদের সবার জন্যই হুমকি। এটার সবচেয়ে ভয়ংকর রূপ হলো, এটা গণতন্ত্রের উপর এমনকি মানুষের জীবনের ওপরও গুরুতর হুমকি হয়ে উঠতে পারে।

‘সম্মেলনে এই সংকটের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণের বিষয়ে আমরা ঐক্যবদ্ধ হয়েছি এবং এজন্য গুরুত্বপূর্ণ কিছু পদক্ষেপ গ্রহণেও আমরা একমত হয়েছি।’ এ বিষয়ে পরে আরো বিস্তারিত তথ্য প্রকাশ করা হবে বলেও জানান তিনি।

 

"